০৮ এপ্রিল ২০২০

টঙ্গীতে বস্তির নিয়ন্ত্রণ নিতে আ’লীগের ২ গ্রুপের পাল্টাপাল্টি ঝাড়–মিছিল

-

টঙ্গীতে বস্তির নিয়ন্ত্রণ নিতে সরকারি দলের দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। গত সোমবার বস্তি উচ্ছেদের পক্ষের গ্রুপ উচ্ছেদের বিপক্ষের গ্রুপের ওপর হামলা চালায়। এর প্রতিবাদে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে বস্তিবাসীদের সাথে নিয়ে ঝাড়–মিছিল করেছে উচ্ছেদের বিপক্ষে অবস্থান নেয়া গ্রুপটি। অপর দিকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কাঁঠালদিয়া এলাকা থেকে বস্তি উচ্ছেদের পক্ষের গ্রুপ বিপক্ষের গ্রুপের বিরুদ্ধে অপর একটি ঝাড়–মিছিল বের করে। মিছিলটি স্থানীয় দেওড়া ফকির মার্কেটসহ বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণ করে। ছিন্নমূল বস্তিবাসীরা জানায়, তারা রাজউকের পরিত্যক্ত শিল্প প্লটে অস্থায়ী ঝুপড়ি ঘর উঠিয়ে দীর্ঘ দিন যাবত বাস করছে। রাজউকের শিল্প জোনের স্থানীয় কাঁঠালদিয়া বস্তির একটি অংশ শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীনে। সম্প্রতি শিল্প মন্ত্রণালয় তাদের ওই প্লটে ঢাকার কেমিক্যালের গোডাউন স্থানান্তরের প্রকল্প হাতে নিয়েছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য ওই শিল্প প্লট থেকে বিদ্যমান বস্তি উচ্ছেদের জন্য মোটা অঙ্কের ক্ষতিপূরণ নির্ধারণ করা হয়েছে। স্থানীয় বিতর্কিত একজন আওয়ামী লীগ নেতার মাধ্যমে অতি গোপনীয়তার সহিত বস্তিবাসীদের ওই ক্ষতিপূরণের টাকা দেয়া হচ্ছে। বস্তিবাসীর অভিযোগ, ওই আওয়ামী লীগ নেতা বস্তিবাসীদেরকে তার বাসায় ডেকে নিয়ে নামেমাত্র ক্ষতিপূরণের টাকা ধরিয়ে দিয়ে উচ্ছেদের চেষ্টা করছেন। এ ঘটনায় বস্তিবাসীরা মহানগর যুবলীগের এক প্রভাবশালী নেতার শরণাপন্ন হয়। ওই নেতা উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ ছাড়া বস্তি না ছাড়ার জন্য বস্তিবাসীদের পরামর্শ দেন। উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ ছাড়া উচ্ছেদের চেষ্টা করা হলে তিনি বস্তিবাসীদের পাশে থাকবেন বলে বস্তিবাসীদের আশ্বস্ত করেন। ইতোমধ্যে একটি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বিতর্কিত ওই নেতার ফাঁসির দাবিতে এলাকায় ব্যাপক পোস্টারিং করা হয়। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা দেখা দেয়। গত সোমবার ওই বিতর্কিত নেতার ভাইয়ের নেতৃত্বে আলোচিত হত্যা মামলার আসামিরা বস্তি উচ্ছেদের বিপক্ষের গ্রুপের ওপর হামলা চালায়। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়। পরিস্থিতি মোকাবেলায় একপর্যায়ে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। সোমবারের হামলার প্রতিবাদে গতকাল মঙ্গলবার উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ ছাড়া বস্তি উচ্ছেদ চেষ্টার প্রতিবাদে ঝাড়–মিছিল বের করে বস্তিবাসী। ঝাড়– বিক্ষোভ মিছিলটি বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণ শেষে টঙ্গী প্রেস ক্লাবের সামনে এসে সমাবেশ করে শেষ হয়। এ সময় বস্তিবাসীর পক্ষে বস্তি নেতা তানিয়া ও আল আমিন সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, একটি মহল বস্তি উচ্ছেদের লিজ এনে বস্তিবাসীদের বিনা ক্ষতিপূরণে উচ্ছেদ করার পাঁয়তারা করছে। ইতোমধ্যে ওই মহলটি বস্তি উচ্ছেদের জন্য ভাড়াটে মাস্তান দিয়ে বস্তিতে কয়েকবার হানা দেয়। বস্তিবাসীর প্রতিরোধের মুখে উচ্ছেদকারীরা পালিয়ে গেলেও তারা বস্তি নিয়ন্ত্রণে নিতে সারাক্ষণ একের পর এক অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ ছাড়া বস্তি ছাড়া হবে না বলে সমাবেশে ঘোষণা দেয়া হয়। বক্তারা আরো বলেন, জান দেবো তো ক্ষতিপূরণ ছাড়া বস্তি ছাড়ব না। এদিকে টঙ্গীর কাঁঠালদিয়া, জিন্নাত, নামাবাজার, কলাবাগান, বেঙ্গল ও কড়–ইতলা বস্তি নিয়ন্ত্রণে নিতে পাল্টা সভা-সমাবেশ চালিয়ে যাচ্ছে বস্তি উচ্ছেদ চেষ্টাকারী দল। এমন পরিস্থিতিতে বস্তিগুলোতে যেকোনো সময় সংঘর্ষের আশঙ্কায় স্থানীয় প্রশাসন বস্তিবাসীর দিকে কড়া নজর রাখছে। উল্লেখ্য টঙ্গীতে ছোট-বড় মিলিয়ে ১৯টি বস্তি রয়েছে। টঙ্গীতে নারী পোশাক শ্রমিকের আত্মহত্যা টঙ্গী সংবাদদাতা জানান, গত সোমবার রাতে টঙ্গীর দেওড়া শরীফ মার্কেট এলাকায় স্বামীর সাথে ঝগড়া করে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছে এক নারী পোশাক শ্রমিক। নিহতের নাম সাবিনা ইয়াসমিন (২৫)। তার স্বামীর নাম জাহাঙ্গীর আলম। তাদের বাড়ি বরগুনা জেলার বেতাগী থানায়। দেওড়ার আব্দুল হকের বাড়িতে তারা ভাড়া থাকেন। নিহতের ছয় বছর বয়সের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। গত ৭২ ঘণ্টার মধ্যে টঙ্গীতে এটি দ্বিতীয় গার্মেন্ট কর্মীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করল পুলিশ। তবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন ছাড়া বলা যাচ্ছে না বলে টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশ জানিয়েছে।


আরো সংবাদ

সেই প্রিয়া সাহা করোনায় আক্রান্ত! (৫০৮৩৩)নিজ এলাকায় ত্রাণ দিয়ে ঢাকায় ফিরে করোনায় মৃত্যু, আতঙ্কে স্থানীয়রা (৪৪৬১১)বেওয়ারিশের মতো সারা রাত সঙ্গীতশিল্পীর লাশ পড়েছিল রাস্তায় (২৬৭২১)দীর্ঘদিন জেলখাটা আসামিদের মুক্তির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর (২০২৫৬)করোনা ছড়ানোয় চীনকে যে ভয়ঙ্কর শাস্তি দেয়ার দাবি উঠল জাতিসংঘে (১৬৩৮৯)কাশ্মিরে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে নিহত ভারতীয় দুর্ধর্ষ কমান্ডো দলের সব সদস্য (১৫৫২৩)রোজার ঈদের ছুটি পর্যন্ত বন্ধ হচ্ছে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান (১৩০৭৯)করোনার লক্ষণ নিয়ে নিজের বাড়িতে মরে পড়ে আছে ব্যবসায়ী, এগিয়ে আসছে না কেউ (১২৮০৫)ঢাকায় নতুন করে ৯টি এলাকা লকডাউন (১০৬৪৩)সবচেয়ে ভয়াবহ দিন আজ : মৃত্যু ৫, আক্রান্ত ৪১ (১০০৬১)