২২ সেপ্টেম্বর ২০২০

মেহেদির রঙ মুছতে না মুছতেই...

-

হাতে মেহেদি মেখে, লাল বেনারসি জড়িয়ে ১৮ দিন আগে স্বামীর ঘরে গিয়েছিলেন আসমা আক্তার মীম (১৮)। কিন্তু মেহেদির রঙ মুছতে না মুছতেই চিরতরে মুছে গেছেন নববধূ মীম। নিভে গেল তার জীবনপ্রদীপ। জানা গেছে, বিয়ের আগ থেকেই অন্য ছেলের সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল আসমা আক্তার মীমের। বিয়ের দুই সপ্তাহ পরও ওই প্রেমিকের সাথে যোগাযোগ হতো আসমার। তাই স্বামীর বাড়ি থেকে রাজধানীর ডেমরায় বাবার বাড়িতে চলে আসে আসমা। আসমাকে নিতে আসেন তার স্বামী শামীম। কিন্তু তার সাথে যেতে রাজি না হওয়ায় আসমাকে পিটিয়ে হত্যা করে শামীম। এ ঘটনায় ঘাতক স্বামী শামীমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল মুগদা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডেমরা থানার ওসি সিদ্দিকুর রহমান।
তিনি জানান, গত ২৪ অক্টোবর শামীম ও মীমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর মীম তার স্বামীর সাথে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে বাস করতেন। বিয়ের পর থেকেই তাদের দু’জনের মধ্যে বনিবনা না হওয়ায় পারিবারিক কলহ লেগেই থাকত। পারিবারিক কলহের জেরে গত ১১ নভেম্বর মীম তার বাবার বাসা ডেমরায় চলে আসেন। পরের দিন সকালে শামীম তার শ্বশুরালয়ে আসেন। রাতে শামীম তার স্ত্রীকে নিয়ে ঘুমাতে যান। রাতে তাদের মধ্যে বেশ কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে শামীম রাগান্বিত হয়ে মীমকে হত্যা করে পালিয়ে যান। এ ঘটনায় মীমের বাবা হবি কাজী ডেমরা থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।


আরো সংবাদ