০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

র‌্যামফিট চিকিৎসকদের নৈতিকতা নিশ্চিতে কাজ করে

র‌্যামফিট চিকিৎসকদের নৈতিকতা নিশ্চিতে কাজ করে - ছবি : সংগৃহীত

রিসার্চ একাডেমি ফর মেডিকেল ফিক্কহ অ্যান্ড ইসলামিক ট্রিটমেন্ট (র‌্যামফিট) একটি অরাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান। এ সংগঠনটি চিকিৎসা পেশা ও চিকিৎসকদের এথিকেল প্র্যাকটিস নিশ্চিত করতে কাজ করে। চিকিৎসা পেশায় নৈতিক, মানবিক এবং যেসব ক্ষেত্রে ইসলামের সুস্পষ্ট বিধান রয়েছে সেসব মেনে চিকিৎসা সেবা প্রদান করতে র‌্যামফিট চিকিৎসকদের উৎসাহিত করে। কিন্তু ডা. শাকির বিন ওয়ালীকে জড়িয়ে র‌্যামফিটের বিরুদ্ধে অসত্য ও অপপ্রচার চলছে। সোমবার বিকালে সংবাদ সম্মেলনে র‌্যামফিটের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. মো: শরিফুল ইসলাম র‌্যামফিটের পক্ষ থেকে তার সংগঠনের বক্তব্য তুলে ধরেন। ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনী মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‌্যামফিটকে জড়িয়ে সব ধরনের অসত্য সংবাদ ও অপপ্রচারের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান তিনি। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মুফতি ডা. মো: ইসমাইল হোসেন।

ডা. মো: শরীফুল ইসলাম বলেন, ডা. শাকির বিন ওয়ালীকে জড়িয়ে মিডিয়ায় র‌্যমাফিটের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ আনা হচ্ছে, সেসব অভিযোগের সাথে র‌্যামফিট একমত নয়। তাছাড়া শাকির বিন ওয়ালী র‌্যামফিটের কোনো কাউন্সিলর ছিলেন না। তিনি র‌্যামফিটের সাথে জড়িত হয়েছেন চলতি বছরের মার্চ থেকে। অন্যদিকে র‌্যামফিট কাজ শুরু করেছে ২০২০ সালের মে থেকে। সংগঠনটি কোনো সময়ই রাজনীতির সাথে জড়িত নয়।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে শরিয়াহ আইন চালু করার বিষয়টি রাজনীতির ব্যাপার, র‌্যামফিট বাংলাদেশে শরিয়াহ আইন কায়েম করতে চায় না। তবে র‌্যামফিট শরিয়াহর ভিত্তিতে চিকিৎসা পেশাজীবীদের নৈতিকতাকে উন্নত করতে চায়। চিকিৎসা পেশায় অনৈতিকতা সম্পর্কে তিনি বলেন, ব্রেইনের সিটি স্ক্যান করতে আড়াই হাজার টাকা হলেই চলে। কিন্তু কোনো কোনো প্রতিষ্ঠানে এই সিটি স্ক্যানটি করতে চার হাজার টাকা নেয়। আবার এমআরআই করাতে চার হাজার টাকা হলেই চলে, কিন্তু কেউ কেউ সাত হাজার টাকা নেয়। বাকি টাকাটা দালালরা নিয়ে যায়। আমরা র‌্যামফিটের পক্ষ থেকে উদীয়মান চিকিৎসকদের এ ব্যাপারটি হৃদয়ঙ্গম করতে বলি। তাদের হালাল-হারাম আয়ের ইসলামিক জ্ঞান দেয়া হয়। ‘প্রতিটি মানুষকে কীভাবে রক্ষা করার ইসলামি সাইকোলজি প্রয়োগ করে আমরা হতাশায় নিমজ্জিতদের আশার আলো দেখাই।

মুফতি ডা. মো: ইসমাইল হোসেন বলেন, ‘র‌্যামফিট তরুণ চিকিৎসকদের মধ্যে কাউন্সিলিং করে থাকে। তাদের সঠিক পথটি দেখিয়ে দেয়া হয়।’ যেমন মহান আল্লাহ কুরআনে বলেন, তোমরা তোমাদের জীবন ধ্বংস করবে না।’ আমরা আল্লাহর এ বাণীটি তরুণ চিকিৎসকদের স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলি আত্মহত্যা করলে জান্নাত পাওয়া যাবে না। তিনি বলেন, ‘তরুণদের মধ্যে অনেকে জঙ্গীবাদে উদ্বুদ্ধ হচ্ছে। জঙ্গিবাদ যে ইসলাম বিরোধী এবং নিরীহ মানুষ মেরে ফেললে পরকালে মুক্তি পাওয়া যাবে না’- আমরা তরুণ চিকিৎসকদের এসব শিখিয়ে থাকি এবং চিকিৎসকদের ইসলাম সম্পর্কে একটি পরিস্কার ধারণা প্রদান করি।’

‘আপনারা কাউন্সিলিং করতে পারেন কি না’- এমন এক প্রশ্নের জবাবে ডা. শরীফুল ইসলাম বলেন, ‘একজন এমবিবিএস ডাক্তার মানেই কাউন্সিলিং করার অনুমতিপ্রাপ্ত।’


আরো সংবাদ


premium cement