২৯ মে ২০২২, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৭ শাওয়াল ১৪৪৩
`

জেগে উঠেছে সমুদ্রগর্ভের ‘ঘুমন্ত দানব’

জেগে উঠেছে সমুদ্রগর্ভের ‘ঘুমন্ত দানব’ - ছবি : সংগৃহীত

নতুন বছরের গোড়াতেই বিশ্বজুড়ে বড়সড় প্রাকৃতিক বিপর্যয়। শনিবার সন্ধ্যায় হঠাৎই জেগে ওঠে প্রশান্ত মহাসাগরের নিচে থাকা আগ্নেয়গিরি। তার জেরেই যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, জাপানের মতো একাধিক দেশের উপকূলবর্তী এলাকায় সুনামির আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা এড়াতে উপকূলবর্তী এলাকা খালি করা হয়েছে।

শনিবার সন্ধ্যায় উপগ্রহ চিত্রে ধরা পড়ে ভয়াবহ ছবি। দেখা যায়, দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরে গর্ভে থাকা হাঙ্গা টোঙ্গা হাঙ্গা হোপাই নামে আগ্নেয়গিরি জেগে উঠেছে। আচমকাই শুরু হয় অগ্ন্যুৎপাত।

দেখা যায়, আশপাশ কালো ছাই আর ধোঁয়ায় ভরে গেছে। আর এই লাভা উদগীরণের জেরে আশপাশের সমুদ্রতলে আলোড়ন তৈরি হয়। যার জেরে টোঙ্গা উপকূলসহ একাধিক দেশের সুনামির আশঙ্কা করা হয়েছিল।

শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, শনিবার গভীর রাত থেকে টোঙ্গা উপকূলে উঁচু উঁচু ঢেউ আছড়ে পড়েছে। একাধিক এলাকায় বন্যা পরিস্থিতি। অস্ট্রেলিয়ার জলবায়ু বিভাগের পূর্বাভাস অনুযায়ী, টোঙ্গার রাজধানী নুকু’আলোফার কাছে ১.২ মিটার অর্থাৎ প্রায় ৪ ফুট উচ্চতার ঢেউ দেখা গেছে। রাত ১২টা নাগাদ আমামি ওশিমা দ্বীপে সুনামির ঢেউ আছড়ে পড়ে। সেই সময় ঢেউয়ের উচ্চতা ছিল প্রায় ৩ ফুট।

রোববার জাপানের মূল ভূখণ্ডে সুনামির আশঙ্কা রয়েছে। ইতোমধ্যে সুমদ্র উপকূল থেকে বাসিন্দাদের সরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশিকা জারি না হওয়া পর্যন্ত বাসিন্দাদের সুমদ্রের কাছাকাছি যাওয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। একই ধরনের সতর্কতা জারি করা হয়েছে নিউজিল্যান্ড, রাশিয়া ও আমেরিকার বিস্তীর্ণ এলাকায়। আলাস্কা, হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জেও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে। সবমিলিয়ে বছরের শুরুতেই বড়সড় বিপর্যয়ের আশঙ্কার প্রহর গুনছে বিশ্ববাসী।


আরো সংবাদ


premium cement