০৭ মার্চ ২০২১
`

রাশিয়া-চীনের সাথেও ভ্যাকসিন নিয়ে আলোচনা চলছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

রাশিয়া-চীনের সাথেও ভ্যাকসিন নিয়ে আলোচনা চলছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী - ছবি : সংগৃহীত

করোনাভাইরাস মোকাবেলা করতে বিভিন্ন দেশ থেকে ভ্যাকসিন আনার চেষ্টা করছে সরকার। এই ক্ষেত্রে চলতি মাসেই ভারত থেকে টিকার প্রথম চালানা আসার কথা রয়েছে। এছাড়া রাশিয়া ও চীনের সাথেও বিষয়টি নিয়ে কথা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালিক।

সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা এখন কোভিড- ১৯ এর ভ্যাকসিন পাওয়ার অপেক্ষায় রয়েছি। আমরা রাশিয়া, চীন এবং অন্যান্য দেশের সাথেও ভ্যাকসিনের জন্য আলোচনা করছি’।

মন্ত্রী বলেন, ‘সরকার ভ্যাকসিনেশন প্রোগ্রামটা সফলভাবে বাস্তবায়ন করতে চায়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) নীতিমালা অনুসারে যারা ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন, আগে তাদের ভ্যাকসিন দেয়া হবে। সেখানে বয়স্কদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে।’

তবে যাদের বয়স ১৮ বছরের নীচে তাদের ভ্যাকসিন দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালেয়র দায়িত্বে থাকা জাহিদ মালেক।

দেশের সব সাংবাদিকদের যথাসময়ে ভ্যাকসিন দেয়া হবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ভ্যাকসিন যথাযথভাবে দেয়ার জন্য আইসিটি বিভাগ একটি অ্যাপ তৈরি করেছে। জনগণকে সেখানে নিবন্ধনের মাধ্যমে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেয়া হবে।

জাহিদ মালেক বলেন, ‘আমরা অন্যদের (অন্যান্য দেশের) তুলনায় স্বল্প সময়ের মধ্যে ভ্যাকসিন দেয়ার জন্য গত নভেম্বরে (ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউটের সাথে) একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছিলাম।’

জনগণকে যথাযথভাবে ভ্যাকসিন দেয়ার জন্য ইতমধ্যে ৪ হাজার ২০০ জনকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘কারা আগে ভ্যাকসিন পাবে, এ জন্য আমরা একটি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন জাতীয় কমিটি তৈরি করেছিলাম। প্রত্যেক সাংবাদিক ঝুঁকি নিয়ে কাজ করার কারণে তারাও আগে ভ্যাকসিন পাবেন।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, দেশে করোনাভাইরাস আসার প্রথম থেকেই প্রাণঘাতী ভাইরাসটিকে প্রতিরোধে সরকার নানা উদ্যোগ নিয়েছিল। ফলে মহামারীর দ্বিতীয় ঢেউ চলাকালে দেশে মৃত্যু হ্রাস পেয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

ডিআরইউ সভাপতি মোরসালিন নোমানীর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমানের সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে ডিআরইউ এর অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সূত্র : ইউএনবি



আরো সংবাদ