২৭ জানুয়ারি ২০২১
`

ফুটবল ছেড়ে তারা এখন রাগবিতে

ফুটবল ছেড়ে তারা এখন রাগবিতে - ছবি : সংগৃহীত

বাংলাদেশ আনসারের খেলোয়াড়দের নির্দিষ্ট ডিসিপ্লিনের বাইরে অন্য ডিসিপ্লিনে খেলাটা নতুন কিছু নয়। দলের স্বার্থেই তারা একই সাথে সাঁতার, ফুটবল বা অন্য ডিসিপ্লিনের খেলোয়াড়। তবে রাগবিতে খেলোয়াড় হিসেবে অং ম্রা চিং মারমা এবং মুনমুন আক্তারকে দেখে বিস্মিতই হতে হলো। অবশ্য এই বিস্ময়ের ঘোর কাটল তাদের কথা শুনেই।

অনেক দিন ধরেই বন্ধ জাতীয় ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ। এবার মহিলা লিগ চালু হলেও প্রথমে তাদের ডাকেনি কেউ। ফিরতি দলবদলের সময় কুমিল্লা ইউনাইটেড থেকে তাদের ডাকা হলেও ফেডারেশন কাপ রাগবির জন্য আনসার ছাড়েনি তাদের। খেলেছেন এবারের ফেডারেশন কাপ রাগবির মহিলা বিভাগে। চ্যাম্পিয়নও হয়েছে তাদের দল। এই প্রথম তাদের রাগবিতে আসা।

অবশ্য ফুটবল একেবারে ছাড়ছেন না জাতীয় দলের এই দুই সাবেক ফুটবলার। ‘আবার যখন জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপ হবে তখন আনসার ফের দল গড়বে। আমরাও পুনরায় বুট পরে নামবো ফুটবল মাঠে’, জানান এই দুই খেলোয়াড়।

স্ট্রাইকার পজিশনেই খেলতেন অং ম্রা চিং ও মুনমুন। ২০১১ সালের মহিলা লিগে অং ম্রা চিং ২৯ গোল করে হয়েছিলেন সর্বোচ্চ গোলদাতা। মুনমুন করেছিলেন ২৫ গোল। জাতীয় দলের বর্তমান অধিনায়ক সাবিনা করেছিলেন ২৭ গোল। অং ম্রা চিং সবশেষ জাতীয় দলে খেলেন ২০১৪ সালের ইসলামাবাদ সাফ ফুটবলে।

মুনমুনের শেষবারের মতো লাল সবুজ জার্সি গায়ে তোলা ২০১৬ সালের এস এ গেমসে। পারফরম্যান্সের জন্যই এদের বাদ পড়া। জানান বাংলাদেশ দলের কোচ গোলাম রাব্বানী ছোটন। যদিও অং ম্রার অভিযোগ, প্রতিবাদী ছিলেন বলেই বাদ পড়া।

২০১০ সাফ ফুটবলে ভুটানের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করা অং ম্রার জাতীয় দলে অভিষেক ২০১৫ সালে। মুনমুন বাংলাদেশ দলে ডাক পান ২০১২ সালে।



আরো সংবাদ