০৫ জুন ২০২০

মসজিদে বিধিনিষেধ সরকার কতোটা বাস্তবায়ন করতে পারবে?

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির শঙ্কার মধ্যে বাংলাদেশ সরকার শেষ পযর্ন্ত মসজিদে নামাজ পড়ার উপর বিধিনিষেধ আরোপ করেছে। মুসল্লিদের ঘরে নামাজ পড়ার নির্দেশ দিয়ে সরকারের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, মসজিদে শুধু ইমাম, মুয়াজ্জিন এবং খাদেমরা নামাজ পড়তে পারবেন।

তাবলীগ জামাতের কার্যক্রমও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। অন্য ধর্মাবলম্বীদেরও তাদের উপাসনালয়ে জড়ো না হয়ে নিজ নিজ বাড়িতে প্রার্থনা বা উপাসনা করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এসব নির্দেশ না মানলে সরকার কঠোর ব্যবস্থার নেয়ারও হুশিয়ারি দিয়েছে।

বিশ্লেষকরা বলেছেন, বিলম্বে হলেও এখন দ্রুত এই নির্দেশ কার্যকর বা বাস্তবায়ন করা প্রয়োজন।

সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী এখন থেকে মসজিদে কোন জামাতে পাঁচ জনের বেশি অংশ নিতে পারবেন না। আর শুক্রবারের জুমার নামাজে সর্বোচ্চ ১০ জন অংশ নিতে পারবেন। এই অংশগ্রহণকারীরা হবেন মসজিদের ইমাম, মুয়াজ্জিন এবং খাদেম। মসজিদের বাইরে থেকে কোন মুসল্লিও জামাতে যোগ দিতে পারবেন না। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকানোর কথা তুলে ধরে ধর্ম মন্ত্রণালয় এসব নির্দেশ বিজ্ঞপ্তি হিসাবে জারি করেছে।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো: আব্দুল্লাহ বলছিলেন, ইমাম, মুয়াজ্জিন এবং খাদেমদের মাধ্যমে জামাত করে মসজিদ চালু রাখা হচ্ছে। কিন্তু নির্দেশ অমান্য করে সাধারণ মুসল্লি কেউ মসজিদে গেলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি উল্লেখ করেছেন।

"মসজিদের ইমাম, খাদেমরা শুধু জামাতে নামাজ পড়বেন। কিন্তু বাইরে থেকে কেউ মসজিদে গিয়ে নামাজ পড়তে পারবেন না। সকলকে ঘরে বসেই নামাজ পড়তে হবে। এই নির্দেশ কঠোরভাবে বাস্তবায়ন করা হবে। কেউ না মানলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।"

ওয়াজ মাহফিলসহ সব ধর্মীয় জমায়েত আগেই নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। এর মাঝেও বাংলাদেশে তাবলীগ জামাতের দুই অংশই দেশের বিভিন্ন এলাকায় মসজিদে তাদের জমায়েত অব্যাহত রেখেছিল।

ঢাকার কাছে মানিকগঞ্জে তাবলীগের জমায়েতে অংশ নেয়া একজনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। ঢাকার কাকরাইল মসজিদে তাবলীগের জন্য বিভিন্ন দেশ থেকে আসা দু'শো জনের মতো আটকা পড়েছেন। অবশ্য সোমবার তাবলীগের দুই অংশ সারাদেশে সাময়িক সময়ের জন্য তাদের কার্যক্রম বন্ধ রাখার কথা জানিয়েছে। মসজিদে জামাতে নামাজের ওপর বিধিনিষেধ আরোপের বিরুদ্ধে ইমাম ও আলেমদের অনেকে বক্তব্য দিয়ে আসছিলেন।

ঢাকার চকবাজার মসজিদের ইমাম এবং 'জাতীয় ইমাম সমাজের' সাধারণ সম্পাদক মিনহাজ উদ্দিন বলছিলেন, "শুরু থেকেই আমাদের কথা ছিল, মসজিদে জামাত বন্ধ না করা। এখন যেহেতু ইমাম, মুয়াজ্জিন আর খাদেমদের দিয়ে নামাজ হবে তার অর্থ হচ্ছে মসজিদ চালু থাকবে। একারণে মসজিদে মুসল্লি না আসার সিদ্ধান্তও বাস্তবায়ন সহজ হবে।"

এসব সিদ্ধান্ত অনেক দেরিতে নেয়া হলো বলে বিশ্লেষকদের অনেকে মনে করেন।

তবে কর্মকর্তারা বলেছেন, ধর্ম মন্ত্রণালয় এবং ইসলামিক ফাউন্ডেশন গত এক মাসের বেশি সময় ধরে ইমাম এবং আলেমসহ ধর্মীয় নেতাদের সাথে আলোচনা করে আসছিল। কিন্তু ভিন্ন ভিন্ন মত থাকায় এতদিন সিদ্ধান্ত নেয়া সম্ভব হয়নি।

প্রতিমন্ত্রী শেখ মো: আব্দুল্লাহ বলছিলেন, শেষ পর্যন্ত আলোচনায় সকলকে তারা এক জায়গায় আনতে পেরেছেন।

"এটা একটা বড় সিদ্ধান্ত। এই সিদ্ধান্ত যে কোন একজনের পক্ষে নেয়া সম্ভব নয়। আগে কিন্তু আমরা সকল আলেমদের ঐক্যবদ্ধ করতে সফল হই নাই। আমরা আলেমদের সাথে আলোচনা করেছি। আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে এই সিদ্ধান্ত নিতে চেয়েছিলাম। এখন সকলে বুঝতে পেরেছেন যে, আমরা সময় নষ্ট করেছি। এখন আর সময় নাই।"

কওমী মাদ্রাসা ভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম সরকারের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে। সংগঠনের প্রধান আহমদ শফি এক বিবৃতিতে বলেছেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে সরকার পাঁচজন দশজন করে মসজিদে নামাজ পড়ার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেটা শরিয়তসম্মত।

লেখক এবং জাতীয় ইমাম সমিতির যুগ্ম মহাসচিব ওসমান গণি মনে করেন, বিলম্ব হলেও এখন এসব সিদ্ধান্ত দ্রুত বাস্তবায়ন প্রয়োজন।

"এখন প্রয়োজনীয় এই সিদ্ধান্ত দ্রুত বাস্তবায়ন করতে হবে। এই সিদ্ধান্ত ধর্মীয় দর্শনের বাইরে নয়। এখানে ধর্মকে উপেক্ষা বা অবজ্ঞা করা হয়নি। এই বিষয়টি সারাদেশে আলেমদের মাধ্যমে মসজিদের ইমামদের দ্রুত বোঝাতে হবে।"

এখন প্রশ্ন উঠতে পারে বাংলাদেশের মতো একটি মুসলিম-প্রধান দেশে, যেখানে লাখ লাখ মসজিদ, সেখানে এধরনের একটি সিদ্ধান্ত কতোটা বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে?

ধর্মপ্রতিমন্ত্রী অবশ্য বলেছেন, সারাদেশে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা, স্থানীয় প্রশাসন ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীগুলো এসব নির্দেশ বাস্তবায়নে মাঠে কাজ করবে।

তিনি জানিয়েছেন, দেশে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের আওতায় ৩০ হাজারের মতো মসজিদ আছে এবং এর বাইরেও অনেক মসজিদ রয়েছে। সব মসজিদের পরিচালনা কমিটিগুলো যেনো নির্দেশ বাস্তবায়নে ভূমিকা রাখে, সেজন্য স্থানীয় প্রশাসন এসব কমিটির সাথে যোগাযোগ করছে। সূত্র : বিবিসি


আরো সংবাদ

ট্রাম্পকে ক্ষমতাচ্যুত করার হুমকি (১১১০০)পঙ্গপাল ঠেকাতে কৃষকের অভিনব আবিষ্কার, মুহু্র্তেই ভাইরাল (৯১৫৮)বৃষ্টিতে ভিজলো আর রোদে শুকালো সালেহ আহম্মদের লাশ (৮৫৫৯)ডোনাল্ড ট্রাম্পকে মুখ বন্ধ রাখতে বললেন পুলিশ প্রধান (৮২৩৮)পরিস্থিতি আমাদের জন্য ভয়াবহ হয়ে উঠেছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী (৭৮১৩)আতসবাজি বাঁধা আনারস মুখে ফেটে নদীতে দাঁড়িয়েই মৃত্যু গর্ভবতী হস্তিনীর (৭৫১০)‘প্লাজমা থেরাপি’ নিয়ে যা হচ্ছে বাংলাদেশে (৬৪৭২)হঠাৎ রাশিয়ায় রক্তচোষা পোকার আতঙ্ক!‌ (৬৪৬২)৪ দিনেই সুস্থ অধিকাংশ রোগী, রাশিয়ার এই ওষুধ নজর গোটা বিশ্বের (৬১২৫)বাংলাদেশে ২৪ ঘণ্টায় ৩৭ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ২৬৯৫ (৫৩১৩)




justin tv