০২ জুন ২০২০

দুই চিকিৎসকসহ দেশে আরো ৪ করোনা রোগী, মোট ৪৮

আরো দুই চিকিৎসকসহ আরো দুইজন গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। ২৪ ঘণ্টায় কোনো মৃত্যু নেই। সব মিলিয়ে বাংলাদেশে ৪৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। আক্রান্তদের বয়স ২০ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে। চিকিৎসক দুইজন করোনায় আক্রান্ত রোগী চিকিৎসার সাথে জড়িত ছিলেন। আক্রান্ত চারজনের সকলেই বেশ সুস্থ আছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ১০৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

শুক্রবার দুপুরে অনলাইন প্রেস ব্রিফিংয়ে রোগতত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ড. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এ কথা বলেন। এ সময আরো উপস্থিত ছিলেন আইইডিসিআর’র মূখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. এ এস এম আলমগীর।

প্রশ্নের জবাবে মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, আমাদের সীমিত পরিসরে কিছু কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হচ্ছে (একজন থেকে আরেকজনের মধ্যে সংক্রমণ)। আমরা চেষ্টা করছি যারা এভাবে সংক্রমিত হচ্ছেন তারা কীভাবে এবং কাদের থেকে সংক্রমিত হয়েছেন তা খুঁজে বের করতে। এছাড়া আক্রান্তের সংস্পর্শে যারা যারা এসেছেন বলে মনে হয় তাদের মধ্যে লক্ষণ ও উপসর্গ দেখে পরীক্ষার আওতায় আনছি।

চিকিৎসকদের সম্বন্ধে তিনি বলেন, চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের কেউ কেউ কমিউনিটি থেকে সংক্রমিত হয়েছেন। আমরা এমন চিকিৎসক অথবা স্বাস্থ্যকর্মীদের সকলের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করে থাকি। যারা ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়িতে গেছেন তাদের সামাজিক বিচ্ছিন্নতা জরুরী বলে মন্তব্য করে অধ্যাপক ফোরা বলেন, তাদের অবশ্যই সামাজিকভাবে বিচ্ছিন্ন থাকতে হবে সকলের স্বার্থে। তাদের চিহ্ণিত করে আইসোলেশনে রাখা জরুরী। তাদের মধ্যে যাদের উপসর্গ রয়েছে তারা সময় ক্ষেপন না করে দ্রুত আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

আগের দিনের মতো অধ্যাপক সেব্রিনা বলেন, ইতোমধ্যে আইইডিসিআর ছাড়া ঢাকার শিশু হাসপাতাল, মহাখালীর আইপিএইচ এবং চট্টগ্রামের ট্রপিক্যাল মেডিসিন ইনস্টিটিউটে পরীক্ষার কাজ শুরু হয়েছে। ফলে এখন আরো বেশি করে পরীক্ষার ব্যবস্থা হলো। আইইডিসিআর-এ এ পর্যন্ত মোট এক হাজার ২৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

এদিকে বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে শুক্রবার পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৪ হাজার ৭৩ জনে। বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের সর্বশেষ পরিসংখ্যান জানার ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, নভেল করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন বিশ্বের ৫ লাখ ৩১ হাজার ৮০৬ জন। এদের মধ্যে বর্তমানে ৩ লাখ ৮৩ হাজার ৭৯১ জন চিকিৎসাধীন এবং ১৯ হাজার ৩৫৭ জন আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছেন।

এছাড়া করোনাভাইরাস আক্রান্ত ১ লাখ ৪৮ হাজার ১৫ জনের মধ্যে ১ লাখ ২৩ হাজার ৯৪২ জন (৮৪ শতাংশ) সুস্থ হয়ে উঠেছেন এবং ২৪ হাজার ৭৩ জন (১৬ শতাংশ) রোগী মারা গেছেন। বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৯৯টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস।


আরো সংবাদ