২৯ মে ২০২৩, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ০৮ জিলকদ ১৪৪৪
`

বড় ছেলে খালেদকে ক্রাউন প্রিন্স করলেন আরব আমিরাতের প্রেসিডেন্ট

আবুধাবির ক্রাউন প্রিন্স শেখ খালেদ। - ছবি : সংগৃহীত

সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রেসিডেন্ট শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল-নাহিয়ান তার বড় ছেলে শেখ খালেদ বিন মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল-নাহিয়ানকে রাজধানী আবুধাবির ক্রাউন প্রিন্সের হিসেবে ঘোষণা করেছেন।

বুধবার তিনি এ ঘোষণা করেন।

এছাড়াও শেখ মোহাম্মদ দুবাই শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল-মাকতুমের পাশাপাশি তার ভাই শেখ মনসুর বিন জায়েদ আল-নাহিয়ানকে সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভাইস প্রেসিডেন্ট নিযুক্ত করেছেন। তিনি তার অন্য ভাই শেখ তাহনউন বিন জায়েদ আল-নাহিয়ান ও শেখ হাজ্জা বিন জায়েদ আল-নাহিয়ানকে আবুধাবির উপ-শাসক হিসেবে ঘোষণা করেছেন।

৪১ বছর বয়সী নতুন প্রিন্স শেখ খালিদ ইতোমধ্যেই আবুধাবি এক্সিকিউটিভ কাউন্সিলের সদস্য এবং আবুধাবি এক্সিকিউটিভ অফিসের চেয়ারম্যান। তিনি আমিরাতের সাম্প্রতিক বড় উন্নয়ন প্রকল্পগুলো দেখা শোনা করছেন।

শেখ খালেদ ইউএই জিনোমিক্স কাউন্সিল, আবুধাবি ন্যাশনাল অয়েল কোম্পানির এক্সিকিউটিভ কমিটি ও অ্যাডভান্সড টেকনোলজি রিসার্চ কাউন্সিলসহ বেশ কয়েকটি বোর্ডের চেয়ারম্যান। তিনি বিবাহিত, তার এক ছেলে ও দুই মেয়ে রয়েছে।

আবুধাবির দুটি বৃহত্তম সভরেন ওয়েলথ ফান্ডের শীর্ষ পদে পরিবর্তনের প্রেক্ষাপটে নতুন নিয়োগ হলো। সংযুক্ত আরব আমিরাতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা এবং একটি বৃহৎ ব্যবসায়িক সাম্রাজ্য নিয়ন্ত্রণকারী শেখ তাহনুনকে আবুধাবি বিনিয়োগ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মনোনীত করা হয়েছিল।

শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ ম্যানচেস্টার সিটি ফুটবল ক্লাবের মালিক এবং আবুধাবির দ্বিতীয় বৃহত্তম ওয়েলথ ফান্ড মুবাদালার চেয়ারম্যান শেখ মনসুরের স্থালাভিষিক্ত করেছেন নিজেকে।

শেখ জায়েদ বিন সুলতান আল-নাহিয়ান সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রথম রাষ্ট্রপতি এবং ১৯৭১ সালে দেশ সৃষ্টিতে তার অবদান রয়েছে। তখন থেকে ২০০৪ সালে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি আমিরাত শাসন করেছিলেন। তিনি তার বড় ছেলে শেখ খলিফাকে তার উত্তরাধিকারী নিযুক্ত করেছিলেন এবং তার মৃত্যুর পরে শেখ খলিফা প্রেসিডেন্ট হয়েছিলেন। ২০২২ সালের মে মাসে শেখ খলিফার মৃত্যু হলে দায়িত্ব গ্রহণ করেন শেখ মোহাম্মদ।

সূত্র : আরব নিউজ


আরো সংবাদ


premium cement