০২ অক্টোবর ২০২২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯, ৫ রবিউল আওয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

১৫ বছর প্রতীক্ষার পর সন্তান লাভ, ইসরাইলি হামলায় তাকে হারিয়ে মায়ের আহাজারি

ইসরাইলি হামলায় একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে মায়ের আহাজারি - ছবি : সংগৃহীত

শহীদ ছেলের জামা-কাপড় বুকে-মুখে লাগিয়ে আহাজারি করছেন এক ফিলিস্তিনি মা। ইসরাইলি হামলায় ১৯ বছর বয়সী একমাত্র সন্তানকে হারিয়েছেন তিনি।

দীর্ঘ প্রতীক্ষা শেষে বিয়ের ১৫ বছর পর এই ফিলিস্তিনি মায়ের কোলজুড়ে আসে ফুটফুটে ছেলে সন্তান। নাম রাখেন খলিল আবু হুমাদাহ। সেই চোখের মণি এখন আর পৃথিবীতে নেই। ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় ইসরাইলের সাম্প্রতিক ধারাবাহিক হামলার তৃতীয় দিনে নিহত হন খলিল। এই হামলায় এই পর্যন্ত ৩১ জন নিহত হয়েছেন।

সোমবার আলজাজিরা জানায়, উত্তর গাজা উপত্যকার জাবালিয়া শরণার্থী শিবিরে কোনো পূর্ব সতর্কতা ছাড়াই ইসরাইল হামলা চালায়। সেখানেই শহীদ হন খলিল।

সংবাদমাধ্যটির মতে, বিয়ের পর দীর্ঘ ১৫ বছর কোনো সন্তানের মুখ দেখছিলেন না খলিলের মা। পরে গর্ভে ভ্রূণ ইমপ্লান্টেশন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে খলিলকে জন্ম দেন তিনি। তাই একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে এখন বাকরুদ্ধ মা।

স্থানীয়রা জানায়, দু’দিন আগেও খলিলের বাবা প্রতিবেশীদের সাথে ছেলের বিয়ে দেয়ার কথা আলোচনা করেছেন। তখন তিনি তাদের কাছে এই আশাবাদও ব্যক্ত করেছেন যে, শিগগিরই তার ঘর নাতি-নাতনিদের কলকাকলিতে মুখরিত হয়ে উঠবে। কিন্তু দখলদার ইসরাইল তার ওই স্বপ্ন অঙ্কুরেই বিনষ্ট করে দিলো।

আলজাজিরা আরো জানায়, খলিল আবু হুমাদার শোকাহত মায়ের হৃদয়বিদারক আহাজারির একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। ভিডিওতে তাকে শহীদ ছেলের জামা-কাপড় বুকে ও চেহারায় জড়িয়ে কান্নায় ভেঙে পড়তে দেখা যায়। মায়ের এই হৃদয়বিদারক আহাজারি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীদের আবেগপ্রবণ করেছে।

সূত্র : আলজাজিরা


আরো সংবাদ


premium cement