০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯,
`

পরমাণু ইস্যুতে ইরানের ওপর চাপ বাড়াতে ইসরাইলের আহ্বান

পরমাণু ইস্যু-ইরান-ইসরাইল-বিশ্ব সম্প্রদায়
ইসরাইলের পররষ্ট্রমন্ত্রী ইয়ার ল্যাপিড - সংগৃহীত

পরমাণু ইস্যুতে ইরানের ওপর চাপ বাড়াতে এবং তাদের ওপর থেকে অবরোধ না তুলতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ইসরাইল। সোমবার ভিয়েনাতে ইরানের পরমাণু ইস্যুতে আলোচনা শুরু হওয়ার প্রেক্ষিতে এমন মন্তব্য করেন ইসরাইলের পররষ্ট্রমন্ত্রী ইয়ার ল্যাপিড। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুসারে, তিনি আরো বলেছেন যে ইরানের ওপর কড়া নজরদারি করা দরকার। সোমবার এমন সংবাদ প্রকাশ করেছে মিডল ইস্ট মনিটর।

এ ভিয়েনা বৈঠককে ২০১৫ সালে করা ইরানের পরমাণু চুক্তি বাঁচানোর সর্বশেষ প্রচেষ্টা হিসেবে দেখা হচ্ছে। বিশ্বের বিভিন্ন শক্তিশালী দেশের আলোচকরা এ বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছেন। এর আগে ইরানের সাথে ওই পরমাণু চুক্তি সম্পন্ন হওয়ার তিন বছর পর তা বাতিল করে দেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি ইরানের ওপর বিভিন্ন অবরোধও আরোপ করেন। তখন ইরান ওই পরমাণু চুক্তি বাতিল করে। এর ফলে এ পরমাণু চুক্তির সাথে সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিশ্ব শক্তি হতাশ হয়ে যায়।

এ দিকে ইসরাইল হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছে, ভিয়েনা বৈঠকের মাধ্যমে সকল অবরোধ বাতিল করা হলে ইরান তার সুফল পাবে। অথচ তারা পরমাণু বোমা বানানোর প্রচেষ্টা থেকে পিছু হটছে না। তারা ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করেই যাচ্ছে।

ইসরাইলের পররষ্ট্রমন্ত্রী ইয়ার ল্যাপিড বলেছেন, ইরান এ পরমাণু আলোচনায় অংশ নিচ্ছে শুধুমাত্র এ কারণে যে তারা অর্থ-সম্পদ সংগ্রহ করতে চায়। এটা তারা আগে করেছে, ভবিষ্যতেও করবে বলে ইসরাইলি গোয়েন্দা সূত্র জানিয়েছে। ব্রিটেনের সাথে বাণিজ্য, প্রযুক্তি ও প্রতিরক্ষা সহযোগিতা ইস্যু সংক্রান্ত স্মারকলিপিতে স্বাক্ষর দেয়ার পর ল্যাপিড এসব কথা বলেন।

ইসরাইলের পররষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, ইরান যদি পরমাণু বোমা তৈরি করে তাহলে মধ্যপ্রাচ্যের অন্যান্য দেশও এটা অর্জন করতে চাইবে। এর ফলে এ অঞ্চলের সকল দেশ একটি গোপন যুদ্ধে লিপ্ত হবে। বিশ্ব সম্প্রদায়ের উচিৎ ইরানকে পরমাণু বোমা অর্জন করতে না দেয়া। এ কারণে ইরানের ওপর অবরোধ আরোপ করতে হবে এবং কড়া নজরদারি বজায় রাখতে হবে।

সূত্র : মিডল ইস্ট মনিটর


আরো সংবাদ


premium cement