২০ অক্টোবর ২০২১, ৪ কার্তিক ১৪২৮, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরি
`

ইরানি পরমাণু বিজ্ঞানীকে 'রোবট' দিয়ে হত্যা করেছে মোসাদ

বন্দুক হামলায় বিধ্বস্ত ড. মহসিন ফখরিজাদেহের গাড়ি, ইনসেটে ড. মহসিন ফখরিজাদেহ - ছবি : সংগৃহীত

ইরানি পরমাণু বিজ্ঞানী ড. মহসিন ফখরিজাদেহকে দূরনিয়ন্ত্রিত 'রোবটের' মাধ্যমে ইসরাইলি গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদ হত্যা করেছে। শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের দৈনিক নিউ ইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

এর আগে গত বছর ২৭ নভেম্বর তেহরানের নিকট আবসারদ উপশহরে নিজ বাড়ির কাছে অতর্কিত বন্দুক হামলায় নিহত হন ড. ফখরিজাদেহ।

নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, হত্যার আগে 'অন্তত ১৪ বছর' ড. ফখরিজাদেহের ওপর নজরদারি চালানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, হত্যাকাণ্ড পরিচালনায় বেলজিয়ান প্রযুক্তির এফএন মেশিন গান ব্যবহার করা হয়, যা দূরনিয়ন্ত্রিত রোবটের হাতে যুক্ত ছিলো।

নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্সের ক্ষমতাসম্পন্ন এই রোবট স্যাটেলাইটের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা যেতো এবং এর বহন করা অস্ত্র থেকে মিনিটে ছয় শ' রাউন্ড গুলি করা যেতো।

এই রোবটটি একটি পিকআপের ওপর বসানো ছিলো। এর সাথে নজরদারির জন্য বিভিন্ন দিকে ক্যামেরা বসানো ছিলো। ওই ট্রাকে বিস্ফোরক যুক্ত ছিলো, যাতে অপারেশনের পর হত্যাকাণ্ডের আলামত ধ্বংস করা যায়।

পুরো যন্ত্রটির ওজন এক টন ছিলো বলে প্রতিবেদনে জানানো হয়। এটি ছোট ছোট অংশে ভাগ করে ইরানে নিয়ে আসা হয় এবং আবসারদে ড. ফখরিজাদেহর বাড়ির সামনে প্রস্তুত করা হয়।

নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে জানানো হয়, হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত মোসাদ সদস্যরা পুরো অভিযান ইরানের বাইরে একটি কমান্ড সেন্টার থেকে পরিচালনা করে।

ইরানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন অর্গানাইজেশন অব ডিফেন্সিভ ইনোভেশন অ্যান্ড রিসার্চের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করা ড. মহসিন ফখরিজাদেহ ২০০৭ সালে থেকেই মোসাদের হিটলিস্টে (হত্যার তালিকা) ছিলেন বলে নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়। প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, মোসাদ কখনোই তাকে নজরদারির বাইরে যেতে দেয়নি।

এর মধ্যে ২০০৯ সালে ড. ফখরিজাদেহকে হত্যার একটি পরিকল্পনা করা হলেও ইরানের গোয়েন্দা সংস্থা তা জেনে যাওয়ায় শেষ মুহূর্তে মোসাদ তা বাতিল করে।

এদিকে নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইদ খতিবজাদেহ বলেন, ইরানের গোয়েন্দা ও নিরাপত্তা সংস্থা এই বিষয়ে তদারক করছে এবং এই বিষয়ে বিস্তারিত তথ্যের সন্ধান করছে।

তিনি বলেন, গোয়েন্দা ও নিরাপত্তা সংস্থার সহায়তায় ইরান আইনি পথ অনুসরণ করবে, যাতে হত্যাকারীদের শাস্তি নিশ্চিত হয়।

সূত্র : প্রেস টিভি



আরো সংবাদ


স্কটল্যান্ডের বিরুদ্ধে হেরে আখেরে ‘লাভ’ হলো বাংলাদেশের? (৪৫০০৪)আমাকে সম্মান দিয়ে কথা বলুন, বিএনপির উদ্দেশে মুরাদ হাসান (২৬১৯৫)বিয়ের প্রলোভনে পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রীকে ধর্ষণ, আসামি গ্রেফতার (২৩৩১৩)ফুটপাতের যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট খেয়ে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু (১৬৫৫২)কাবার অবমাননায় পোস্ট, রংপুরে কিশোর পরিতোষ গ্রেফতার (১৬৩৭৬)পৃথিবী পাঁচ শক্তির চেয়েও বড় : এরদোগান (১০০১২)অগ্নিসংযোগ নয়, পরিমলের ঘর পুড়েছে কলা পাকানোর আগুনে (৯৮১২)আম্পায়ার দিলেন আউট, হেটমায়ারকে ফিরিয়ে নিলেন বাবর আজম (৯৬৫২)কুমিল্লার ঘটনায় মূল অভিযুক্ত শনাক্ত : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী (৭২৫৩)সমুদ্রসীমায় ভারতীয় সাবমেরিন আটকালো পাকিস্তানি নৌবাহিনী (৫৯২৮)