১৩ জুন ২০২১
`

আসাদকে রক্ষায় রাশিয়ার ইসরাইলি ড্রোন প্রযুক্তি ব্যবহার

ইসরাইলি সার্চার-২ ড্রোন - ছবি : হারেৎজ

রাশিয়া গত এক দশক ইসরাইলের ড্রোন প্রযুক্তি ব্যবহার করে আসছে। ইসরাইলি প্রযুক্তির সহায়তায় তারা সিরিয়ায় বাশার আল আসাদের সরকারকে ক্ষমতায় টিকিয়ে রাখতে সাহায্য করেছে। ইসরাইলি সংবাদমাধ্যম হারেৎজে শুক্রবার প্রকাশিত এক প্রবন্ধে এমনটিই দাবি করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সাংবাদিক প্যাট্রিক হিলসম্যানের লেখা এই প্রবন্ধে বলা হয়েছে, রাশিয়া ২০০৮ সালে জর্জিয়ার সাথে যুদ্ধে তাদের দুর্বলতা আবিষ্কারের পর ক্রমবর্ধমান ড্রোন নির্মাণ শিল্পে তাদের অবস্থান মজবুত করার সিদ্ধান্ত নেয়। যুদ্ধে জর্জিয়ার হাতে থাকা ইসরাইলি ড্রোনের কাছে রাশিয়া তার বিপুল আকাশযান হারায়।

২০১০ সালে ইসরাইলের সাথে সামরিক চুক্তি করার মাধ্যমে ৪০০ মিলিয়ন ডলারের সার্চার-২ ড্রোন কিনে রাশিয়া। এরপর তারা ওই ইসরাইলি প্রযুক্তির ওপর নির্ভর করে তাদের নিজস্ব ফোরপোস্ট ড্রোন তৈরি করে। একইসাথে বিভিন্ন সময় রাশিয়ার বিমানবাহিনী ইসরাইলের সাথে যৌথ প্রশিক্ষণ ও নির্দেশনায় অংশ নেয়, যাতে তারা ইসরাইলি ড্রোন প্রযুক্তি ব্যবহারের ধারণা নিতে পারে।

যদিও বর্তমানে সশস্ত্র, গোলাবারুদবাহী ড্রোনের ধারণা বেড়েছে, কিন্তু এখনো বেশিরভাগ ড্রোনই যুদ্ধক্ষেত্রে নজরদারির কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে। যুদ্ধক্ষেত্র পরিদর্শন ও শত্রুর গতিবিধি লক্ষ্য করতেই মূলত ড্রোন বেশি ব্যবহার করা হয়।

সিরিয়াতে রাশিয়ার সামরিক অবস্থান জোরদারের পর থেকে তাদের হাতে থাকা ফোরপোস্ট ড্রোনকে যুদ্ধক্ষেত্র পরিদর্শনের কাজে লাগানো হচ্ছে। গোয়েন্দাবৃত্তি, নজরদারি ও শত্রুকবলিত এলাকায় পরিদর্শনের মাধ্যমে শত্রুর গতিবিধি লক্ষ্য করতে ড্রোন ব্যবহার করে রাশিয়া।

যুদ্ধ থেকে ড্রোন একেবারেই বিচ্ছিন্ন নয়। যুদ্ধক্ষেত্রের বিভিন্ন তথ্য ও নিখুঁত ভৌগলিক অবস্থানের ডাটা তারা পাইলটচালিত যুদ্ধবিমানের কাছে সরবরাহ করে যাতে বিমান থেকে দক্ষতার সাথে নির্ভুল লক্ষ্যে আঘাত হানা সম্ভব হয়।

হারেৎসের প্রবন্ধে বহু বছরের বিভিন্ন প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে দেখানো হয়েছে, রাশিয়া ইচ্ছে করেই সিরিয়ার বিভিন্ন অঞ্চলে বেসামরিক স্থাপনা ও হাসপাতালগুলোকে লক্ষ্য করে বিমান হামলা করেছে। এ বিষয়ে আরো প্রমাণ হলো, রাশিয়ার সেনাবাহিনী তাদের বিমান হামলার ভিডিও ধারণ করে রেখেছে এবং তা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দিয়েছে যাতে করে তাদের দক্ষতার বিষয়টি প্রত্যক্ষ করা যায়।

সিরিয়ায় রাশিয়ার ব্যবহৃত এই ইসরাইলি প্রযুক্তির সাহায্যেই বাশার আল আসাদের ক্ষমতাকে টিকিয়ে রাখা হয়েছে। যদিও ইসরাইল সিরিয়ার আসাদ বাহিনী ও তাদের মিত্ররাষ্ট্র ইরানের বিভিন্ন অবস্থানে বিমান হামলা করে থাকে, তবুও তাদের প্রযুক্তিই আসাদকে সিরিয়ায় টিকিয়ে রেখেছে।

সূত্র : মিডল ইস্ট মনিটর



আরো সংবাদ


কানাডার সেই মুসলিম পরিবারের জানাজায় মানুষের ঢল ভিয়েনা আলোচনার সব পক্ষ সফল উপসংহারে পৌঁছাতে চায় রামেকে ২৪ ঘন্টায় আরো ১৩ জনের মৃত্যু সোনারগাঁওয়ে বাসের ধাক্কায় বৃদ্ধ নিহত নিলামে ২৩৮ কোটি টাকা দর হেঁকে মহাকাশ যাত্রার টিকিট জয় ‘গোলান মালভূমি মুক্ত করতে সম্পূর্ণ প্রস্তুত’ ‘বাজেট প্রণয়নে এমপিদের অংশ নেয়ার সুযোগ ছিল না’ গণতন্ত্রের মর্যাদার সাথে বেমামান সরকারের কাজকর্ম : ভারতের সমালোচনায় যুক্তরাষ্ট্র এবার ফিলিস্তিনি নারীকে গুলি করে হত্যা করল ইসরাইলি সেনারা পাকিস্তান লিগের ম্যাচে মাথায় আঘাত পেয়ে হাসপাতালে ফ্যাফ দু’প্লেসি প্রথম সিঙ্গলস গ্র্যান্ডস্লাম জিতলেন ডাবলসের স্পেশালিস্ট ক্রিচিকোভা

সকল