২০ আগস্ট ২০২২
`

চি ঠি প ত্র

-

বাংলাদেশের মহামান্য প্রধান বিচারপতি সমীপে
ধর্মাবতার, আমি ১৯৯৭ সালের ৩০ ডিসেম্বর ঝালকাঠি মধ্য কলেজ রোডের উত্তর-পশ্চিম পাশে ১ লাখ ২০ হাজার টাকায় ০৭ শতাংশ নিষ্কণ্টক জমি ক্রয় করি। জরিপ তফসিল খতিয়ান ৪৬০, দাগ নং ১১০৩, মৌজা নং ১৪০ পশ্চিম চাঁদকাঠি।
আমার জমির দক্ষিণ দিকের প্রতিবেশী আ: ছাত্তার হাওলাদার দুষ্ট ও ধড়িবাজ লোক। সে গত ২ ডিসেম্বর ’২১ দিবাগত গভীর রাতে আমার জমির একাংশ দখল করে পাঁচিল তুলে দেয়। সে চাঁদাবাজ ও মাস্তান ভাড়া করে ও জায়গামতো অর্থ দিয়ে নিয়ন্ত্রণ হাতে নেয়। আমার অনুপস্থিতিতে দিশেহারা আমার পুত্র ও কনিষ্ঠ ভ্রাতা শাসনব্যবস্থার মূল ভিত, থানার শরণাপন্ন হয়। থানা কর্তৃপক্ষ জিডি রেকর্ড না করে নিষ্পত্তির প্রয়াসে সরেজমিন পরিদর্শন, সার্ভেয়ার দ্বারা মাপজোখ ও দস্তাবেজ নিরীক্ষান্তে, গভীর রাতের অন্ধকারে অপরাধমূলক তোলা দেয়াল ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত দেয়। মেনে নিয়ে আ: ছাত্তার ৬ ডিসেম্বর ’২১ দেয়াল অপসারণ করে। ব্যাপারটি মিটে যায়।
শঠ, ধূর্ত ও ফন্দিবাজ আ: ছাত্তার ১৪ ডিসেম্বর ঝালকাঠি জ্যেষ্ঠ সহকারী জজ আদালতে আমার বিরুদ্ধে ২টি সিভিল মামলা করে। একটির নম্বর ৪৮৭/২০২১। দুর্বৃত্তপনার কৌশল হিসেবে সে আইন আদালত ব্যবহার করছে। অর্থের দাপটে সে উকিল কমিশনে কিনে নিয়েছে। আমাদের ব্যবস্থায় সিভিল মামলা জটিল, সুদীর্ঘসূত্র, ব্যয়বহুল ও হয়রান-হেনস্তা করার মোক্ষম অস্ত্র। আমি ও স্ত্রী দু’জনই বৃদ্ধ, অসুস্থ; প্রায় অচল ও অনটনগ্রস্ত। মোকদ্দমা চালানোর মতো অর্থ ও সক্ষমতা আমার নেই। ঠগ ও প্রতারক ছাত্তারের থাবা থেকে জমি রক্ষা ও ফেরেববাজের নিপীড়ন ও ভীতি থেকে নিস্তার পাওয়ার জন্য পুণ্যাত্মার দয়ার্দ্র সমাধান প্রার্থনা করি।

মোহম্মদ দেলোয়ার হোসেন
৩ পূর্ণ রোনালসে রোড, ঝালকাঠি পৌরসভা, ঝালকাঠি।


আরো সংবাদ


premium cement