২৫ মে ২০২২
`

কথার পিঠে কথা

-

আমাদের দেশের নাম ‘গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ’। নিষ্কলুষ গণতন্ত্রের মাপকাঠি হলো নিরঙ্কুশ নিরপেক্ষ নির্বাচন। প্রায় এক যুগ থেকে দেশের সাধারণ মানুষ গণতন্ত্র রক্ষার্থে সুষ্ঠু নির্বাচন দাবি করে আসছিল। কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকে দাবি করা হতো বা হচ্ছে যে, বাংলাদেশের গণতন্ত্র ও নির্বাচন পৃথিবীর বুকে এক অনুসরণ-অনুকরণীয় মডেল। তা হতে পারে হয়তো এক অর্থে। আমেরিকাকে পর্যন্ত বাংলাদেশের কাছে নির্বাচনব্যবস্থা অনুসরণের আহ্বান জানানো হয়েছে। কিন্তু হঠাৎ করে জাসদ নেতা হাসানুল হক ইনু বিএনপির উদ্দেশ্য বলে ফেললেন যে, গণতন্ত্র ও নির্বাচন পেতে হলে কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে। যেসব শর্ত অনেকেই পত্রিকা পড়েন বা পত্রিকায় দেখেছেন হয়তো।
বিএনপি সেসব শর্ত মেনে অগ্রসর হবে কি না, তা তাদের ব্যাপার। কিন্তু ইনু সাহেবের মতো গুরুত্বপূর্ণ ও দায়িত্বশীল মানুষের মুখে এতদিনে একটা সত্য কথা পাওয়া গেল যে, দেশে গণতন্ত্র এবং নির্বাচন দু’টিই অনুপস্থিত। আর সেটি পেতে গেলে বিএনপিকে শর্ত মেনে আসতে হবে। একই পত্রিকায় আবার সড়ক যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাহেব আগাম ঘোষণা জারি করে রাখলেন, ‘আগামী নির্বাচনেও আওয়ামী লীগ বিজয়ী হবে।’ তাতো হওয়ারই কথা।
ইনু সাহেবের উক্তি মতে, গণতন্ত্র ও নির্বাচন যেহেতু দু’টিই নির্বাসনে; কাজেই ঘোষণা দিলেই পাস।’ এভাবে কেয়ামত পর্যন্ত বিজয় কি আর খুঁজে বেড়াতে হবে? একই পত্রিকায় বিএনপির মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেনÑ ‘বিএনপির জনসমর্থনে সরকারের হৃদকম্পন শুরু হয়েছে।’ সে ক্ষেত্রে এক দিকে সরকারের দাবি-তাদের জনসমর্থন আকাশচুম্বী। অপর দিকে বিরোধী দল বিএনপির দাবি, তাদের জনসমর্থনে সরকারের হৃদকম্পন। দেশবাসী মনে করে, এ দড়ি টানাটানির জয়-পরাজয়, যে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের মাধ্যমে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসেছিল তা পুনর্বহাল করে সত্যিকারের জয়-পরাজয় নির্ধারণ করা হলে সুরাহা হবে।
কাজী মো: গোলজার হোসেন
ইসলামপুর, পায়রাবন্দ, মিঠাপুকুর, রংপুর।


আরো সংবাদ


premium cement