৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৫ অগ্রহায়ন ১৪২৮, ২৪ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি
`

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা চালাবেন না যুবলীগ নেতা

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা চালাবেন না যুবলীগ নেতা - ছবি : সংগৃহীত

চট্টগ্রামে একটি প্রকাশনার প্রবন্ধে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে কটূক্তির অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা চালাবেন না সেই যুবলীগ নেতা। রোববার চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ রেজার আদালতে লিখিত আবেদন করে মামলা না করার আবেদন করেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক নাজিম উদ্দিন।

নাজিম উদ্দিন বলেন, মামলা নেয়ার আবেদনে তথ্যগত ভুল রয়েছে। তাই মামলাটি না নেয়ার জন্য আদালতে আবেদন করা হয়। পরে মামলা করবেন কি না প্রশ্নের জবাবে কোনো উত্তর দেননি তিনি।

গত মঙ্গলবার ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা নেয়ার আবেদন করেছিলেন নাজিম উদ্দিন। বাকি দুজন হলেন বাংলা একাডেমির পুরস্কারপ্রাপ্ত সাহিত্যিক রাশেদ রউফ ও লেখক নেছার আহমেদ। রোববার আদালত আদেশের জন্য দিন রেখেছিলেন।

বাদীর আইনজীবী মজিবুর রহমান বলেন, আদালত আদেশ দেয়ার আগে বাদী একটি লিখিত আবেদন করেন। সেখানে বলা হয়, মামলার আরজিতে তথ্যগত কিছু ভুল আছে। আপাতত বাদী মামলা চালাতে চান না। পরে আদালত বাদীর আবেদন মঞ্জুর করেন।

মামলার আরজিতে বলা হয়, চট্টগ্রাম একাডেমি থেকে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ জাতির জনকের জন্মশতবার্ষিকীতে ‘জাতির পিতা’ নামে একটি পুস্তক প্রকাশিত হয়। এতে ‘শেখ মুজিবের গোপন শত্রু’ নামে প্রবন্ধে বঙ্গবন্ধুর প্রতি অবমাননার অভিযোগে মামলাটি করা হয়। প্রবন্ধটির লেখক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী। তাকে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের তালিকায় তিন নম্বর, নেছার আহমদ ও রাশেদ রউফকে যথাক্রমে ১ ও ২ নম্বরে রাখা হয়েছে।

চট্টগ্রামভিত্তিক লেখক–সাহিত্যিকদের সংগঠন চট্টগ্রাম একাডেমির প্রকাশনায় অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর একটি লেখা প্রকাশিত হয়েছে। ওই লেখায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে কটূক্তি করা হয়েছে অভিযোগ করে মঙ্গবার চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলার আবেদন করেন নাজিম উদ্দিন।

এদিকে বাদী মামলার নেয়ার আবেদনের পর বাম সংগঠনসহ বিভিন্ন সংগঠন তীব্র নিন্দা জানায়। তারা অবিলম্বে মামলাটি প্রত্যাহারের দাবি জানায়।



আরো সংবাদ