০৭ মার্চ ২০২১
`

সাঈদ খোকনের এক মামলা প্রত্যাহার, অপরটি খারিজ

সাঈদ খোকনের এক মামলা প্রত্যাহার, অপরটি খারিজ - ছবি - সংগৃহীত

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসকে নিয়ে মানহানিকর বক্তব্য দেয়ার অভিযোগে সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনের বিরুদ্ধে এক মামলা প্রত্যাহার ও আরেক মামলা খারিজের আদেশ দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট বাকী বিল্লাহ এ আদেশ দেন।

মামলাগুলোর মধ্যে একটি করেছেন অ্যাডভোকেট মো. সারোয়ার আলম। তার মামলাটি প্রত্যাহারের আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত। অপর মামলাটি করেছেন অ্যাডভোকেট কাজী আনিসুর রহমানের। এটি খারিজ করার আদেশ দেয়া হয়েছে।

গত ১২ জানুয়ারি সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনের বিরুদ্ধে করা মানহানির দুই মামলার আদেশের জন্য ১৯ জানুয়ারি দিন ধার্য করেন আদালত। ডিএসসিসির বর্তমান মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসকে নিয়ে মানহানিকর বক্তব্য দেয়ার অভিযোগে সাঈদ খোকনের বিরুদ্ধে এ মামলা দুটি করা হয়।

গত ১১ জানুয়ারি ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট রাজেশ চৌধুরীর আদালতে মামলা দুটির একটি করেন কাজী আনিসুর রহমান ও অপরটি করেন অ্যাডভোকেট মো. সারোয়ার আলম।

সম্প্রতি গুলিস্তানের ফুলবাড়িয়া সুপার মার্কেট-২ এর নকশাবহির্ভূত দোকান উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে ডিএসসিসির সাবেক ও বর্তমান মেয়রের মধ্যে বিরোধ শুরু হয়। উচ্ছেদ অভিযানের প্রেক্ষিতে এক ‘ভুক্তভোগী’ সাঈদ খোকনের বিরুদ্ধে প্রায় ৩৫ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মামলা করেন। এতেই খোকন-তাপস বিরোধ তুঙ্গে ওঠে।

৯ জানুয়ারি ফুলবাড়িয়া সুপার মার্কেট-২ এ ডিএসসিসির অভিযানে উচ্ছেদ হওয়া দোকান মালিকদের পুনর্বাসন ও ক্ষতিপূরণের দাবিতে আয়োজিত এক মানববন্ধন করা হয়। সেখানে উপস্থিত থেকে সংস্থাটির সাবেক মেয়র সাঈদ খোকন বলেছিলেন, ‘ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে থাকার যোগ্যতা হারিয়েছেন।’

খোকনের অভিযোগের জবাবে তাপস বলেন, ‘যে স্থানটির কথা বলা হচ্ছে সে জায়গাটি দখল ছিল, এখানে এটি একটি উচ্ছেদ কার্যক্রম। কেউ যদি ব্যক্তিগত আক্রোশের বশবর্তী হয়ে এমন মন্তব্য করেন তাহলে সেটা তার ব্যক্তিগত অভিমত। তবে আমার এই দায়িত্বশীল জায়গায় থেকে কোনো ধরনের মন্তব্য করা সমীচীন হবে না।’

তাপস বলেন, ‘দেশের সকল বেসরকারি ব্যাংকগুলো বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা ও নীতিমালা অনুযায়ী সরকারি সংস্থাগুলো থেকে আমানত সংগ্রহ করে। মধুমতি ব্যাংকও তেমন একটি বেসরকারি ব্যাংক। তারাও বিভিন্ন সরকারি সংস্থা থেকে আমানত সংগ্রহ করে চলেছে। সুতরাং এখানে কোনো আইনবহির্ভূত কিছু নেই। দুর্নীতি তখন হয় যখন কোনো কাজ পাইয়ে দেওয়ার জন্য কমিশন নেয়া হয়। দুর্নীতি তখন হয় যখন উৎকোচ গ্রহণ করা হয়, সরকারি প্রভাব খাটিয়ে অর্থ আদায় করে আত্মসাৎ করা হয়, তখন দুর্নীতি হয়। যে যতই তার ব্যক্তিগত আক্রোশের জায়গা থেকে নিজের মতো করে মন্তব্য করুক না কেন, আমাদের উচ্ছেদ অভিযান চলমান থাকবে।’

সাঈদ-তাপসের মতপার্থক্য সময়ের ব্যবধানে নিরসন হবে
ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস ও সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনের মতপার্থক্য সময়ের ব্যবধানে নিরসন হয়ে যাবে বলে মনে করছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

তিনি বলেন, 'সাঈদ খোকন মেয়র হিসেবে পাঁচ বছর দায়িত্ব পালন করেছেন। আর তাপস নতুন দায়িত্ব নিয়েছেন। ওনাদের দায়িত্ব পালনকালে অথবা বর্তমানে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে কিছুটা মতপার্থক্য থাকতেই পারে। আমার মনে হয় সময়ের ব্যবধানে নিরসন হয়ে যাবে।'



আরো সংবাদ