১৬ জানুয়ারি ২০২১
`

কারাগারে বিয়ের পর জামিন পেলেন যুবক


কারাগারে বিয়ে করা ফেনীর জহিরুল ইসলাম জিয়াকে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। সোমবার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আসামিপক্ষে ছিলেন আইনজীবী ফারুক আলমগীর চৌধুরী। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি এটর্নি জেনারেল সারওয়ার হোসেন বাপ্পী।

গত ১৯ নভেম্বর ফেনীর কারাগারে আসামি জিয়া উদ্দিনের সাথে বিয়ে হয় ওই নারীর। মামলার আসামি জহিরুল ইসলাম ওরফে জিয়া উদ্দিনের বাড়ি ফেনীর সোনাগাজীর ৮নং চরদরবেশ ইউনিয়নের দক্ষিণ পশ্চিম চর দরবেশ গ্রামে।

গত ২৭ মে ভোরে একই ঘরে অবস্থান করা অবস্থায় গ্রামবাসী জিয়া ও অভিযোগকারী মেয়েটিকে আটক করে। স্থানীয়রা দু’জনকে বিয়ে দিতে চাইলে জিয়ার বাবা আবু সুফিয়ান মেম্বার রাজি হননি। সেদিন মেয়েটি সোনাগাজী থানায় ধর্ষণ মামলা করেন। পুলিশ একইদিন গ্রেফতার করে জিয়াকে।

বিচারিক আদালত জামিন আবেদন নাকচ করলে আসামি জিয়া জামিনের জন্য হাইকোর্টে আবেদন করেন। পরে গত ১ নভেম্বর বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের বেঞ্চ আদেশ দেন, জিয়া ওই মেয়েকে বিয়ে করলে জামিনের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে। ওই আদেশের পরই ফেনী জেলা কারাগারে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়।

গত ১৯ নভেম্বর ফেনী জেলা কারাগারে দুই পক্ষের পরিবারের উপস্থিতিতে ইসলামী শরিয়াহ অনুযায়ী তাদের বিয়ে হয়। ছয় লাখ টাকা দেনমোহরে কাজী আবদুর রহিম জিয়া এবং ওই তরুণীর বিয়ে পড়ান।

এরপর তারা জামিনের বিষয়টি আদালতে উত্থাপন করলে আজ হাইকোর্ট জিয়াকে এক বছরের জামিন দেন।

সূত্র : বাসস



আরো সংবাদ