২৭ জানুয়ারি ২০২১
`

১৭ বছর আগে বিসিএসে উত্তীর্ণ সুমনার ভাইভা নেয়ার নির্দেশ

১৭ বছর আগে বিসিএসে উত্তীর্ণ সুমনার ভাইভা নেয়ার নির্দেশ - ছবি - সংগৃহীত

সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত ২৩তম বিসিএস-এর প্রিলিমিনারী ও লিখিত পরীক্ষায় পাশ করার ১৭ বছর পর মৌখিক পরীক্ষা দেবার সুযোগ পেলেন সুমনা সরকার (৪৮ বছর) নামে এক চিকিৎসক। দেশের সর্বোচ্চ আদালত আপিল বিভাগ ওই চিকিৎসকের মৌখিক পরীক্ষা নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন। মৌখিক পরীক্ষায় পাশ করলে তাকে নিয়োগ দিতেও নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগ বৃহস্পতিবার এ নির্দেশ দেন। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সুমনা সরকারের করা এক রিট মামলায় এ আদেশ দেন আপিল বিভাগ। সুমনা সরকারের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মোতাহার হোসেন সাজু ও অ্যাডভোকেট সেলিনা আক্তার চৌধুরী। পিএসসির পক্ষে আইনজীবী ছিলেন শামীম খালেদ আহমেদ।

সুমনা সরকারের গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইল হলেও বর্তমানে তিনি চট্টগ্রামে একটি বেসরকারি চক্ষু হাসপাতালে চক্ষু বিশেষজ্ঞ হিসেবে চাকরি করছেন। তার বাবা মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর ডা. অমল কৃষ্ণ সরকার টাঙ্গাইলের কাদেরিয়া বাহিনীর সদস্য ছিলেন বলেও তিনি জানান।

মামলার বিবরণ তুলে ধরে সুমনা সরকারের আইনজীবী মোতাহার হোসেন সাজু বলেন, ১৯৯৯ সাল থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত ২৩তম বিসিএস (বিশেষ) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। স্বাস্থ্য ক্যাডারের এই পরীক্ষায় মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে অংশ নেন ডা. সুমনা সরকার। প্রিলিমিনারী ও লিখিত পরীক্ষায় পাশ করেন তিনি। কিন্তু সে সময় মুক্তিযোদ্ধার সনদ সংক্রান্ত জটিলতার কারণ দেখিয়ে সুমনাসহ অনেক পরীক্ষার্থীর মৌখিক পরীক্ষা নেওয়া হয়নি। এ ঘটনায় তাদের মধ্যে থেকে ১২ জন ২০০৩ সালে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন। হাইকোর্ট তাদের মৌখিক পরীক্ষা নেওয়ার নির্দেশ দেন। পরে ওই ১২জন মৌখিক পরীক্ষা দিয়ে নিয়োগও পান। এ অবস্থায় ডা. সুমনা সরকার ২০০৯ সালে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে ২০১৫ সালে হাইকোর্ট তার মৌখিক পরীক্ষা নেওয়ার নির্দেশ দেন। কিন্তু হাইকোর্টের রায় স্থগিত চেয়ে আপিল করে পিএসসি। আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালত ২০১৬ সালের ১০ অক্টোবর হাইকোর্টের রায় স্থগিত করে দেন। এ অবস্থায় পিএসসির আবেদনের ওপর আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানি হয়। শুনানি শেষে আপিল বিভাগ ওই আবেদন নিষ্পত্তি করে সুমনা সরকারের মৌখিক পরীক্ষা নিতে পিএসসিকে নির্দেশ দেন।



আরো সংবাদ