২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

দ্বিতীয়বার লিখিত পরীক্ষা সুযোগ চেয়ে বার কাউন্সিলের বিরুদ্ধে আদেশ আগামী সপ্তাহে


আইনজীবী হিসেবে অন্তর্ভুক্তিতে দ্বিতীয় বার লিখিত পরীক্ষা দিতে পারবে না বার কাউন্সিলের এমন সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা রিটের শুনানি শেষ হয়েছে। এ বিষয়ে আগামী সপ্তাহে আদেশ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন হাইকোর্ট। আজ বিচারপতি তারিক-উল-হাকিমের ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালত বলেছেন, ‘‘আমরা এক সপ্তাহের জন্য মূলতবি রাখছি। যদি এর মধ্যে তারা কোন সমাধানে না পৌছাতে পারে তাহলে আগামী সপ্তাহে আমরা আদেশ প্রদান করব।’’

আইনজীবী হিসেবে অন্তর্ভুক্তিতে দ্বিতীয় বার লিখিত পরীক্ষা দিতে পারবে না বার কাউন্সিলের এমন সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে ৩ হাজার ৫৯০ জন শিক্ষানবীশ আইনজীবী গত ২৮ জুলাই হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন।

রিটের পক্ষে আজ শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ শিশির মনির, তার সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট আসাদ উদ্দিন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাস গুপ্ত।

পরে আইনজীবী শিশির মনির বলেন, বিধি সংশোধন করে এমসিকিউ পরীক্ষায় পাশকৃত পরীক্ষার্থীদের দুইবার লিখিত পরীক্ষায় অংশ গ্রহনের সুযোগ প্রদান করা হয়েছে। বার কাউন্সিলের পক্ষ থেকে নোটিশ দিয়ে ২০১৭ সালের এমসিকিউ পরীক্ষায় পাশ করা উক্ত ৩ হাজার ৫৯০ জন পরীক্ষার্থী সরাসরি আগামীতে লিখিত পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করতে পারবে মর্মে বলা হয়। কিন্তু ২০২০ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারীতে এমসিকিউ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়ার পর বার কাউন্সিলের পক্ষ থেকে পুনরায় নোটিশ দিয়ে বলা হয় যে, উল্লেখিত ৩ হাজার ৫৯০ লিখিত পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করতে পারবে না।
বার কাউন্সিলের এই অযৌক্তিক সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে রিট দায়ের করা হয়। ওই রিটটি আজ মাননীয় বিচারপতি তারিক-উল-হাকিমের ভার্চুয়াল বেঞ্চে কার্যতালিকায় ২৭ নং আইটেম ছিল।

শুনানির সময় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এক সপ্তাহের জন্য সময় আবেদন করেন। আবেদনে তিনি বলেন, বাংলাদেশ বার কাউন্সিল আইন সংশোধনের উদ্দেশ্যে আইন মন্ত্রণালয়ের সাথে যোগাযোগ করেছেন। তারা চেষ্টা করছেন আলোচনার মাধ্যমে তাদেরকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার সুযোগ দিতে। আইনজীবী শিশির মনির জানান, এ সময় আমরা আদালতকে বলি, তারা অভ্যন্তরীণভাবে কী যোগাযোগ করছেন বা কত সময় লাগবে এ সম্পর্কে আমরা কিভাবে জানবো? তখন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী জানান, যদি তারা এই সপ্তাহের মধ্যে সমাধান করতে না পারেন, তখন মাননীয় আদালত যে আদেশ দিবেন তাই তারা মেনে নিবেন।

পরে মাননীয় আদালত মৌখিকভাবে বলেন, আমরা এক সপ্তাহের জন্য মূলতবি রাখছি। যদি এর মধ্যে তারা কোন সমাধানে না পৌছাতে পারে তাহলে আগামী সপ্তাহে আমরা আদেশ প্রদান করব।

উল্লেখ্য, ২৬ জুলাই ‘বার কাউন্সিলের লিখিত পরীক্ষা ২৬ সেপ্টেম্বর ধার্য করে একটি বিজ্ঞপ্তি দেয়। নোটিশে বলা হয়, এনরোলমেন্ট এমসিকিউ পরীক্ষায় একবার উত্তীর্ণ হলে পরপর দুইবার লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ প্রদান করে জারিকৃত গেজেটে (২০১৮ সালের ১৯ ডিসেম্বর) প্রকাশিত রুলস সংশোধন করে "ইহা অবিলম্বে কার্যকর হইবে" মর্মে উল্লেখ রয়েছে। এই সংশোধনীটি করা হয় ২০১৮ সালের ১৯ ডিসেম্বর। ফলে উক্ত তারিখের পূর্বে যারা একবার লিখিত পরীক্ষা দিয়ে অনুত্তীর্ণ হয়েছেন তারা দ্বিতীয়বার লিখিত পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পাবেন না। তবে যদি সরকার উক্ত সংশোধনীটির প্রয়োগ ভূতাপেক্ষাভাবে প্রয়োগ করার উল্লেখ করে কোনো সংশোধনী প্রদান করে কেবলমাত্র সেইক্ষেত্রে ২০১৮ সালের ১৯ ডিসেম্বরের পূর্বে যারা একবার লিখিত পরীক্ষা দিয়েছেন তারাও দ্বিতীয়বার লিখিত পরীক্ষা দিতে পারবেন।


আরো সংবাদ

নতুন বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র সামনে আনলো ইরান (১৮৩৫০)ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ : সেই রাতের ঘটনা আদালতকে জানালেন ভুক্তভোগী গৃহবধূ (১১১৬৩)ক্রিকেট ছেড়ে সাকিব এখন পাইকারি আড়তদার! (১০৩৩৩)নর্দমা পরিষ্কার করতে গিয়ে ধরা পড়ল দৈত্যাকার ইঁদুর! (ভিডিও) (৮০৪১)করোনার দ্বিতীয় ঢেউ : বাড়বে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি (৭৮৭৫)আজারবাইজানের পাশে দাঁড়ালেন এরদোগান, আর্মেনিয়াকে হুমকি (৬৮৩১)যে কারণে আবারো ভয়াবহ যুদ্ধে জড়ালো আর্মেনিয়া-আজারবাইজান (৬০৩৬)সিসিবিরোধী অব্যাহত বিক্ষোভে উত্তাল মিসর (৫৩৯৭)এবার মথুরা! ঈদগাহ মসজিদ সরিয়ে জমি ফেরানোর দাবিতে আদালতে ‘‌ভগবান শ্রীকৃষ্ণ’‌ (৫২৬৯)ড. কামাল ও আসিফ নজরুল ঢাবি এলাকায় অবা‌ঞ্ছিত : সন‌জিত (৪৭১০)