০৬ আগস্ট ২০২০

সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির পরিবর্তে অন্য ব্যক্তিকে জেল খাটানোর ঘটনায় রিট

-
24tkt

খুলনায় একটি চোরাচালান মামলায় শুধু নামের মিল থাকায় সাজাপ্রাপ্ত এক পলাতক আসামির পরিবর্তে অন্য ব্যক্তিকে জেল খাটানোর ঘটনায় হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়েছে।

রোববার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চে অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ শিশির মনির এ রিট আবেদন দাখিল করেন।

সোমবার মামলাটি শুনানির জন্য সংশ্লিষ্ট আদালতের কার্যতালিকায় আসবে বলে আইনজীবী শিশির মনির জানিয়েছেন।

রিটে স্বরাষ্ট্র সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করা হয়েছে।

রিটে গ্রেফতার মোঃ সালাম ঢালীকে মুক্তি দিতে ও তাকে জেল খাটানোর সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। একই সাথে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দাবি করা হয়।

গত ৩ জুলাই একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, শুধু নামে আংশিক মিল থাকায় সাজাপ্রাপ্ত পলাতক এক আসামির পরিবর্তে নিরীহ এক ব্যক্তিকে চোরাচালান মামলায় জেল খাটতে হচ্ছে। খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের সোনাডাঙ্গা মডেল থানার এক এসআই এ ঘটনায় জড়িত বলে অভিযোগ রয়েছে।

আসামির নাম, বাবার নাম এবং ঠিকানার একাংশের মিল থাকায় মোঃ সালাম ঢালী (৩৮) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলার প্রকৃত আসামির নাম মোঃ আবদুস সালাম।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, চলতি বছরের ১১ মার্চ রাত ১২টায় নগরীর সোনাডাঙ্গা মডেল থানার এসআই সঞ্জিত কুমার মণ্ডল খুলনা সদর থানা এলাকার ৬০/১৮, শের-এ-বাংলা রোডের বাসিন্দা মোঃ সালাম ঢালীকে গ্রেফতার করেন। মোঃ সালাম ঢালীর বাবার নাম মফিজ উদ্দিন ঢালী। সালাম ঢালী এখন কারাগারে রয়েছেন। প্রায় চার মাস ধরে এই মুদি দোকানি বাগেরহাটের কারাগারে সাজা ভোগ করছেন।

অন্যদিকে প্রকৃত অপরাধী মোঃ আবদুস সালাম খুলনার সোনাডাঙ্গা থানাধীন শেখপাড়া মেইন রোডের মৃত শফিজ উদ্দিনের ছেলে। তিনি এখন পলাতক রয়েছেন। নিজের নাম, বাবার নাম ও ঠিকানার একাংশের মিল থাকায় সালাম ঢালীকে পুলিশ গ্রেফতার করে। তবে মামলার বিবরণে উল্লেখিত প্রকৃত আসামির নাম, বাবার নাম বা ঠিকানা কোনোটাতেই পুরোপুরি মিল নেই। এই প্রতিবেদন সংযুক্ত করে রিট আবেদন দায়ের করা হয়েছে।


আরো সংবাদ