১০ ডিসেম্বর ২০২৩, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪৩০, ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৫ হিজরি
`
বরগুনার আলোচিত হৃদয় হত্যা

১২ আসামিকে ১০ বছর ও ৪ আসামিকে ৭ বছর কারাদণ্ড

-

বরগুনায় আলোচিত হৃদয় হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল বিজ্ঞ বিচারক মশিউর রহমান খান এ রায় দেন। এ মামলায় অপ্রাপ্তবয়স্ক আসামি ১২ জনকে ১০ বছর ও চারজনকে ৭ বছরের আটকাদেশ ও তিনজনকে খালাসের রায় দিয়েছেন। বিষয়টি নয়া দিগন্তকে নিশ্চিত করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল।
মামলা সূত্রে জানা যায়, নিহত হৃদয়ের মা ফিরোজা বেগম বাদি হয়ে বরগুনা থানায় ২০২০ সালের ২৬ মে রাতে শিশু ও প্রাপ্ত বয়স্কসহ ২০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। বরগুনা থানার পুলিশ পরিদর্শক শরজিৎ কুমার ঘোষ ২০২০ সালের ১৬ নভেম্বর ১৬ জনকে শিশু অভিযুক্ত ও ৯ জনকে প্রাপ্ত বয়স্ক হিসেবে আসামি করে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। পরে বাদি চার্জশিটের বিরুদ্ধে নারাজি প্রদান করলে শিশু অভিযুক্ত হিসেবে রবিউল, নাইম ও রাব্বিকে অন্তর্ভুক্ত করে। এই অভিযুক্ত ১৯ জনের বিরুদ্ধে আদালত রায় প্রদান করেন।
মামলার বাদি ফিরোজা বেগম এজাহারে অভিযোগ করেন, তার একমাত্র ছেলে সুজন হৃদয় (১৬) বরগুনা সরকারি টেক্সটাইল ভোকেশনাল ইন্সটিটিউট থেকে ২০২০ সালে এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছে। ঘটনার দিন ২০২০ সালের ২৫ মে ঈদের দিন বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে বাদির ছেলে সুজন হৃদয় তার কিছু বন্ধুসহ বরগুনা সদর উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নের গোলবুনিয়া বাজার সংলগ্ন উত্তর পাশে জাফর সিকদারের বাড়ির পূর্ব পাশে পায়রা নদীর তীরে চায়না প্রজেক্টের ব্লক ইয়ার্ডে বেড়াতে যায়।
আসামি রফিক কাজীর নির্দেশে মামলার অন্যতম আসামি হেলাল মৃধার নেতৃত্বে অভিযুক্ত ১৯ জন ও প্রাপ্ত বয়স্ক ৯ জন আসামি সুজন হৃদয়কে পিটিয়ে হত্যা করে। প্রাপ্ত বয়স্ক ৯ জন আসামির বিরুদ্ধে মামলা বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।
১০ বছরের আটকাদেশ ১২ আসামি হলো : ইউনুছ কাজী ওরফে ইউনুছ, মো: রানা আকন, মো: ইমন হাওলাদার, মো: জুয়েল কাজী, মো: নয়ন, হাওলাদার (পলাতক), মো: সজিব (পলাতক), নাজমুল শিকদার, রাইয়ান বিন অন্তর ওরফে অন্তর, সিফাত ইসলাম (পলাতক), মো: মোশারেফ, মো: সাইফুল মৃধা, মো: রাব্বি।
৭ বছর মেয়াদে চারজন আসামি হলো : মো: সাগর গাজী, মো: সাইফুল কাজী, সোহাগ কাজী, মো: ফাইজুল ইসলাম।
বেকসুর খালাসপ্রাপ্ত তিনজন আসামি : মো: শফিকুল ইসলাম, মো: নাঈম কাজী, মো: রবিউল ইসলাম। এ রায়ে রাষ্ট্রপক্ষ সন্তোষ প্রকাশ করেন। কিন্ত আসামি পক্ষের আইনজীবী নিজাম উদ্দিন ও মোস্তফা কাদের অসন্তোষ প্রকাশ করে তিনি এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন বলে জানান।
এ বিষয়ে বরগুনার বিশেষ পিপি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, রাষ্ট্র পক্ষ মামলা প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছে। এ রায়ে আমরা সন্তোষ প্রকাশ করছি।


আরো সংবাদ



premium cement