১০ ডিসেম্বর ২০২২, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়েছে আড়াই হাজার কোটি টাকা

পুঁজিবাজারে শরিয়াহ অ্যাডভাইজারি কাউন্সিল হচ্ছে
-

দেশের শেয়ারবাজার এক সপ্তাহ কিছুটা নিম্নমুখী থাকার পর গত সপ্তাহে আবার ঊর্ধ্বমুখিতার দেখা মিলেছে। সপ্তাহজুড়ে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমলেও বেড়েছে মূল্যসূচক। সেই সাথে বেড়েছে লেনদেনের পরিমাণ। পাশাপাশি বেড়েছে বাজার মূলধন।
এক সপ্তাহে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) বাজার মূলধন বেড়েছে আড়াই হাজার কোটি টাকার ওপরে। এর আগের সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন আড়াই হাজার কোটি টাকা কমেছিল। অবশ্য তার আগের চার সপ্তাহের উত্থানে বাজার মূলধন বাড়ে ১৯ হাজার কোটি টাকার ওপরে।
গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসের লেনদেন শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৫ লাখ ২২ হাজার ৭৪৩ কোটি টাকা, যা তার আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৫ লাখ ২০ হাজার ১২৬ কোটি টাকা। অর্থাৎ গত সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়েছে ২ হাজার ৬১৭ কোটি টাকা। আগের সপ্তাহে বাজার মূলধন কমে ২ হাজার ৫৩৮ কোটি টাকা। তার আগের চার সপ্তাহে বাজার মূলধন বাড়ে ১৯ হাজার ৩৯৮ কোটি টাকা। বাজার মূলধন বাড়লেও গত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশি সংখ্যক প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম কমেছে। সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ৮৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৬৬টির। আর ১৩৪টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।
এরপরও গত সপ্তাহে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স বেড়েছে ৪৮ দশমিক ৯৯ পয়েন্ট বা দশমিক ৭৫ শতাংশ। আগের সপ্তাহে সূচকটি কমে ৪৫ পয়েন্ট বা দশমিক ৬৯ শতাংশ।
আর বাছাই করা ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচক গত সপ্তাহে বেড়েছে ১৯ দশমিক ৩৩ পয়েন্ট বা দশমিক ৮২ শতাংশ। আগের সপ্তাহে সূচকটি কমে ২৯ দশমিক ৮২ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ২৫ শতাংশ।
প্রধান ও ডিএসই-৩০ মূল্যসূচকের পাশাপাশি গত সপ্তাহে বেড়েছে ইসলামী শরিয়াহ ভিত্তিতে পরিচালিত কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই শরিয়াহ সূচক। গত সপ্তাহে এ সূচকটি বেড়েছে ৭ দশমিক ১৭ পয়েন্ট বা দশমিক ৫০ শতাংশ। আগের সপ্তাহে সূচকটি কমে ১১ দশমিক ৬৯ পয়েন্ট বা দশমিক ৮১ শতাংশ।
সব ক’টি সূচক বাড়ার পাশাপাশি ডিএসইতে বেড়েছে লেনদেনের পরিমাণ। গত সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ২২ কোটি ৭ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় ১ হাজার ৪১৬ কোটি ৫৮ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন বেড়েছে ৬০৫ কোটি ৪৯ লাখ টাকা বা ৪২ দশমিক ৭৪ শতাংশ।
আর গত সপ্তাহে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ১০ হাজার ১১০ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় ৭ হাজার ৮২ কোটি ৯২ লাখ টাকা। সে হিসাবে মোট লেনদেন বেড়েছে ৩ হজার ২৭ কোটি ৪৭ লাখ টাকা বা ৪২ দশমিক ৭৪ শতাংশ।


গত সপ্তাহে ডিএসইতে টাকার অঙ্কে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে ওরিয়ন ফার্মার শেয়ার। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে এক হাজার ২৪০ কোটি ৪৭ লাখ ৯৫ হাজার টাকা, যা মোট লেনদেনের ১২ দশমিক ২৭ শতাংশ। দ্বিতীয় স্থানে থাকা বেক্সিমকোর শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ১৩৬ কোটি ৭৩ লাখ ৮৯ হাজার টাকা। ৪৭৯ কোটি ৭০ লাখ ৪১ হাজার টাকা লেনাদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশন। এ ছাড়া লেনদেনের শীর্ষ দশ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে- জেএমআই হসপিটাল অ্যান্ড রিকুইজিট ম্যানুফ্যাকচারিং, লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ, ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্ট, ইস্টার্ন হাউজিং, একমি ল্যাবরেটরিজ, শাহিনপুকুর সিরামিক এবং শাহজিবাজার পাওয়ার।
শরিয়া কাউন্সিল হচ্ছে : পুঁজিবাজারের জন্য শরিয়া অ্যাডভাইজারি কাউন্সিল গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। শরিয়া অর্থনীতি বা অর্থ ব্যবস্থাপনা বিষয়ে স্কলার এবং এক্সপার্ট সদস্যদের নিয়ে এ কাউন্সিল গঠন করা হবে। গত ২১ সেপ্টেম্বর এ সংক্রান্ত একটি আদেশ জারি করেছে বিএসইসি।
এ দিকে স্কলার এবং এক্সপার্ট সদস্যদের যোগ্যতা ও অযোগ্যতার শর্ত বিবেচনায় শরিয়া অ্যাডভাইজারি কাউন্সিলের সদস্য নির্বাচনের জন্য আট সদস্যদের কমিটি গঠন করেছে বিএসইসি। ওই কমিটি আগামী ৩০ কর্মদিবসের মধ্যে শরিয়া অ্যাডভাইজারি কাউন্সিলের সম্ভাব্য সদস্যদের তালিকা কমিশনে দাখিল করবে বলে সিদ্ধান্ত হয়েছে।
শরিয়া অ্যাডভাইজারি কাউন্সিল গঠনের ফলে দেশী ও বিদেশী বিনিয়োগকারীরা শেয়ারবাজারে বিনিয়োগে আরো উৎসাহী হবেন। এতে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ আরো বাড়বে বলে মনে করছে বিএসইসিসহ বাজার সংশ্লিষ্টরা।
শরিয়া অ্যাডভাইজারি কাউন্সিলের সদস্য নির্বাচনের লক্ষ্যে গঠিত কমিটির সদস্যরা হলেন- বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম, বিএসইসির কমিশনার ড. রুমানা ইসলাম, সেন্ট্রাল শরিয়া বোর্ড ফর ইসলামিক ব্যাংকস অব বাংলাদেশের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন তালুকদার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. মো: আব্দুর রশিদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাংকিং ও ইন্স্যুরেন্স বিভাগের অধ্যাপক আবু তালেব, সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেডের (সিডিবিএল) ভাইস চেয়ারম্যান এ কে এম নুরুল ফজল বুলবুল, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের গবেষণা বিভাগের মুহাদ্দিস ড. ওয়ালীউর রহমান খান এবং বিএসইসির অতিরিক্ত পরিচালক শেখ মো: লুৎফুল কবির (সদস্যসচিব)।


আরো সংবাদ


premium cement