০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯, ৪ জিলহজ ১৪৪৩
`

৬০০ কোটি টাকার প্রকল্পে পিডি সঙ্কট!

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় দেড় বছরেও নিয়োগ দিতে পারেনি
-

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রায় ৬০০ কোটি টাকার একটি প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক (পিডি) সঙ্কট দেখা দিয়েছে। দেড় বছর আগে প্রকল্পটির পরিচালককে অন্যত্র বদলি করা হলেও এখন পর্যন্ত নতুন প্রজেক্ট ডাইরেক্টর বা প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ দিতে পারেনি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। দ্রুত নিয়োগ দিতে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় হতে একাধিকবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে এ বিষয়ে পত্র লেখা হয়। কিন্তু কোনো প্রকল্প পরিচালক পদায়ন না করায় মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব এবি এম সফিকুল হায়দারকে এ মন্ত্রণালয় হতে নিজ দায়িত্বের অতিরিক্ত পরিচালকের দায়িত্ব প্রদান করা হয়। সম্প্রতি ওই কর্মকর্তাকে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আরেকটি প্রকল্পে নিয়োগ দেয়া হয়। এই বদলি ঠেকাতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ড. মো: এনামুর রহমান। সম্প্রতি জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেনকে লেখা এক চিঠিতে বদলি আদেশ বাতিলের অনুরোধ জানান।
২১ মে ত্রাণ প্রতিমন্ত্রীর স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় হতে গত ২৪ মার্চ এক স্মারকে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব এ বি এম সফিকুল হায়দারকে জয়িতা ফাউন্ডেশনের সক্ষমতা বিনির্মাণ প্রকল্পে বদলিপূর্বক প্রেষণে নিয়োগ করা হয়। সফিকুল হায়দার ২০২০ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে যোগদান করেন। যোগদানের পর যুগ্ম সচিব (পরিকল্পনা) হিসেবে মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন প্রকল্পগুলো সুচারুরূপে বাস্তবায়ন করে আসছেন। ২০২১-২২ অর্থবছরের শেষ প্রান্তে তাকে অনত্র বদলি করা হলে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে এবং বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন পুরোপুরি সম্ভব হবে না।
চিঠিতে বলা হয়েছে, গত ১৪ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখে বিশ্বব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ‘ইমারজেন্সি মাল্টি সেক্টর রোহিঙ্গা ক্রাইসিস রেসপন্স’ শীর্ষক প্রকল্পের পরিচালক ও যুগ্ম সচিব মো: আলতাফ হোসেনকে অনত্র বদলি করায় তার স্থলে কোনো প্রকল্প পরিচালক পদায়ন করা হয়নি।
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় হতে একাধিকবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে পত্র লেখা হয়। কিন্তু কোনো প্রকল্প পরিচালক পদায়ন না করায় এ বি এম সফিকুল হায়দারকে এ মন্ত্রণালয় হতে নিজ দায়িত্বের অতিরিক্ত হিসেবে ২০২০ সালের ১৫ ডিসেম্বর পরিচালকের দায়িত্ব প্রদান করা হয়।
বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে প্রকল্পটির মাধ্যমে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে শরণার্থীদের খাদ্যসহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। ৫৯৯ কোটি টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে এ প্রকল্পটি ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাস থেকে শুরু হয়েছে এবং ২০২৩ সালের জুনে শেষ হবে।
জনপ্রশাসনে পাঠানো চিঠিতে আরো বলা হয়েছে, এ বি এম সফিকুল হায়দার অত্যন্ত দক্ষতার সাথে প্রকল্পের কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন করছেন। তাই এ সময় বদলিজনিত কারণে তিনি অনত্র যোগদান করলে নির্ধারিত সময়ে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন বাধাগ্রস্ত হবে।
চিঠিতে সার্বিক বিবেচনায় এ বি এম সফিকুল হায়দারের বদলি আদেশ বাতিলকরণে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীর ব্যক্তিগত হস্তক্ষেপ কামনা করেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ড. মো: এনামুর রহমান।

 


আরো সংবাদ


premium cement