২৩ জানুয়ারি ২০২২, ০৯ মাঘ ১৪২৮, ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩
`

আইভী আবারো নৌকা পাওয়ার নেপথ্যে

সেলিনা হায়াৎ আইভী - ছবি : সংগৃহীত

গোয়েন্দা সংস্থার পাঠানো রিপোর্ট, রাজনৈতিক দক্ষতা এবং নেতাকর্মীদের সাথে সুসম্পর্ক- এই তিনটি ক্যাটাগরির সব কয়টিতে উত্তীর্ণ হয়েছেন নারায়ণগঞ্জের মেয়র ডা: সেলিনা হায়াৎ আইভী। নারায়ণগঞ্জে এখনো মেয়র আইভী জনপ্রিয় ও পরিচ্ছন্ন রাজনৈতিক হিসেবে আলোচিত। নৌকার মনোনয়ন পেতে এই তিন ক্যাটাগরি নির্ধারণ করে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটি। ফলে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের আসন্ন নির্বাচনে আবার ডা: সেলিনা হায়াৎ আইভীর ওপর আস্থা রেখেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। আগামী ১৬ জানুয়ারিতে ওই সিটি নির্বাচনে নৌকার হয়ে ভোটযুদ্ধে লড়বেন তিনি।

শুক্রবার রাতে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের (নাসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন পেয়ে এক প্রতিক্রিয়ায় আইভী বলেন, নারায়ণগঞ্জবাসীর হৃদয়ের স্পন্দন বুঝে এবারো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নৌকার মনোনয়ন কাক্সিক্ষত প্রার্থীর হাতেই তুলে দিয়েছেন। তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জবাসী ও তৃণমূলের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। তৃণমূলের আশা ছিল নেত্রী আমাদের হতাশ করবেন না।

আইভী বলেন, আগামী ১৬ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জবাসী আমাকে বিজয় নিশ্চিত করে দিতে পারবে বলে আমি প্রত্যাশা করি। আমার দলের যেসব নেতাকর্মী দিন-রাত অপেক্ষায় ছিলেন তাদেরসহ নমিনেশন বোর্ডের সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। গতবার আমি উন্নয়ন ও শান্তির বার্তা নিয়ে এসেছিলাম। এবারো সেই বার্তা অব্যাহত থাকবে। পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জবাসীর সেবায় আমৃত্যু থাকার চেষ্টা করব।

আইভী বলেন, নারায়ণগঞ্জের জনতাই আমার শক্তির উৎস। দল ও জনতা উৎসাহ দিয়েছেন বলেই আমি আজকে মেয়র। যে কারণে আমি কোনো সিদ্ধান্ত দিতে দ্বিধা করি নাই। দল আমাকে সব সময় সমর্থন দিয়েছে। নারায়ণগঞ্জবাসী সব সময় আমার পাশেই ছিলেন। অচিরেই আমি প্রচারণায় নামব। মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারণা শুরু করব। আপনারা সবাই আমার পাশে থাকবেন। আগামী ১৬ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রীকে নৌকা উপহার দিবো।

এর আগে শুক্রবার রাত ৮টায় আইভী নৌকা পাওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে শহরের দুই নম্বর রেল গেটস্থ জেলা আওয়ামী লীগ অফিসে অপেক্ষারত নেতাকর্মী ও সমর্থকেরা উল্লাসে ফেটে পড়েন। তারা ‘শেখ হাসিনা, আওয়ামী লীগ, নৌকা, আইভী আপা’ স্লোগান দিতে থাকেন। একপর্যায়ে নগরীতে আনন্দ মিছিল বের করা হয়।
আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় নেতাদের মতে, নারী রাজনীতি ও জাতীয় রাজনীতিতে আইভী ইতিবাচক ভাবমর্যাদা অর্জন করতে পেরেছেন এবং তা ধরে রাখতে পেরেছেন। তাই আবার নৌকা দেয়া হয়েছে তাকে। তা ছাড়া তিনি সিটিং মেয়র, সুনামের সাথে কাজ করেছেন। নারায়ণগঞ্জের মানুষের কাছেও এই মুহূর্তে সবচেয়ে জনপ্রিয় আইভী।
দলের ঢাকা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি বলেন, নারী রাজনীতি ও জাতীয় রাজনীতির জনপ্রিয় নাম মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী। দায়িত্বে থেকে নিজের জনপ্রিয়তা ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছেন এই মেয়র। তিনি আরো বলেন, নিশ্চয়ই আসন্ন নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জের মেয়র হিসেবে পুনর্নির্বাচিত হবেন আইভী।

ঢাকা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম বলেন, যোগ্যতার মানদণ্ডে আইভী এগিয়ে থাকায় তাকে আবার নৌকা দেয়া হয়েছে। আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলী এবং মনোনয়ন বোর্ড সদস্য ফারুক খান বলেন, কোনো প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়ার আগে আমরা ওই প্রার্থীর ব্যাপারে তিনটি বিষয় ভালো করে দেখিÑ গোয়েন্দা সংস্থার পাঠানো রিপোর্ট, রাজনৈতিক দক্ষতা ও নেতাকর্মীদের সাথে সম্পর্ক। সব বিষয়েই এগিয়ে রয়েছেন মেয়র আইভী। দলের পরিচ্ছন্ন ভাবমর্যাদাও বজায় রেখেছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, আগামী ১৬ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ তারিখ ১৫ ডিসেম্বর। বাছাই ২০ ডিসেম্বর। আর প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৭ ডিসেম্বর। গত ৩০ নভেম্বর নির্বাচন কমিশনের বৈঠক শেষে এ তফসিল ঘোষণা করেন ইসি সচিব হুমায়ুন কবীর খোন্দকার।


আরো সংবাদ


premium cement

সকল