২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭ আশ্বিন ১৪২৮, ১৪ সফর ১৪৪৩ হিজরি
`

ভূমধ্যসাগরে নৌকায় বাংলাদেশীসহ ৩৯৪ অভিবাসনপ্রত্যাশী

-

ভূমধ্যসাগরে বিপজ্জনকভাবে ভিড়ে ঠাসা দু’টি কাঠের নৌকা থেকে ৩৯৪ অভিবাসীপ্রত্যাশীকে উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার ভোরে ছয় ঘণ্টার অভিযানে উদ্ধারকারী জাহাজ তাদের তীরে নিয়ে এসেছে। প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এমন খবর দিয়েছে। উত্তর আফ্রিকার উপকূল থেকে ৬৪ কিলোমিটার দূরের তিউনিসিয়ার জলসীমা থেকে তাদের উদ্ধার করে জার্মান ও ফ্রান্সের এনজিও জাহাজ সি-ওয়াচ ৩ ও ওসেন ভাইকিং। শীর্ষ নিউজ।
রয়টার্স জানিয়েছে, অভিবাসনপ্রত্যাশীদের বেশির ভাগই মরোক্কো, বাংলাদেশ, মিসর ও সিরিয়ার। অভিবাসীপ্রত্যাশীদের মধ্যে ১৪১ জনকে উদ্ধার করেছে সি-ওয়াচ ৩। বাকিদের তীরে নিয়ে আসে ওসেন ভাইকিং। এতে জার্মানির এনজিও রেসকশিপের ইয়ট নাডির সহায়তা করেছে। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেছে কিনা এখন পর্যন্ত তা জানা সম্ভব হয়নি। সম্প্রতি লিবিয়া ও তিউনিসিয়া থেকে ইতালিসহ বিভিন্ন ইউরোপীয় অঞ্চলগামী অভিবাসীপ্রত্যাশীদের সংখ্যা বেড়েছে। এর আগে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে অবৈধভাবে ইউরোপ যাওয়ার সময় লিবিয়া উপকূল থেকে দুই শতাধিক অভিবাসনপ্রত্যাশীকে উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃতদের বেশির ভাগই বাংলাদেশ, সিরিয়া, ইরিত্রিয়া, নাইজেরিয়া, ক্যামেরুন ও ঘানার নাগরিক বলে জানা গেছে।
স্থানীয় সময় শনিবার গভীর সমুদ্রে অভিযান চালিয়ে তাদের উদ্ধার করা হয়। শুক্রবারও গভীর সমুদ্র থেকে আহত অবস্থায় ১৫ জনকে উদ্ধার করে ইতালির কোস্ট গার্ড। গভীর সমুদ্র। ভরসা রাবারের নৌকা। উদ্দেশ্যÑ স্বপ্নের ইউরোপ। যুদ্ধ আর ক্ষুধা থেকে বাঁচতে উন্নত জীবনের আশায় প্রতিদিনই এমন ভয়ঙ্কর পথ বেছে নিচ্ছেন অসংখ্য মানুষ। দীর্ঘ এ বিপজ্জনক পথ পাড়ি দিতে গিয়ে সলিলসমাধি হচ্ছে অনেকের। তবুও থেমে নেই ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেয়ার চেষ্টা।
শনিবার লিবিয়া উপকূলে আলাদা চারটি অভিযান চালিয়ে দুই শতাধিক অভিবাসন প্রত্যাশীকে উদ্ধার করেছে বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা এসওএস। এদের বেশির ভাগই সিরিয়া, ইরিত্রিয়া, নাইজেরিয়া ও ঘানার নাগরিক বলে জানা গেছে। উদ্ধারকৃতদের মধ্যে ২৮ জন নারী; এদের মধ্যে দু’জন গর্ভবতী। এ ছাড়া আহত হয়েছেন দুই শিশুসহ অন্তত ৩৩ জন।
কর্মকর্তারা জানান, শনিবার সকালে প্রথম অভিযান চালিয়ে ৫৭ জনকে উদ্ধার করা হয়। পরে তাদের দেয়া তথ্যে আরো ৫৪ জনকে উদ্ধার করা হয়। এদের মধ্যে কয়েকজন দগ্ধ হয়ে আহত হয়েছেন। এ ছাড়া আলাদা একটি কাঠের নৌকা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে আরো ৬৪ জনকে। আরেকটি রাবারের নৌকা থেকে ২১ সিরীয় নাগরিককে উদ্ধার করা হয়। তাদের বেসরকারি আশ্রয়কেন্দ্রে চিকিৎসা দেয়া হয়।
শুক্রবারও (৩০ জুলাই) ভূমধ্যসাগরের গভীর সমুদ্র থেকে শতাধিক অভিবাসনপ্রত্যাশীকে উদ্ধার করে জার্মানির একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। এদের মধ্যে ১৫ জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে। জাতিসঙ্ঘের মানবিকবিষয়ক সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিতে গিয়ে চলতি বছরে এ পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন ১১০০ জন। যাদের বেশির ভাগই আফ্রিকার বিভিন্ন দেশের নাগরিক।



আরো সংবাদ


খেলাপিদের বিশেষ সুবিধা আরো এক বছর চায় বিজিএমইএ মুস্তাফিজদের দারুণ বোলিংয়ে রোমাঞ্চকর লড়াই জিতল রাজস্থান সাবমেরিন ইস্যু : ‘ক্রুদ্ধ’ ম্যাক্রঁ কি বেশি ঝুঁকি নিয়ে ফেললেন? গাড়িচালক মালেকের বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন দুদকের আফগানিস্তানে আইপিএলের সম্প্রচার নিষিদ্ধ হার এড়ালো বার্সেলোনা অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় নিজেকে নির্দোষ দাবি সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর স্বাস্থ্যের ২৮৩৯ পদে নিয়োগপ্রক্রিয়া বাতিল দুয়েকটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হয়েছে : ওবায়দুল কাদের মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা শিথিল খালেদা জিয়ার মুক্তি ইস্যুতে আপস করা যাবে না: বিএনপি

সকল