১২ এপ্রিল ২০২১
`

হেলথ টিপস : শজনে পাতার চায়ের উপকারিতা

-

শজনে আমাদের অতি পরিচিত ও জনপ্রিয় একটি সবজি। শজনের ডাঁটা সবজি হিসেবে এবং পাতা শাক হিসেবে খাওয়া হয়ে থাকে।
শজনের ডাঁটা ও পাতা খুবই পুষ্টিকর ও সুস্বাদু একটি খাবার। একে পৃথিবীর সবচেয়ে পুষ্টিকর হার্ব বলা হয়। শজনে ডাঁটার বৈজ্ঞানিক নাম ‘মোরিঙ্গা ওলেইফেরা’। পুষ্টিগুণ বিবেচনা করে শজনে পাতাকে ‘অলৌকিক পাতা’ বলা হয়ে থাকে। এ ছাড়া একে ‘নিউট্রিশন সুপার ফুড’ও বলা হয়। আবার অনেক গবেষক একে ‘পুষ্টির ডিনামাইট’ও বলেছেন।
শজনে পাতা শাক হিসেবে রান্না করে খাওয়া যায় অথবা সালাদের সাথে কাঁচা খাওয়া যায়। তবে এ পাতার আরেকটি বিশেষ ব্যবহার রয়েছে, সেটি হলো শজনে-চা।
শজনে পাতা শুকিয়ে গুঁড়া করে সংরক্ষণ করা যায়। পরে চায়ের পাতার মতো ব্যবহার করা যায়। অথবা শুকনা পাতা ফুটানো পানিতে দিয়েও চা বানানো যায়।
এ ছাড়া তাজা শজনে পাতা পানিতে ফুটিয়ে চায়ের মতো খাওয়া যায়।
নিয়মিত শজনে-চা খাওয়ার অভ্যাস করা হলে তা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী হতে পারে।
শজনে-চায়ের উপকারিতা
প্রতি ১০০ গ্রাম শজনে পাতায় একটি কমলার চেয়ে প্রায় সাত গুণ বেশি ভিটামিন সি থাকে। তাই এটি রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বাড়ায় এবং ইনফেকশন কমাতে সাহায্য করে।
শজনে পাতায় দুধের চেয়ে প্রায় চার গুণ বেশি ক্যালসিয়াম পাওয়া যায়। তাই এটি হাড় ও দাঁতের সুস্থতার জন্য উপকারী।
এ পাতায় প্রচুর পরিমাণে আয়রন থাকে। তাই শজনে-চা পান করা হলে তা রক্তশূন্যতা দূর করতে সাহায্য করে।
শজনে পাতার অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল কার্যকারিতা থাকায় এটি লিভার ও কিডনি সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।
গর্ভবতী ও প্রসূতিদের জন্য শজনে পাতা খুবই উপকারী। এটি গর্ভকালীন অসুস্থতা, যেমন মাথা ঘোরানো, বমি বমি ভাব, খাবারে অরুচি প্রভৃতি সমস্যা কমাতে সাহায্য করে। এ ছাড়া নিয়মিত শজনে-চা খাওয়া হলে তা মায়ের দুধ উৎপাদন বাড়াতে সাহায্য করে।
শজনে পাতায় প্রচুর ফাইবার থাকে এবং এতে ক্লোরোজেনিক অ্যাসিড থাকে, যা স্বাভাবিকভাবে ওজন কমাতে ও শরীরে জমে থাকা চর্বি কমাতে সাহায্য করে। তাই ওজন কমানোর জন্য শজনে-চা খুব উপকারী ভূমিকা পালন করে। ইন্টারনেট।



আরো সংবাদ