১১ এপ্রিল ২০২১
`

গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে বৃহত্তর ঐক্যের ডাক ফখরুলের

৭ বিশিষ্ট জনকে পদক প্রদান
-

দেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে সব রাজনৈতিক শক্তির বৃহত্তর ঐক্যের আহ্বান জানিয়েছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে দলের এক আলোচনা সভায় বিএনপি মহাসচিব এই আহ্বান জানান। মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে দেশের প্রধান সঙ্কট হচ্ছে, আমাদেরকে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে। আমাদের গণতন্ত্র হারিয়ে গেছে, স্বাধীনতার সব চেতনা লুণ্ঠন করে নেয়া হয়েছে। বিএনপিকে নেতৃত্ব দিতে হবে এই ভয়াবহ ফ্যাসিবাদী সরকারকে সরিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠায়। তিনি বলেন, রাজনৈতিক শক্তিগুলো যারা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে তারা আজকে ঐক্যবদ্ধ হতে চায়, ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই সরকারের বিরুদ্ধে দুর্বার গণ-আন্দোলন সৃষ্টি করে সরকারের পতন ঘটাতে চায় এবং সত্যিকার অর্থেই জনগণের একটা পার্লামেন্ট, জনগণের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে চায়। আসুন আমরা সেই শপথ নিয়ে সেই লক্ষ্যে সংগঠিত হই।
আওয়ামী লীগ জাতিকে বিভক্ত করেছে অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছরে দুর্ভাগ্যজনকভাবে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে গোটা জাতি বিভক্ত হয়ে গেছে। তারা শুধু তাদের নেতা এবং যে সব নেতা আছেন তাদেরকে ছাড়া আর কাউকে স্বাধীনতা যুদ্ধের জন্য, স্বাধীনতা সংগ্রামের জন্য স্বীকৃতি দিতে চায় না।
স্বাধীনতা সংগ্রামে নেতৃত্বকারী শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হক, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী, শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে তিনি বলেন, সবচেয়ে বেশি শ্রদ্ধা জানাতে চাই যিনি যুদ্ধ ঘোষণা না করলে এ দেশ স্বাধীন হতো না সেই জিয়াউর রহমানের প্রতি। তিনি যুদ্ধ ঘোষণা না করলে দেশের মানুষ মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ত না।
ফখরুল বলেন, সরকার গণতন্ত্রের সব প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করেছে, রাষ্ট্রীয় যন্ত্রকে ব্যবহার করছে। সত্যিকার একটি স্বাধীন বাংলাদেশ নির্মাণ করা, সত্যিকার অর্থে একটা গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ নির্মাণ করা, সত্যিকার অর্থে একটা উদার গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করা সেটাকে ধ্বংস করে দিয়েছে।
একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সূচনা লগ্নে প্রথম স্বাধীন দেশের পতাকা উত্তোলনকারী জাতীয় সামাজতান্ত্রিক দল-জেএসডির চেয়ারম্যান আ স ম আবদুর রব বলেন, আওয়ামী লীগ স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে একেবারে দলীয় দৃষ্টিভঙ্গিতে সীমাবদ্ধ করে রাখতে চায়। এই ধরনের সঙ্কীর্ণতা মুক্তিযুদ্ধকে অসম্মানের শামিল। সমগ্র জাতির নিরবচ্ছিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামের পরিণতিতে মুক্তিযুদ্ধ এবং অগণিত মানুষের আত্মত্যাগের মধ্য দিয়েই আমরা লাভ করেছি আমাদের স্বাধীনতা।
সাম্প্রতিক সময়ের ঘটনার প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, বাঁচতে হলে লড়তে হবে, লড়াই করে জিততে হবে। এই লড়াই বাঁচার লড়াই, এই লড়াইয়ে জিততেই হবে। বাঁশের লাঠির পাল্টা উত্তর দিতে হবে। সেইভাবে প্রস্তুতি নিতে হবে।
জিয়াউর রহমানের বীর উত্তম খেতাব কেড়ে নেয়ার উদ্যোগের সমালোচনা করে তিনি বলেন, এই উদ্যোগে সরকার ‘মুক্তিযুদ্ধের ভিলেন’ হিসেবে চিত্রিত হবে। রাষ্ট্রের পক্ষে যে বীরত্ব প্রদান করা হয়েছে সে বীরত্ব বাতিলের অধিকার কারো নেই। বীরত্ব কারো অনুগ্রহ নয়, এটা অর্জন। জিয়াউর রহমানের খেতাব বাতিলের অপচেষ্টা থেকে সরকারকে অবশ্যই বিরত থাকতে হবে। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিও জানান তিনি।
জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে বিএনপির স্বাধীনতা সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন জাতীয় কমিটির উদ্যোগে ঐতিহাসিক পতাকা উত্তোলন দিবস উপলক্ষে এই আলোচনা সভা হয়। আলোচনা সভার আগে মিলনায়তনের সামনে বিএনপি মহাসচিবকে নিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন আ স ম আবদুর রব।
১৯৭১ সালের ২ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় তৎকালীন ডাকসু ভিপি স্বাধীন বাংলা ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের নেতা আ স ম আবদুর রব প্রথম স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেছিলেন।
সরকার স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃতি করছে উল্লেখ করে সভাপতির বক্তব্যে জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, সরকার মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃত করছে। আমরা সূবর্ণজয়ন্তী উদযাপনের উদ্দেশ্য জনগণের কাছে, নতুন প্রজন্মের কাছে স্বাধীনতার প্রকৃত ইতিহাস তুলে ধরা।
নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ছাত্রদল সেই দিন জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে যেভাবে প্রতিরোধ করেছে সে জন্য তাদের ধন্যবাদ জানাই। আমি বলতে চাই এই প্রতিরোধের দেয়াল আরো শক্ত করতে হবে। নিজেরা সিদ্ধান্ত নেন লড়াই এখন কেবল খ খ নয়, ছোট ছোট, খ খ লড়াই করতে করতে, সেই লড়াইকে সাথে করে এক জায়গায় নিয়ে একবার সবাইকে রাস্তায় নেমে পড়তে হবেÑ তোকে চাই না।
ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর বলেন, কারাগারে একজন লেখককে হত্যা করা হয়েছে। তাকে বিতর্কিত একটি কালো আইনে কারাগারে আটকিয়ে রাখা হয়েছিল। এই আইনটি স্বাধীন মত প্রকাশের অন্তরায়। এই আইনের অধীনে এ পর্যন্ত এক হাজার মামলা হয়েছে তার একটিরও নিষ্পত্তি হয়নি। ম্যাক্সিমাম কেইসে আপনি দেখবেন অভিযুক্তরা মোটামুটি দেরিতে হলেও জামিনে বেরিয়ে এসেছেন। তার মানে এটা স্পষ্ট যে, যাদেরকে গ্রেফতার করা হয়েছিল তাদের অভিযোগ ভিত্তিহীন। একই আইনে লেখক মুশতাক আহমেদকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। তিনি বলেন, মুশতাকের অপরাধ ছিল তিনি ব্যাংক লুটেরা ১৯৯৬ সালে যারা শেয়ারবাজার লুট করেছিল, ২০১০ সালে একই সিন্ডিকেটের লোকজন শেয়ারবাজার লুট করেছিল। সেই চক্রের একজন ব্যাংক লুটেরার একটা কার্টুন প্রকাশ করেছিল কিশোর। সম্ভবত পদ্মা ব্যাংকের এমডি নাফিজ সরাফত চৌধুরী, তার বিষয়ে কার্টুন প্রকাশ করে। সেই নাফিজ র্যাব দিয়ে কিশোরকে তুলে নিয়ে গিয়েছে, তাকে মারধর করেছে, নির্যাতন করেছে। মুশতাকের সাথে তার (কিশোর) একটা যোগাযোগ ছিল, ক্যাডেট কলেজে পড়েছে। তাকেও ধরা হলো একটা কার্টুন আঁকার জন্য। সরকারের এই নিপীড়ন নির্যাতনের বিরুদ্ধে সবাইকে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।
জাতীয় কমিটির সদস্যসচিব আবদুস সালামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিএনপির মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান, আমানউল্লাহ আমান, ফজলুল হক, খায়রুল কবির খোকন, শিরিন সুলতানা প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
৭ বিশিষ্ট জনকে পদক প্রদান
বাংলাদেশের শিশুদের জন্যে ‘সুন্দর-শান্তিময়’ আবাসস্থল নির্মাণে সবাইকে উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে শিশু-কিশোরদের একটি অনুষ্ঠানে বিএনপি মহাসচিব এই আহ্বান জানান।
তিনি বলেন, স্বাধীনতার এই ৫০ বছরে আমাদের শিশুদের জন্য কি সত্যিকার অর্থে একটা ভালোবাসার দেশ, একটা প্রেমের দেশ, একটা স্বপ্নের দেশ নির্মাণ করতে পেরেছি? না আমরা সেটি করতে পারিনি। আমরা আমাদের শিশুদের জন্য সেই আবাসস্থল তৈরি করতে পারিনি, যেখানে তারা নিরাপদে গড়ে উঠবে সত্যিকারের মানুষের মতো।
তিনি বলেন, সবার কাছে আমার আহ্বান থাকবে যে, আসুন আমরা সবাই মিলে উদ্যোগ নিই, চেষ্টা করি যেন আমরা আমাদের শিশুদের জন্যে একটা সত্যিকার অর্থেই শান্তিময় নিরাপদ পৃথিবী গড়ে তুলতে পারি। বাংলাদেশটাকে সত্যিকার অর্থেই হাসি-গান আর ফুলের একটা দেশ বানিয়ে তুলি, তুলতে পারি।
কাকরাইলে ডিপ্লেøামা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি মিলনায়তনে বাংলাদেশ জিয়া শিশু একাডেমির উদ্যোগে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ১১তম জাতীয় শিশু শিল্পী প্রতিযোগিতা ‘শাপলা কুঁড়ি-২০১৯’-এর পুরস্কার বিতরণী উপলক্ষে এই অনুষ্ঠান হয়। প্রধান অতিথি মির্জা ফখরুল শিশুদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।
এই শিশু প্রতিযোগিতায় সারা দেশ থেকে ২২ হাজার খুদে শিল্পী বাছাই পর্বে অংশ নিয়ে চূড়ান্ত পর্বে উত্তীর্ণ হয়েছে ৪৭৬ জন।
অনুষ্ঠানে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে শিক্ষায় অধ্যক্ষ সেলিনা আখতার, স্বাস্থ্য সেবায় অধ্যাপক হাসিনা আফরোজ, সঙ্গীতে এ এস এম শফি মণ্ডল, শিল্পায়নে আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ, প্রবাসী কল্যাণে খান মনিরুল মনি, জনপ্রতিনিধি মনিরুল আলম সেন্টু ও আদর্শ মা মৌসুমি সাহাকে ‘কমলপদক-২০২০’ প্রদান করা হয়।
অনুষ্ঠানে খুদে শিল্পীদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়।
মির্জা ফখরুল বলেন, আমাদের অনেক বয়স হয়েছে। আমরা কিছু দিন পরে হয়তো পৃথিবী ছেড়ে চলে যাবো। ইতোমধ্যে কোভিডের মধ্যে আমাদের অনেক বহু গুণী মানুষ চলেও গেছেন।
তিনি বলেন, বারবার আমার মনে হয় যে, শিশুদের জন্য আবাসস্থল না করতে পারায় দায় আমাদের। আমরা এ দেশ স্বাধীন করেছিলাম, লড়াই করে যুদ্ধ করে, আমরা কথা দিয়েছিলাম যে, এই দেশকে একটা গণতান্ত্রিক দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করব, এই সমাজকে এই রাষ্ট্রকে আমরা সহনশীল, উদার একটা রাষ্ট্র গঠন করব। কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য পুরোপুরিভাবে সেটি আমরা করতে পারিনি। আমরা নিজেদের মধ্যে দলাদলি করেছি, কোন্দল করেছি, বিভক্ত হয়েছি।
একাত্তরের স্বাধীনতার স্মৃতিচারণ করে মির্জা ফখরুল বলেন, এই বছর আমাদের স্বাধীনতার ৫০ বছর পূরণের বছর, এই মাসটা স্বাধীনতার মাস। এই মাসে আমরা বাংলাদেশের মানুষ নিজেদেরকে পাকিস্তানি শাসকদের হাত থেকে মুক্ত করার জন্য যুদ্ধে নেমেছিলাম। সেই যুদ্ধের ডাক দিয়েছিলেন শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান, যার নামে এই প্রতিষ্ঠান। তিনি ওই সময়ে সেনাবাহিনীর মেজর ছিলেন। তারপরে ৯ মাস যুদ্ধ হয়েছে, বহু মানুষ মারা গেছে, বহু মানুষের ক্ষতি হয়েছে, প্রায় এক কোটি মানুষ বাংলাদেশ ছেড়ে ভারতে আশ্রয় নিয়েছিল। এখানে গণহত্যা হয়েছে। হানাদারবাহিনীর লোকেরা বহু প্রখ্যাত শিল্পীকে হত্যা করেছে। এখন সময় এসেছে এই ৫০ বছরে আমরা কী পেয়েছি আর কী দিয়েছি, সেটি ভাবার।
শিশুদের উন্নয়ন ও বিকাশে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের নানা পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করে টেলিভিশনে ‘নতুন কুঁড়ি’ অনুষ্ঠান চালুর কথাও তুলে ধরেন বিএনপি মহাসচিব।
সংগঠনের নির্বাহী মহাপরিচালক এম হুমায়ুন কবীরের সভাপতিত্বে এবং মাশুক সিদ্দিকী ও নওশিন রথির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে একাডেমির পৃষ্ঠপোষক এলবার্ট পি কস্টা, কণ্ঠশিল্পী খুরশীদ আলম, জিনাত রেহানা, সামিনা আখতার সম্পা ও সুলতানা জামান জ্যোস্না বক্তব্য রাখেন।



আরো সংবাদ


ইউক্রেন সীমান্তে কৌশলগত ‘ইস্কান্দার’ ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন রাশিয়ার নলছিটিতে পুড়িয়ে বাবুই-ছানা হত্যার দায় স্বীকার করে ক্ষমা চাইলেন বৃদ্ধ পেঁয়াজের ভরা মৌসুমে লকডাউন চাষিদের মাথায় হাত কোয়ারেন্টিন পরিবেশেই আছেন খালেদা জিয়া ২০২১ সালের পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতি : পর্বসংখ্যা-১৯ ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা প্রথম অধ্যায় : আকাইদÑবিশ্বাস এইচএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি : বাংলা প্রথম পত্র কবিতা : ঐকতান ২০২১ সালের অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতি : পর্বসংখ্যা-১৯ এসএসসি পরীক্ষা : ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা দ্বিতীয় অধ্যায় : শরিয়তের উৎস ৬০ রেকর্ডে শেষ বাংলাদেশ গেমস টানা পাঁচবার সেরা আনসার

সকল

লক খোলা লকডাউন, রোববার নতুন নির্দেশনা (১৫৪৬৩)র‌্যাবের ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করলো পুলিশ (১৪৫৪৯)১৪ এপ্রিল থেকে জরুরি সেবার প্রতিষ্ঠান ছাড়া সব বন্ধ : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী (১২০৮১)ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহার করুন : বাবুনগরী (৮৫১১)১৪ এপ্রিল থেকে সর্বাত্মক লকডাউনের চিন্তা সরকারের : কাদের (৮৩৮২)এবার টার্গেট জ্ঞানবাপী মসজিদ! (৭১৪৫)আপনি যে পতনের দ্বারপ্রান্তে তা বুঝবেন কিভাবে? (৫৪২১)মিয়ানমারে নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে বন্দুক নিয়ে লড়ছেন বিক্ষোভকারীরা (৪৫৯৮)হিমছড়িতে ভেসে এলো বিশাল তিমি (৪৪৫৭)বিজেপির নির্বাচনী গানে বাংলাদেশে ইসলামপন্থীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষের ছবি (৪২৭৬)