১৯ এপ্রিল ২০২১
`

সূচক উত্থানেও কমেছে লেনদেন

-

দেশের দুই পুঁজিবাজারে গতকাল সোমবার সপ্তাহের দ্বিতীয় দিন সূচক বেড়েছে। এ দিন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ২২ দশমিক শূন্য ২ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৪১ শতাংশ বেড়ে ৫ হাজার ৪২৬ দশমিক ৮২ পয়েন্টে অবস্থান করছে। সূচক বাড়লেও আগের দিনের তুলনায় লেনদেনে কমেছে ঢাকার পুঁজিবাজারে। ডিএসইতে এ দিন ৬১৮ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা আগের কর্মদিবসে ৬৬০ কোটি ৬৪ লাখ টাকা ছিল। ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩৫২টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এর মধ্যে ১২৯টির দর বেড়েছে, ১০৫টির কমেছে এবং ১১৮টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে।
এ বাজারে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হওয়া ১০ কোম্পানি হলোÑ বেক্সিমেকা, বিএটিবিসি, রবি, লংকাবাংলা, জিবিবি পাওয়ার, বেক্সিফার্মা, অরিয়ন ফার্মা, সামিট পাওয়ার, স্কয়ার ফার্মা এবং লাফার্জ।
ডিএসইতে দাম বাড়ার তালিকায় শীর্ষ ১০ কোম্পানি হলোÑ ইজেনারেশন লিমিটেড, জিবিবি পাওয়ার, জিকিউ বলপেন, তৌফিকা ফুডস, এসএস স্টিল, এআইবিএল ফার্স্ট ইসলামিক মিউচুয়াল ফান্ড, বিকন ফার্মাসিউটিক্যালস, অরিয়ন ফার্মা, আলহাজ টেক্সটাইল এবং সাইফ পাওয়ার। সবচেয়ে বেশি দর হারিয়েছে যে ১০ কোম্পানিÑ ইউনিলিভার কনজুমার কেয়ার, এরামিট সিমেন্ট, ইবিএল এনআরবি মিউচুয়াল ফান্ড, ফার্স্ট জনতা ব্যাংক মিউচুয়াল ফান্ড, ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্স, সানলাইফ ইন্স্যুরেন্স, প্রগতি ইন্স্যুরেন্স, ইবিএল ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, অগ্রণী ইন্স্যুরেন্স, ভ্যানগার্ড এএমএল বিডি ফাইন্যান্স মিউচ্যুয়াল ফান্ড ওয়ান।
অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) প্রধান সূচক সিএএসপিআই এ দিন ৮৩ দশমিক ২৩ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৫৩ শতাংশ বেড়ে ১৫ হাজার ৬৮৭ পয়েন্ট হয়েছে। সিএসইতে এ দিন ৩৫ কোটি ৭৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা আগের দিন ২৪ কোটি ৪২ লাখ টাকা ছিল। এ বাজারে লেনদেন হওয়া ২২৬টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিটের মধ্যে ৯৭টির দর বেড়েছে, ৫৭টির কমেছে এবং ৭২টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে।
ব্লক মার্কেট : গতকাল সোমবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্লক মার্কেটে ১৯টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব কোম্পানির ২৭ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। কোম্পানিগুলোর ১৮ লাখ ৪১ হাজার ১৬টি শেয়ার ৩২ বার হাত বদল হয়েছে। এর মাধ্যমে কোম্পানিগুলোর ২৭ কোটি ৪৫ লাখ ২০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।
কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ সাত কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে রেনেটার। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ চার কোটি ৯৮ লাখ ৫০ হাজার টাকার বিকন ফার্মার এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ চার কোটি ৯৮ লাখ ৩০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে ইউনিলিভারের।
এ ছাড়া অগ্রণী ইন্স্যুরেন্সের ১০ লাখ ৬৩ হাজার টাকার, ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকোর তিন কোটি ৬৯ লাখ ৫৩ হাজার টাকার, বিবিএস কেবলসের ১০ লাখ ৮১ হাজার টাকার, বিডি ফাইন্যান্সের ১২ লাখ ৩৬ হাজার টাকার, সিটি ব্যাংকের এক কোটি ২৪ লাখ টাকার, কনফিডেন্স সিমেন্টের সাত লাখ দুই হাজার টাকার, জিবিবি পাওয়ারের ৪৮ লাখ ৫৯ হাজার টাকার, গ্রিনডেল্টা মিউচুয়াল ফান্ডের পাঁচ লাখ টাকার, খুলনা পাওয়ারের ২৫ লাখ দুই হাজার টাকার, ম্যারিকোর দুই কোট ১০ লাখ টাকার, ন্যাশনাল পলিমারের আট লাখ ৪৬ হাজার টাকার, সিঙ্গার বিডির ১৯ লাখ ৪২ হাজার টাকার, সোনারগাঁও টেক্সটাইলের ছয় লাখ ৩৭ হাজার টাকার, স্টাইলক্রাফটের এক কোটি পাঁচ লাখ ৩৪ হাজার টাকার এবং ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ডের পাঁচ লাখ ২০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।



আরো সংবাদ