০২ মার্চ ২০২১
`

শেয়ারবাজারে বড় দরপতন

পিপলস লিজিং থেকে টাকা ফেরত পেতে আমানতকারীদের আলটিমেটাম
-

কয়েক মাস ধরে ঊর্ধ্বমুখী ধারায় চলতে থাকা দেশের শেয়ারবাজারে টানা বড় দরপতন দেখা দিয়েছে। সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস গতকাল সোমবার প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সব ক’টি মূল্যসূচকের বড় পতন হয়েছে। সেই সাথে দরপতন হয়েছে বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের। এর মাধ্যমে টানা দুই কার্যদিবস শেয়ারবাজারে বড় দরপতন হলো। টানা বড় দরপতন দেখা দিলেও এটাকে স্বাভাবিক বলছেন শেয়ারবাজার সংশ্লিষ্টরা। তাদের অভিমত, কয়েকদিন ধরে বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম টানা বেড়েছে। এতে একাধিক কোম্পানির শেয়ার দাম বেড়ে দ্বিগুণ ছাড়িয়ে গেছে। যে কারণে এসব কোম্পানিতে বিনিয়োগকারীদের একটি অংশ মুনাফা তুলে নেয়ার জন্য বিক্রির চাপ বাড়িয়েছেন। তাই কিছুটা দরপতন হয়েছে।
তারা বলছেন, এখন বাজারে কিছুটা মূল্য সংশোধন হচ্ছে। এই মূল্য সংশোধনের পর শিগগিরই বাজার ঘুরে দাঁড়াবে। তবে বাজার এখন যে পরিস্থিতিতে রয়েছে, তাতে বিভিন্ন গ্রুপ সুবিধা হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টা করবে। কেউ কেউ বাজারে বিভিন্ন গুঞ্জন ছড়ানোর চেষ্টা করবে। এ জন্য বিনিয়োগকারীদের অত্যন্ত সচেতনতার সাথে বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নিতে হবে। বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সার্বিক তথ্য পর্যালোচনা করতে হবে। সেই সাথে অতিরিক্ত লোভে পড়ে কোনো অবস্থাতেই জাঙ্ক শেয়ারে বিনিয়োগ করা উচিত হবে না।
তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, গতকাল সোমবার লেনদেনের শুরু থেকেই ব্যাংকসহ বিভিন্ন খাতের একের পর এক প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দরপতন হতে থাকে। বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের দরপতনের ধারা লেনদেনের শেষ পর্যন্ত অব্যাহত থাকে। এতে দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইতে মাত্র ৬২টি প্রতিষ্ঠান দাম বাড়ার তালিকায় নাম লেখায়। বিপরীতে দাম কমেছে ২২২টির। আর ৭২টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের দরপতনের কারণে দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক আগের দিনের তুলনায় ৪৮ পয়েন্ট কমে পাঁচ হাজার ৮০১ পয়েন্টে নেমে গেছে। এর মাধ্যমে টানা দুই দিনের পতনে ১০৭ পয়েন্ট কমে গেছে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক।
প্রধান মূল্যসূচকের পাশাপাশি টানা পতন হয়েছে ডিএসইর অপর দুই সূচকের। এর মধ্যে ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় ১৩ পয়েন্ট কমে দুই হাজার ১৯৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর ডিএসইর শরিয়াহ সূচক ৫ পয়েন্ট কমে এক হাজার ২৯৩ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। এ দিকে সূচকের বড় পতনের পাশাপাশি ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণও মোটা অঙ্কে কমেছে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে এক হাজার ৫১৯ কোটি ৫৯ লাখ টাকা, যা আগের দিন ছিল দুই হাজার ৩৮৪ কোটি ৮৭ লাখ টাকা। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে ৮৭৫ কোটি ২৮ লাখ টাকা।
টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর শেয়ার। কোম্পানিটির ২৪৯ কোটি ৮৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা রবির ২২৬ কোটি ৭৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ৯০ কোটি ৪৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে লংকাবাংলা ফাইন্যান্স।
অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্যসূচক সিএএসপিআই কমেছে ১৭৩ পয়েন্ট। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৯৮ কোটি চার লাখ টাকা। লেনদেনে অংশ নেয়া ২৫৫টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৪৩টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৬২টির এবং ৫০টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।
পিপলস লিজিং থেকে টাকা ফেরত পেতে আমানতকারীদের আলটিমেটাম : পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স কোম্পানি থেকে টাকা ফেরত পেতে ১৫ দিনের আলটিমেটাম দিয়েছেন ব্যক্তি ও ক্ষুদ্র আমানতকারীরা। গতকাল সোমবার রাজধানীর সিটি সেন্টারের সামনে ব্যক্তি ও ক্ষুদ্র আমানতকারী কাউন্সিলের ব্যানারে আয়োজিত এক মানববন্ধন থেকে এ আলটিমেটাম দেয়া হয়।
মানববন্ধনের আহ্বায়ক ও প্রধান সমন্বয়কারী মো: আতিকুর রহমান আতিক বলেন, ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের লাইসেন্সকৃত প্রতিষ্ঠান পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স কোম্পানি। কোম্পানিটি বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়োগপ্রাপ্ত একজন পরিচালকের মাধ্যমে পরিচালিত হতো। কিছু ব্যক্তি মাসের পর মাস এই ফাইন্যান্স কোম্পানি থেকে শত শত কোটি টাকা দেশ থেকে পাচার করলেন, অথচ বাংলাদেশ ব্যাংক এগুলোর খবর রাখেনি। যখনই পাচারকারীরা দেশ থেকে চলে গেছেন তখনই এই টাকার সন্ধান করা হয়। এটা থেকে প্রমাণিত হয় বাংলাদেশ ব্যাংকের যোগসাজশে টাকা পাচার হয়েছে। তিনি আলটিমেটাম দিয়ে বলেন, ‘আগামী ১৫ দিনের মধ্যে যদি আমাদের টাকা ফেরত না পাই তাহলে রাজপথে অবস্থান করব। প্রতিটি ফাইন্যান্স কোম্পানির সামনে আমরা ব্যানার টাঙিয়ে দেবো। আমরা লিখে দেবো ফাইন্যান্স কোম্পানিতে টাকা দিলে আপনি এক টাকাও ফেরত পাবেন না।একইসাথে বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে আমাদের টানা অবস্থান কর্মসূচি চলবে। অনেক ধৈর্যের পরিচয় দিয়েছি, আর পারছি না, দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। আমাদের অনেকে অসুস্থ, কেউ কেউ মারা গেছেন, কেউ চিকিৎসা করাতে পারছেন না, মেয়ে বিয়ে দিতে পারছেন না, সংসার চালাতে পারছেন না, আমাদের টাকা ফেরত দিন, আমরা বাঁচতে চাই। এ সময় দুই শতাধিক আমানতকারী উপস্থিত ছিলেন। এরপর বেলা ১টায় তারা স্মারকলিপি নিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের দিকে চলে যান।
আজ শুরু এনার্জিপ্যাকের লেনদেন : শেয়ারবাজারে এনার্জিপ্যাক পাওয়ারের শেয়ার আজ মঙ্গলবার থেকে লেনদেন শুরু হয়েছে। গতকাল সোমবার দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) থেকে এ তথ্য জানানো হয়। ডিএসই জানিয়েছে, ‘এন’ ক্যাটাগরিভুক্ত এনার্জিপ্যাক পাওয়ারের ডিএসইতে ট্রেডিং কোড হবে ‘ঊচএখ’ এবং কোম্পানি কোড হবে ১৫৩২২।
শেয়ারবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহের জন্য এনার্জিপ্যাক পাওয়ারকে গত বছর আইপিওতে শেয়ার ছাড়ার অনুমোদন দেয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। সাধারণ বিনিয়োগকারীদের নিকট দুই কোটি এক লাখ ৪৬ হাজার ৮০০টি সাধারণ শেয়ার ৩১ টাকা মূল্যে (প্রান্ত সীমা থেকে ১০ শতাংশ বাট্টায়) ইস্যু করার অনুমতি দেয়া হয়। সাধারণ বিনিয়োগকারীদের নিকট এই শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে ৬২ কোটি ৪৫ লাখ ৫০ হাজার ৮০০ টাকা উত্তোলন করবে কোম্পানিটি। এই টাকা উত্তোলন করে কোম্পানিটি ব্যবসা সম্প্রসারণ, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ এবং আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে। কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে লংকা বাংলা ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

 



আরো সংবাদ


বিদ্যুৎক্ষেত্রে চীনের হানায় অন্ধকার হয়ে গিয়েছিল মুম্বাই! বিজেপিতে যোগ দিলেন শ্রাবন্তী যেকোনো সংকটে দেশের মানুষ ঢাবির দিকে তাকিয়ে থাকে : নুর ২০২১ সালের পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতি : পর্বসংখ্যা-৩ বিজ্ঞান প্রথম অধ্যায় : আমাদের পরিবেশ বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় প্রথম অধ্যায় : আমাদের মুক্তিযুদ্ধ ২০২১ সালের অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতি : পর্বসংখ্যা-৩ এইচএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি : বাংলা প্রথম পত্র গল্প : অপরিচিতা এসএসসি পরীক্ষার লেখাপড়া : রসায়ন একাদশ অধ্যায় : খনিজ সম্পদÑ জীবাশ্ম আজ তৃতীয় দফা করোনা টেস্ট অ্যাতলেটিকো ও লিভারপুলের জয় বসুন্ধরা কিংসের খেলা মালদ্বীপে

সকল