২৫ জানুয়ারি ২০২১
`

বিএনপির মুখে দেশের সার্বভৌমত্বের কথা মানায় না : কাদের

-

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি কথায় কথায় বিভিন্ন দূতাবাসে নালিশ করে আর রাতের আঁধারে দূতাবাসের কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করে। তাদের মুখে দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের কথা মানায় না।
গতকাল বুধবার জাতীয় সংসদ ভবন এলাকায় মন্ত্রীর সরকারি বাসভবনে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। আওয়ামী লীগে গণতন্ত্রের চর্চা নেইÑ বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল বলেন, গণতন্ত্রহীনতা এবং অগণতান্ত্রিক চর্চা যাদের দলগত বৈশিষ্ট্য তাদের মুখে এ কথা ভূতের মুখে রাম নাম ধ্বনির মতো। বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন দলে এবং সরকারে তথাকথিত বিএনপি মার্কা গণতন্ত্র চর্চা তো জাতি দেখেছে। তিনি বলেন, যাদের ১৯৯৬ সালে জনগণ আন্দোলন করে ক্ষমতা থেকে নামিয়েছে তারা এখন গণতন্ত্রের সবক দিচ্ছে। বিএনপির মুখে গণতন্ত্রের কথা হাস্যকর। তারা যা করছে আসলে তা জনগণের সাথে প্রতারণা।
ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির গণতন্ত্র হচ্ছে, রাতের বেলায় কারফিউ আর নিজ দলে বছরের পর বছর কমিটি গঠনে ব্যর্থ হওয়া। আবার কমিটি গঠন হলেও তা নিয়ে নিজ দলের অফিসে নিজেরা আগুন দেয়া। জন্মলগ্ন থেকে বিএনপি গণতন্ত্রের মুখোশ পরে চললেও তাদের নেতাদের মুখচ্ছবিতে জুলুমতন্ত্র আর সুবিধাবাদের প্রতিচ্ছবি বার বার ফুটে উঠে।
ওবায়দুল কাদের, বিএনপির গণতন্ত্র চর্চার সাফল্য বলতে ‘হাওয়া ভবন’ প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে মানুষের অধিকার হরণ করে দুর্নীতি লালন-পালন ও বিকাশ কেন্দ্র। তিনি বলেন, বিএনপি নেতাদের কথা শুনলে মনে হয়, দেশটা তারা স্বাধীন করেছে। আর আওয়ামী লীগ সাইড লাইনে বসে বসে দেখেছে। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমেই এসেছে এ দেশের স্বাধীনতা এবং দেশের স্বাধীনতার সুরক্ষা আওয়ামী লীগের হাত ধরেই এসেছে।
ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির রাজনীতি এখন জনমুখী নয়, তারা এখন তাকিয়ে থাকে টেমস নদীর তীরের দিকে। বিএনপির নেতৃত্বের কোনো সক্ষমতা নেই, যেকোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণের, তারা নির্দেশ পালনকারী মাত্র। তিনি বলেন, এ দেশের রাজনীতিতে সততা আর ত্যাগের প্রতীক হচ্ছেন বঙ্গবন্ধু পরিবার। বঙ্গবন্ধু পরিবারের হাতে কোনো ভাঙ্গা স্যুটকেস ছিল না, যা থেকে বড় বড় জাহাজ বেরিয়ে আসবে, ছিল শুধু জনগণের ভালোবাসা। এ দেশের রাজনীতিতে আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধু পরিবার ত্যাগের মহিমায় সমুজ্জ্বল।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডব্লিউএইচও, এফএডি এবং ওআইই কর্তৃক ওয়ান হেলথ গ্লোবাল লিডার্স গ্রুপ অন অ্যান্টিমাইক্রোবায়াল রেজিস্ট্যান্সের (এএমআর) কো-চেয়ারম্যান মনোনীত হওয়ায় আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ওবায়দুল কাদের তাকে আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান।



আরো সংবাদ


আসন্ন বাজেটের জন্য একগুচ্ছ প্রস্তাব আইবিএফবির বিশ্বে শান্তি ফিরিয়ে আনতে মাইজভাণ্ডারীর দর্শনই হতে পারে নিয়ামক শক্তি : সাইফুদ্দীন আহমদ আল-হাসানী সাবেক শিক্ষক নুরুলের মৃত্যুতে রাজশাহী মহানগর জামায়াতের শোক গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় ৬৯’র মতো গণ-অভ্যুত্থান প্রয়োজন : জাগপা তিন বিষয়ে প্রমোশনের দাবিতে সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের অনশন পি কে হালদারের আরো দুই সহযোগী গ্রেফতার সরকারের দুর্নীতি-লুটপাট থেকে জনদৃষ্টি ভিন্ন দিকে নিতে অপপ্রচার : জামায়াত প্রতিরক্ষা খাতের পেনশন সহজীকরণে নতুন কার্যালয় উদ্বোধন বাবুল চিশতী ও ছেলে রাশেদুল চিশতী গ্রেফতার গাজীপুরে কর্মচারীকে ধর্ষণের অভিযোগে কারখানার মালিক গ্রেফতার কমলাপুরে পোশাক কারখানায় আগুন

সকল