৩০ নভেম্বর ২০২০

৫ মহিলাসহ ৮ জন নিহত

-

 

দেশের বিভিন্ন স্থানে সোমবার পৃথক দুর্ঘটনায় পাঁচ মহিলাসহ আটজন নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে পূজামণ্ডপ থেকে স্বামীর মোটরসাইকেলে ফেরার পথে দুর্ঘটনায় সুবর্ণা রানী নামে এক মহিলা নিহত হন। স্বামী ও দুই শিশু সন্তান গুরুতর আহত হয়েছে। নাটোরের লালপুরে নিহত হয়েছে মা-মেয়ে। আহত হয়েছেন ১৮ জন।
মাগুরা সংবাদদাতা জানান, মাগুরায় সড়ক দুর্ঘটনায় জুলেখা খাতুন (৪০) নামে এক গৃহবধূ নিহত ও চারজন আহত হয়েছেন। নিহত গৃহবধূ মাগুরা সদর উপজেলার লক্ষ্মীখোল গ্রামের কামরুল ইসলামের স্ত্রী।
রামনগর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক মো: শাহজালাল বাবুল জানান, সোমবার দুপুরে মাগুরা-ঝিনাইদহ সড়কের বারো মাইল এলাকায় এ দুর্ঘটনাটি ঘটে। এ সময় ঝিনাইদাহগামী একটি পরিবহন মাগুরাগামী সিএনজিকে ধাক্কা দিলে সিএনজিটি রাস্তার পাশের খাদে পড়ে যায়। স্থানীয়দের সহায়তায় আহতদের উদ্ধার করে মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক জুলেখা খাতুনকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় আহত আশরাফুল, বেলায়েত, রুমানা ও মনিরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।
রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা জানান, নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলা এশিয়ান হাইওয়ে বাইপাস সড়কের সুলপিনা এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় আব্দুল্লাহ আল মামুন (৩৬) নামে এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। গতকাল সোমবার বিকেলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ সময় আহত হয়েছেন আরো একজন। নিহত আব্দুল্লাহ আল মামুন (৩৬) খিলক্ষেত থানার পিংক সিটি এলাকার আব্দুল মান্নান মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় চালক ও হেলপারকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হলেন ফেনী সদর থানার মধুপুর গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে চালক ইয়াকুব (২৮) ও হেলপার ছোট ভাই মাসুম (২১)।
রূপগঞ্জ থানার এস আই সোহেল মোল্লা জানান, সোমবার দুপুরে মোটরসাইকেলে আব্দুল্লাহ আল মামুন ও তার সহযোগী এশিয়ান হাইওয়ে বাইপাস সড়ক দিয়ে নিজ বাড়িতে যাচ্ছিলেন। সড়কের বিপরীত দিক থেকে আসা দ্রুতগামী একটি মালবাহী কাভার্ডভ্যান মোটরসাইকেলকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল আরোহী আব্দুল্লাহ আল মামুন নিহত হন। এ সময় তার সাথে থাকা অপরজন গুরুতর আহত হন। তাৎক্ষণিকভাবে আহতের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। স্থানীয়রা আহতকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করান।
দেবীগঞ্জ (পঞ্চগড়) সংবাদদাতা জানান, পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলায় ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী সুবর্ণা রানী (২৬) নামে এক নারী নিহত হয়েছে। রোববার সন্ধ্যায় নতুন বন্দর মগবাজার এলাকায় এই দুর্ঘটনাটি ঘটে।
এ সময় মোটরসাইকেল চালক স্বামী বিরেন্দ্র নাথ রায় (৩৫) সন্তান শাওন (৬) ও কাব্য রায় (২) আহত হয়।
নিহত সুবর্ণা রানীর বাড়ি উপজেলার সোনাহার ইউনিয়নের মল্লিকাদহ গ্রামে।
পুলিশ জানায়, দুর্গাপূজা উপলক্ষে স্বামীর সাথে সন্তানকে নিয়ে বিভিন্ন মন্দিরে ঘুরতে যান সুবর্ণা। তারা বিকেলে মোটরসাইকেলে বাড়ি ফেরার পথে নতুন বন্দর মগবাজার এলাকায় পৌঁছলে পেছন দিক থেকে একটি ট্রাক তাদের ধাক্কা দেয়। এতে মোটরসাইকেলের পেছনে বসে থাকা স্ত্রী সুবর্ণা রাস্তায় ছিটকে পড়ে ঘটনাস্থলে মারা যায়। এ সময় চালক স্বামী ও সন্তান আহত হয়।
তাৎক্ষণিক স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে দেবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসক তাদের রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।
দেবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রবিউল হাসান সরকার সড়ক দুর্ঘটনায় স্ত্রী নিহত ও সন্তানসহ স্বামী আহতের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান ট্রাকটি জব্দ করা হলেও চালক পালিয়ে যায়।
চাটমোহর (পাবনা) সংবাদদাতা জানান, পাবনার চাটমোহরের গুনাইগাছা ইউনিয়নের বিশি পাড়া গ্রামে ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে নিহারা খাতুন (৪০) নামে এক মহিলার মৃত্যু হয়। মৃত নিহারা খাতুন ওই গ্রামের শুকুর আলীর স্ত্রী। চাটমোহর-মান্নান নগর সড়কে সাহেব বাজার (বিশিপাড়া) এলাকায় রোববার রাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহারার স্বজনরা জানান, স্থানীয় সাহেব বাজারে স্বামী শুকুর আলীর চায়ের দোকানে কাজে সহায়তা করতেন নিহারা। রোববার রাত সাড়ে ৭টার দিকে নিহারা কাজ শেষে স্বামীর চায়ের দোকান থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় ঘটনাস্থলে পাবনা থেকে পঞ্চগড়গামী একটি মালবাহী ট্রাকের (পাবনা-ট ১১-০৩৯৬) চাকা প্রচণ্ড শব্দে ফেটে যাওয়ায় চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললে ট্রাকটি উল্টে যায়। প্রায় ঘণ্টা খানেক পরে শুকুর আলী বাড়িতে গিয়ে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তার স্ত্রীকে না পেয়ে বিষয়টি সবাইকে জানান। রাত সাড়ে ৯টার দিকে ফায়ার সার্ভিস, থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী উদ্ধারকাজ চালানোর সময় ট্রাকের নিচ থেকে নিহারার লাশ উদ্ধার করেন। এ ব্যাপারে চাটমোহর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান, লাশ উদ্ধারের পর কোনো অভিযোগ না থাকায় স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়। ট্রাকটির চালক ও হেল্পার পলাতক রয়েছে।
লালপুর (নাটোর) সংবাদদাতা জানান, নাটোর পাবনা মহাসড়কের লালপুরে গোধড়া এলাকায় ওভারটেক করার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে ডোবায় পড়ে মা ও মেয়ে নিহত হয়েছে। আহত হয়েছেন ১০ জন।
বনপাড়া হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খন্দকার শফিকুল জানান, সকাল ৮টায় পাবনা থেকে ছেড়ে আসা চঞ্চল পরিবহন পাবনা ব-১১-০১২৩ রাজশাহীর উদ্দেশে রওনা দিলে পথে বড়াইগ্রাম লালপুর গোধরা এলাকায় ওভারটেক করার সময় এ ঘটনাটি ঘটে। নিহত মা জোসনা (৫০) ও মেয়ে রোজিনা (৩২) মুলাডুলি থেকে নাটোর মিশন হাসপাতালে গলার অপারেশন করাতে যাচ্ছিলেন। ঘটনাস্থলে মা জোসনা বেগম এবং পরে মেয়ে রোজিনা আহত অবস্থায় রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে মৃত্যু হয়। সে সময় আহতদের উদ্ধার করে এলাকার জনসাধারণ বিভিন্ন হাসপাতালে প্রেরণ করেন।
ইউএনবি জানায়, সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার মহিষলুটি বাজার এলাকায় রোববার রাতে সড়ক দুর্ঘটনায় এক যুবলীগ নেতা নিহত হয়েছেন।
নিহত টি এম কামরুল হাসান (৩৫) সগুনা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও কুন্দইল গ্রামের বাসিন্দা।
হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূরন্নবী প্রধান এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, সিরাজগঞ্জ থেকে মোটরসাইকেলে বাড়ি ফেরার পথে রাত ৯টার দিকে মহিষলুটি বাজার এলাকায় একটি ট্রাক কামরুল হাসানকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই স্বজনরা লাশ নিয়ে গেছে বলে জানান তিনি।
ইউএনবি জানায়, রাজধানীর বাড্ডা এলাকায় সোমবার সকালে সড়ক দুর্ঘটনায় অজ্ঞাত এক যুবক নিহত হয়েছেন। নিহতের বয়স আনুমানিক ৩৫ বছর।
ট্রাফিক পুলিশের কনস্টেবল মো: আজহার বলেন, সকালে ফুটওভার ব্রিজের নিচ দিয়ে রাস্তা পার হওয়ার সময় একটি গাড়ি তাকে ধাক্কা দেয়। এতে সে গুরুতর আহত হয়।
পরে আহতকে দ্রুত ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসকরা সকাল সাড়ে ৮টার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান ঢামেক পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া।

 


আরো সংবাদ