০৬ জুন ২০২০
উপেক্ষা করলে সাংগঠনিক ব্যবস্থা

বিএনপির সবপর্যায়ের কমিটি গঠন-পুনর্গঠন ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ

-

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস বাংলাদেশে সংক্রমণের কারণে দলের সকল কর্মসূচি বন্ধ রেখেছে বিএনপি। বিশেষভাবে সবপর্যায়ের কমিটি পুনর্গঠন বন্ধ ঘোষণা দিয়েছে দলটি। জাতীয় স্থায়ী কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক গত ২২ মার্চ দলটির কেন্দ্রীয় দফতর থেকে এই ঘোষণা দেয়া হয়। এই নির্দেশনা উপেক্ষা করে কেউ কমিটি গঠন করলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেবে দলটি। এমনকি কমিটি ঘোষণা হলেও সেটা বৈধ হবে না। ঘোষণা অনুযায়ী দেশব্যাপী বিএনপির সবপর্যায়ের চলমান কমিটি গঠন ও পুনর্গঠন কার্যক্রম ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।
এদিকে এহেন কঠোর নির্দেশনা উপেক্ষা করে গত শনিবার মাদারীপুর সদর উপজেলা বিএনপির ২৯ সদস্যবিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা দেয়া হয়েছে। জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট মো: জাফর আলী মিয়া নিজেদের লোকজনকে পদায়ন করার লক্ষ্যে তড়িঘড়ি করে এই কমিটি অনুমোদন দিয়েছেন। এক্ষেত্রে জেলা বিএনপির সদস্য সচিব মো: জাহান্দার আলী জাহানের অনুমোদন নেননি। ফলে এ নিয়ে স্থানীয় নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। তাদের মতে, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস নিয়ে গোটা বিশ^ এখন স্তব্ধ। বাংলাদেশের প্রথম লকডাউন হওয়া উপজেলা হচ্ছে মাদারীপুরের শিবচর। সারা দেশে চলছে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটি। ঘর থেকে বের হচ্ছে না মানুষ। দলীয় নেতাকর্মীরাও কারো সাথে কোনো ধরনের যোগাযোগ রক্ষা করতে পারছে না। সেখানে এই কঠিন পরিস্থিতির মধ্যেও জেলা বিএনপির আহ্বায়ক মো: জাফর আলী মিয়া মাদারীপুরের সদর উপজেলা বিএনপির কমিটি ঘোষণা করে মূলত প্রশ্নের জন্ম দিয়েছেন। তিনি কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তকে বৃদ্ধাঙুলি দেখিয়েছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেলার কয়েকজন নেতা এই প্রতিবেদককে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, মহামারী করোনা থেকে রক্ষায় এই মুহূর্তে মানুষের নিরাপত্তাই প্রধান বিষয়। করোনা ইস্যুতে গোটা বিশ^ এখন অস্থির। যেখানে বিএনপি কেন্দ্রীয়ভাবে সারা দেশে কমিটি পুনর্গঠন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেখানে মাদারীপুর জেলার আহ্বায়ক সদর উপজেলা বিএনপি কমিটি দিয়ে চরম ধৃষ্টতা দেখিয়েছেন। তারা অবিলম্বে এই কমিটি বাতিলের দাবি জানান। এছাড়া কৌশলে কমিটি ২০ মার্চ অনুমোদন করে তা প্রকাশ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। জানতে চাইলে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট মো: জাফর আলী মিয়াকে একাধিকবার মোবাইলে কল দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি।
দলীয় নির্দেশনা উপেক্ষা করে মাদারীপুর সদর উপজেলা বিএনপির কমিটি গঠনের বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির ফরিদপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ নয়া দিগন্তকে বলেন, আমরা বিষয়টি অবগত আছি। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সারা দেশে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত সকল প্রকার কমিটি পুনর্গঠন কার্যক্রম বন্ধ রেখেছে বিএনপি। এখন নেতাকর্মী তো দূরে থাক সাধারণ মানুষ ঘরে বন্দী। কারো সাথে কারো সাক্ষাৎ হচ্ছে না। করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সবার আগে মাদারীপুরের শিবচর উপজেলাকে লকডাউন ঘোষণা দিয়েছে সরকার। এরপরও মাদারীপুর সদর উপজেলা কমিটি গঠন করাটা অন্যায়। এটা ঠিক হয়নি। কেননা স্থানীয় অনেকেই আমাকে এ নিয়ে ফোন করে দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। বিষয়টি ইতোমধ্যে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিবকেও জানানো হয়েছে। আমরা সংশ্লিষ্টদেরকে কমিটিকে স্থগিত করতে বলেছি। পরবর্তীতে বসে সবাই মিলে কমিটি পুনর্গঠন করা হবে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।
বিএনপির দফতর সূত্র জানায়, ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর দলকে সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী করতে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। বিএনপি সহ কেন্দ্রীয় অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যন্ত কাউন্সিলের মাধ্যমে কমিটি গঠনের উদ্যোগ নেন তিনি। বিএনপির ৮২টি সাংগঠনিক জেলা কমিটির মধ্যে ২৬টির আহ্বায়ক কমিটি এবং ১০টির পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়েছে। এরমধ্যে নীলফামারী, হবিগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, নওগাঁ, যশোর, বগুড়া, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জ, সৈয়দপুর, পাবনা, রাজশাহী, নেত্রকোনা, পঞ্চগড়, ঝিনাইদহ ও মাগুরা জেলাসহ আরো কয়েকটি জেলা কমিটির মেয়াদ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। তবে নির্ধারিত সময়ে কমিটি পূর্ণাঙ্গ করতে না পারায় ১৬টি জেলার নেতাদের শোকজ নোটিশ দিয়েছে বিএনপি।
উল্লেখ্য যে, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে করণীয় এবং জনসচেতনতামূলক সর্বপ্রথম লিফলেট বিতরণ শুরু করে বিএনপি। জনসমাগম এড়িয়ে দলীয় সভা-সমাবেশও স্থগিতের পাশাপাশি জেলা-উপজেলায় কোনো শোডাউন না করারও পরামর্শ দেয়া হয়। অতঃপর দলীয় নেতাকর্মীদের নিরাপত্তার কথা ভেবে সাংগঠনিক পুনর্গঠন কার্যক্রম বন্ধ নাখার সিদ্ধান্ত নেয় দলটি। গত ২১ মার্চ শনিবার সন্ধ্যায় গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বিএনপির সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক হয়। বৈঠকে লন্ডন থেকে স্কাইপের মাধ্যমে যুক্ত হওয়া বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সভাপতিত্বে বিভিন্ন বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা ও সিদ্ধান্ত হয়। একপর্যায়ে সংগঠন গোছানোর কার্যক্রম কিছুদিনের জন্য বন্ধের ঘোষণা দেয় বিএনপি। পরদিন ২২ মার্চ দলের প্যাডে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়- এই মর্মে বিএনপির পক্ষ থেকে জানানো যাচ্ছে যে, দেশব্যাপী বিএনপির সকল পর্যায়ের চলমান কমিটি গঠন ও পুনর্গঠন কার্যক্রম আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।
সেসময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ^রচন্দ্র রায় নয়া দিগন্তকে বলেন, মহামারী করোনাভাইরাস নিয়ে সারা বিশ^ এখন নিরুপায়। বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসের কারণে মানুষ এখন ঘর থেকে বের হচ্ছে না। কে কখন আক্রান্ত হয় বলা যায় না। এমন বিপর্যস্ত অবস্থায় আমরা সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করলে তা হবে অসামঞ্জস্যপূর্ণ। সুতরাং আমরা দলীয় ফোরামে বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনায় নিয়ে সংগঠন গোছানোর কার্যক্রম স্থগিত করেছি।


আরো সংবাদ





justin tv