২৫ মে ২০২০

ভারতে আটকা পড়া বাংলাদেশীদের ঢাকায় আনা হচ্ছে

থাকতে হবে কোয়ারেন্টিনে
-

চিকিৎসার জন্য ভারতে গিয়ে আটকে পড়া বাংলাদেশীদের ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। তবে ফিরে আসা বাংলাদেশীদের রাজধানীর আশকোনা হাজী ক্যাম্পে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। আর অসুস্থদের চিকিৎসা হবে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল বা সরকার নির্ধারিত অন্য কোনো হাসপাতালে।
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম গতকাল ফেসবুক বার্তায় এ সব কথা জানান। তিনি বলেন, ভারতে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ। আমরা শুনতে পাচ্ছি চিকিৎসা নিতে গিয়ে সেখানে কিছু বাংলাদেশী আটকা পড়েছেন। দিল্লিতে বাংলাদেশ হাইকমিশন ইতোমধ্যে আটকে পড়া বাংলাদেশীদের প্রাথমিক তালিকা প্রস্তুত করেছে। এই তালিকা চূড়ান্ত করতে ভারতে আটকা পড়া বাংলাদেশীদের বিস্তারিত তথ্য দিল্লি হাইকমিশনে টেলিফোনের মাধ্যমে (৮৫৯৫৫-৫২৪৯৪) জানানোর অনুরোধ করা হচ্ছে।
শাহরিয়ার আলম জানান, পূর্ণ তালিকা পেলে আমাদের পরবর্তী পদক্ষেপ নিতে সুবিধা হবে। ঢাকায় ফিরিয়ে না আনা পর্যন্ত ভারতের স্থানীয় কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে বাংলাদেশীদের দেখভালের বিষয়টি নিশ্চিত করার চেষ্টা করা হবে।
মার্কিন নাগরিকরা ঢাকা ছাড়ছেন : বাংলাদেশে অবস্থানরত মার্কিন নাগরিকরা ঢাকা ছাড়ছেন। আজ সোমবার একটি ভাড়া করা বিমানে (চার্টার্ড ফ্লাইট) তারা যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে রওনা হবেন। ঠিক কতজন যাত্রী নিয়ে বিমানটি ঢাকা ছেড়ে যাবে তা জানা সম্ভব না হলেও মার্কিন দূতাবাস বলেছে, ফ্লাইটটি ভর্তি অবস্থায় যাবে।
এ ব্যাপারে ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে মার্কিন দূতাবাসের একজন মুখপাত্র জানান, বিশ্বের ২৮টি দেশ থেকে ১০ হাজারেরও বেশি মার্কিন নাগরিককে ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে ফিরিয়ে নেয়া হয়েছে। বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে যেতে ইচ্ছুক মার্কিন নাগরিকদের নিয়ে সোমবারের ফ্লাইটটি ছাড়বে। এদের মধ্যে পর্যটনসহ বিভিন্ন কাজে বাংলাদেশে আসা মার্কিন নাগরিক ছাড়াও কূটনীতিকরা রয়েছেন।
যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে করোনাভাইরাস ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়ছে। সেই তুলনায় বাংলাদেশে এ রোগের প্রকোপ কম। এই পরিপ্রেক্ষিতে কেন মার্কিন নাগরিকরা যুক্তরাষ্ট্র ফিরতে চাইছে, জানতে চাইলে মুখপাত্র বলেন, এটি সবার ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। যুক্তরাষ্ট্র সরকার কাউকে জোর করে দেশে ফেরত নিচ্ছে না। একেকজনের পরিস্থিতি একেকরকম। যারা পর্যটক এবং যাদের পরিবার এখানে নেই, তারা তাদের পরিবারের কাছে ফিরে যেতে চাইছে। আবার কূটনীতিকদের মধ্যে অনেকেই তাদের পরিবারের জন্য যুক্তরাষ্ট্র যাচ্ছেন।
ঢাকায় মার্কিন দূতাবাসের কার্যক্রমে কোনো ব্যাঘাত ঘটবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা নিয়মিত ভিসা সেবা স্থগিত করেছি। তবে জরুরি সেবা অব্যাহত রয়েছে। বাংলাদেশে অবস্থানকারী মার্কিন নাগরিকদের সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করা দূতাবাসের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার।
মুখপাত্র বলেন, চার্টার্ড ফ্লাইটে যেতে ইচ্ছুক মার্কিন নাগরিকদের ঢাকায় বিমানবন্দরে মেডিক্যাল চেকআপ করা হবে। এ ছাড়া কারো জ্বর থাকলে বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষের নিয়ম অনুযায়ী বিমানবন্দরে প্রবেশের সুযোগ থাকে না। তাই হাতে বেশ খানিকটা সময় নিয়েই বিমানবন্দরে আসতে মার্কিন নাগরিকদের পরামর্শ দেয়া হয়েছে।
তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য খাতে সহায়তা দিয়ে আসছে। করোনাভাইরাস মোকাবেলায় উন্নয়ন সহযোগীদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রেই প্রথম বাংলাদেশকে ২৫ লাখ ডলার সহায়তা দিয়েছে।


আরো সংবাদ





maltepe evden eve nakliyat knight online indir hatay web tasarım ko cuce Friv gebze evden eve nakliyat buy Instagram likes www.catunited.com buy Instagram likes cheap Adiyaman tutunu