২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৫ শাবান ১৪৪৫
`

ইবির প্রধান ফটকে আবারো খেলোয়াড়দের তালা

ইবির প্রধান ফটকে আবারো খেলোয়াড়দের তালা। - ছবি : নয়া দিগন্ত

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) আন্তঃবিভাগ টুর্নামেন্ট আয়োজন ও আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় টুর্নামেন্টের সকল ইভেন্টে অংশগ্রহণের দাবিতে আবারো প্রধান ফটকে তালা দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের খেলোয়াড়রা।

রোববার (৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুর দেড়টার দিকে এ আন্দোলন শুরু করেন তারা। পরে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের বহনকারী বাসগুলো আটকা পড়লে ভোগান্তির শিকার হন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। এদিকে সরকারের ব্যয়সংকোচন নীতির কারণে সকল দাবি মেনে নিতে না পারলেও কিছু দাবি বাস্তবায়নের কাজ চলছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

জানা গেছে, এর আগে গত ২৫ জানুয়ারি আন্তঃবিভাগ টুর্নামেন্টের দাবিতে প্রধান ফটকে তালা দেন খেলোয়াড়রা। এর পরিপ্রেক্ষিতে আন্তঃবিভাগ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট আয়োজনের ঘোষণা দেয় কর্তৃপক্ষ। এদিকে ১০দিনের ব্যবধানে রোববার দুপুরে আবারো প্রধান ফটকে তালা দেন খেলোয়াড়রা।

এ সময় তারা দাবি করেন, ‘আন্তঃবিভাগ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট শুরুর ঘোষণা দিলেও অন্য খেলাগুলো নিয়ে কোনো পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে না। এছাড়া তাদেরকে আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় টুর্নামেন্টে সকল ইভেন্টে অংশগ্রহণ করতে দেয়া হচ্ছে না।‘ এ সময় তাদের দাবি না মানা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া ঘোষণা দেন খোলোয়াড়রা।

এদিকে প্রধান ফটকে তালা দেয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী বহনকারী দুপুর ২টার বাসগুলো আটকে পড়ে। এতে ভোগান্তিতে পড়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন আটকে পড়া শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

এ বিষয়ে এক শিক্ষক বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের দাবি-দাওয়া থাকতেই পারে, কিন্তু অন্যদের ভোগান্তিতে ফেলে এভাবে আন্দোলন করা যুক্তিসঙ্গত পন্থা নয়।’

পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. শাহাদৎ হোসেন আজাদ খেলোয়াড়দের সাথে আলোচনায় বসার শর্তে তালা খুলে দেয়া হয়। পরে খেলোয়াড়দের সাথে আলোচনায় বসে প্রক্টর ও শারীরিক শিক্ষা বিভাগের পরিচালক। এ সময় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাত ও সাধারণ সম্পাদক নাসিম আহমেদ জয় খেলোয়াড়দের পক্ষে আলোচনায় অংশ নেয়। এছাড়া তিন সহ-সভাপতিসহ ডজনখানেক ছাত্রলীগ নেতা সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে শারীরিক শিক্ষা বিভাগের পরিচালক ড. মোহাম্মদ সোহেল বলেন, ইউজিসি থেকে আমাদের যে বাজেট দেয়া হয়েছে তার সিংহভাগ বঙ্গবন্ধু চ্যাম্পিয়নশিপে খরচ হয়ে গেছে। সরকারের ব্যয়সংকোচণ নীতির কারণে বৃহৎ পরিসরে সকল খেলা বাস্তবায়ন করা কষ্টকর। তারপরেও আমি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে বলেছি, তারা বিষয়টি দেখছেন।

প্রক্টর অধ্যাপক ড. শাহাদৎ হোসেন আজাদ বলেন, ‘কথায় কথায় ফটকে তালা দেয়ার সংস্কৃতি থেকে বের হয়ে আসতে হবে। তাদের দাবি নিয়ে তারা আমার সাথে কোনো কথা না বলেই প্রধান ফটকে তালা দিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ভোগান্তিতে ফেলেছেন। ভিসির শিডিউল নিয়ে তাদের সাথে আলোচনার ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানান তিনি।


আরো সংবাদ



premium cement
মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণায়ের নাম ‘নারী ও শিশু বিষয়ক’ মন্ত্রণালয় রাখার সুপারিশ ফরিদপুরে হত্যা মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন অশ্বিন-কুলদীপের ঘূর্ণিতে সিরিজ জয় থেকে ১৫২ রান দূরে ভারত ফরিদপুরে মাদক মামলায় নারীর যাবজ্জীবন প্রাথমিকে ১০ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে ‘ছোট্ট’ জ্যোতির মুখোমুখি বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা পুরুষ! টাঙ্গাইল শাড়ির জিআই নিবন্ধন বিষয়ে বাংলাদেশের করণীয় বিষয়ে মত বিনিময় সভা সন্দেহজনক লেনদেনের অর্থ কোথায় যায়! পাকিস্তানে অধিবেশনের আগে ‘সংরক্ষিত আসন বণ্টন’ চান প্রেসিডেন্ট আলভি ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে আগামীকাল মুখোমুখি হবে কুমিল্লা-রংপুর নোয়াখালীতে ভোটের রাতে গৃহবধূকে দলবদ্ধ ধর্ষণ : সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেফতার

সকল