০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

স্বামী-শ্বশুরের বিরুদ্ধে মামলার পর মুখে ‘অ্যাসিড’ নিক্ষেপের অভিযোগ

স্বামী-শ্বশুরের বিরুদ্ধে মামলার পর মুখে ‘অ্যাসিড’ নিক্ষেপের অভিযোগ - নয়া দিগন্ত

চুয়াডাঙ্গায় পূর্ববিরোধের জের ধরে আশানুর বেগম (৪০) নামের এক নারীর মুখে ‘অ্যাসিড’ নিক্ষেপের অভিযোগ উঠেছে। গত রাতে ৯টার দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার হানুরবাড়াদি গ্রামের কাজীপাড়ার এ ঘটনা ঘটে। এসময় পরিবারের সদস্যরা তাকে দ্রুত উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়। ‘অ্যাসিড’ নিক্ষেপের শিকার আশানুর বেগম হানুরবাড়াদি গ্রামের কাজীপাড়ার মৃত মিয়াজান কাজীর মেয়ে ও কুষ্টিয়ার ইবি থানার পাটিকাবাড়ি গ্রামের নবিসউদ্দীনের ছেলে সিদ্দিকুর রহমানের স্ত্রী।

‘অ্যাসিড’ নিক্ষেপের শিকার আশানুর বেগম চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অভিযোগ করে বলেন, ‘আমার দ্বিতীয় স্বামী সিদ্দিক, শ্বশুর নবিসউদ্দীন ও ননদ ফাহিমার নামে যৌতুক ও নির্যাতন মামলা করেছি। সে মামলা আদালতে চলছে। আমি এখন আমার বাপের বাড়িতেই থাকি। রাত নয়টার দিকে আমার ভাইয়ের বাড়ি থেকে রাতের খাবার খেয়ে রাস্তা দিয়ে হেঁটে নিজ বাড়িতে ফিরছিলাম। এসময় বাড়ির সামনেই রাস্তার ওপরে মোটরসাইকেল নিয়ে দুই-তিনজন দাঁড়িয়ে ছিল। আমি মোবাইলের আলো জ্বেলে তাদের দিকে দেখার সাথে সাথে আমার ভাসুর বিদ্যুতের ছেলে আপন (১৭) আমার মুখে অ্যাসিড ছুরে মোটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায়। আমার ভাশুরের ছেলেকে চিনতে পারলেও তার সাথে থাকা আর কাউকে চিনতে পারিনি। এসময় আমি চিৎকার করলে আমার ভাই ও প্রতিবেশিরা আমাকে হাসপাতালে নেয়ে আসে।’

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. আল ইমরান জুয়েল বলেন, ‘রাত সাড়ে ১০টার দিকে পরিবারের সদস্যরা আশানুর বেগমকে জরুরি বিভাগে নেয়। পরিবারের সদস্যরা জানায় তার মুখে অ্যাসিড নিক্ষেপ করা হয়েছে। তরল দাহ্য কিছু পড়ে আশানুরের মুখের ওপর থেকে থুতনি পর্যন্ত রেখার মতো আকারে চামরার উপরের অংশ পুড়ে গেছে। প্রাথমিকভাবে ‘অ্যাসিডে’ পোড়া বলে ধারণা করা হচ্ছে। জরুরি বিভাগ থেকে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দিয়ে পরবর্তী চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।’


আরো সংবাদ


premium cement