২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯, ২ রবিউল আওয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

পাইকগাছায় স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁধ মেরামত : অরক্ষিত এলাকা প্লাবিত

পাইকগাছায় স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁধ মেরামত : অরক্ষিত এলাকা প্লাবিত - ছবি : নয়া দিগন্ত

খুলনার পাইকগাছায় বৈরী আবহাওয়া ও শিবসা নদীতে জোয়ারের পানি অস্বাভাবিক আকারে বেড়ে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ স্বেচ্ছাশ্রমে সংস্কার করেছে এলাকাবাসী।

সোমবার উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে এলাকাবাসী স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁধ সংস্কার করে। এতে সরঞ্জমাদি সরবরাহ করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)।

এদিকে জোয়ারের চাপে উপজেলার মাহমুদকাটি ও রামনাথপুরের বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হলেও এখনো সেখানকার বাঁধ মেরামতে কোনো প্রকার ব্যবস্থা নেয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

এর আগে রোববার দুপুরে বৈরী আবহাওয়ায় প্রবল জোয়ারের চাপে শিবসার সোলাদানা ইউনিয়নের পাউবোর ২৩ নম্বর পোল্ডারের বয়ারঝাঁপা এলাকার ভাঙ্গাহাড়িয়া নামক স্থানে প্রায় ৩০ ফুট ওয়াপদার বাঁধ ভেঙে ও কপোতাক্ষের মাহমুদকাটি ও রামনাথপুরে উপচে পড়া পানি লোকালয়ে প্রবেশ করে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়। এ সময় ভেসে যায় ছোট-বড় বহু মৎস্য ঘের। পানিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে অনেক বসতঘর।


পাইকগাছা কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্বেচ্ছাসেবক মো: রমজান সরদার জানান, সোলাদানা ইউনিয়নটি মূলত দ্বীপবেষ্টিত অঞ্চল। ফলে প্রায় সারা বছরই প্রাকৃতিক দুর্যোগে এখানকার কোনো না কোনো এলাকা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বর্তমানে এই এলাকার প্রায় ৩০ কিলোমিটার বাঁধ ঝুঁকিপূর্ণ। বেতবুনিয়া আবাসন প্রকল্প থেকে শুরু করে বরইতলা, পাটকেলপোতা, সোলাদানা, আমুড়কাটা হয়ে সোনাখালী পর্যন্ত ৩০ কিলোমিটার টেকসই বাঁধ নির্মিত হলে দফায় দফায় ভাঙনের হাত থেকে এলাকাবাসী স্থায়ীভাবে মুক্তি পাবে।

সোলাদানা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান গাজী জানান, শিবসা নদীর তীরবর্তী বয়ারঝাঁপার ভাঙ্গাহাড়িয়া এলাকায় ওয়াপদার দুর্বল বেড়িবাঁধটি রোববার ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। সোমবার সকালে উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে এলাকাবাসী স্বেচ্ছাশ্রমে ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ প্রাথমিকভাবে মেরামত করেন।

হরিঢালী ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য শংকর বিশ্বাস জানান, রোববার প্রবল জোয়ারে লোনা পানি ঢুকে মাহমুদকাটির জেলে পল্লীসহ রামনাথপুর এলাকার বহু বাড়ি-ঘর প্লাবিত হয়ে মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো: রাজু হাওলাদার জানান, পাইকগাছা উপজেলার ছয়টি পোল্ডারে মোট ২৫০ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ রয়েছে। তার মধ্যে মোট ৩৩ কিলোমিটার বাঁধ অতিরিক্ত ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের তত্বাবধানে স্থানীয়দের স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে পাউবোর সরবরাহকৃত সরঞ্জামাদি ব্যবহার করে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধটি প্রাথমিকভাবে মেরামত করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।


আরো সংবাদ


premium cement