২২ মে ২০২২
`

জীবননগরে বাওড়ে নৌকা ডুবে পাহারাদারের মৃত্যু

জীবননগরে নৌকা ডুবে বাওড় পাহারাদারের মৃত্যু - ছবি : নয়া দিগন্ত

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার বেনীপুর বাওড় পাহারাদার বাদল গোলদার (৩৫) শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে পানিতে ডুবে মারা গেছেন।

শনিবার রাতে বাদলসহ আরো ২-৩ জন প্লেনশিট দিয়ে তৈরি ইঞ্জিনচালিত নৌকায় করে বাওড় পাহারা দেয়ার সময় হঠাৎ নৌকা পানিতে তলিয়ে যায়। নৌকার সাথে বাদল গোলদার ও অন্যান্যরা পানিতে তলিয়ে যান। পরে তার লাশ পানি থেকে উদ্ধার করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, জীবননগর উপজেলার সীমান্ত ইউনিয়নের গঙ্গাদাসপুর গ্রামের রেজাউল গোলদারের একমাত্র ছেলে বাদল গোলদার সম্প্রতি বেনীপুর বাওড়ে পাহারাদার হিসাবে নিযুক্ত হন। বাদল অন্যান্য দিনের মত শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে সহযোগী সাজ্জাদ হোসেন সাজু ও মাসুমকে সাথে নিয়ে ইঞ্জিনচালিত নৌকায় বাওড়ের চারিদিক ঘুরে ঘুরে দেখছিলেন। এ সময় হঠাৎ তাদের নৌকাটি পানিতে তলিয়ে যায়।

এ সময় প্রত্যক্ষদর্শীরা অপর একটি নৌকাযোগে সাজু ও মাসুমকে উদ্ধার করতে পারলেও পাহারাদার বাদল পানিতে তলিয়ে যান। পরবর্তীতে বাদলের লাশ বাওড় থেকে উদ্ধার করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে, বাদল গোলদারের গায়ে মোটা শীতবস্ত্র থাকায় পানিতে ডুবে তা আরো বেশি ভারী হওয়ার কারণে তিনি নিচে তলিয়ে যান।

দুর্ঘটনার শিকার সাজ্জাদ হোসেন সাজু ও মাসুম বলেন, আমরা তিনজন নৌকাযোগে বাওড়ের চারদিকে পাহারা দেয়ার সময় হঠাৎ করেই নৌকাটি পানিতে তলিয়ে যায়। এ সময় আমরা ‘বাঁচাও বাঁচাও’ বলে চিৎকার দিতে থাকি। পরে লোকজন আমাদেরকে আধা-মরা অবস্থায় উদ্ধার করেন। আমরা মৃত্যুর হাত থেকে ফিরে এসেছি।

বাদলের লাশ পানি থেকে তোলার পর তার গায়ে থাকা শীতবস্ত্র পানিতে ভিজে ভারী হয়ে ছিল দেখতে পাওয়া যায়।

সীমান্ত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইসাবুল ইসলাম মিল্টন মোল্যা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাটি একটি দুর্ঘটনা। বাদল বাওড়ের একজন নিয়মিত গার্ড হিসাবে কাজ করতেন।

জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল খালেক বলেন, বাদল গোলদারের লাশ সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা মর্গে পাঠানো হয়েছে।


আরো সংবাদ


premium cement