১৯ মে ২০২২, ০৫ জৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩
`

পাইকগাছায় গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

পাইকগাছায় গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু - ছবি : সংগৃহীত

পাইকগাছার কপিলমুনিতে ছিন্নমূল পরিবারের রেশমা আক্তার (২২) নামে এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। পারিবারিক সূত্র বলছে, রোববার (১৬ জানুয়ারি) সকালে খেজুরের রস খাওয়ার পর থেকে তার পেটে ব্যথা শুরু হয়। এরপর হাসপাতালে নেওয়ার পথে দুপুর আনুমানিক ২টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

এদিকে মৃত্যুর খবর পেয়ে থানা পুলিশ কাশিমনগরস্থ তার মায়ের ঘরের সামনে থেকে লাশ উদ্ধার করে সুরোতহাল রিপোর্ট শেষে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কপিলমুনির কাশিমনগর গ্রামের ছিন্নমূল মৃত কওছার আলী গাজীর মেয়ে রেশমার (২২) গত বছর তালার রায়পুর গ্রামের মৃত আলম গাজীর ছেলে রেজাউল গাজীর সাথে বিয়ে হয়। এর আগে রেশমার আরো একবার বিয়ে হয়েছিল। ওই সংসারে তার ৫ বছরের মুক্তা নামের এক মেয়ে রয়েছে। রেজাউলেরও আগে আরো এক বিয়ে রয়েছে। সেপক্ষের তার ৩ ছেলে রয়েছে। যাদের একজন বিবাহিত। পরিবারের অমতে রেজাউল স্ত্রী-সন্তান রেখে বিয়ে করায় প্রথম থেকেই তাদের পারিবারিক কলহ চলে আসছে। সে কারণে রেজাউল রেশমাকে নিয়ে প্রথম থেকেই কাশিমনগর বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে ভাড়া বাসায় নিয়ে থাকতো।

স্থানীয় সূত্রে আরো জানা যায়, ঘটনার আগের দিন ১৫ জানুয়ারি রেশমা ও তার শিশু মেয়েকে নিয়ে তার স্বামী রেজাউল তালার কপোতাক্ষ পাড়ের কানাইদিয়ায় তার অপর বোন সালমাদের বাড়িতে বেড়াতে যায়। সকালে তার ভগ্নিপতি খেজুরের রস নিয়ে এলে অন্যদের সাথে রেশমাও তা খায়। তবে রস খাওয়ার পর অন্য কারো কোনো সমস্যা না হলেও তার পেটে ব্যথা শুরু হয়। ক্রমান্বয়ে ব্যথা বাড়তে থাকলে তার স্বামী তাকে সেখানে ফেলে বাড়িতে চলে যায়। এরপর তার অবস্থা খারাপ হতে থাকলে ভগ্নিপতি মতলেব মোড়ল তাকে চিকিৎসার জন্য নদী পার হয়ে কপিলমুনি হাসপাতালে নেয়। এসময় হাসপাতালে কোনো ডাক্তার না থাকায় অন্যত্র নেয়ার প্রস্তুতি নিলে হাসপাতালের সামনেই তার মৃত্যু হয়।

মৃত রেশমার বোন সালমা জানায়, রাতে রেশমা ভাত খেলেও তার স্বামী রেজাউল না খেয়ে একই ঘরে ঘুমিয়ে পড়ে। তবে সকালে রেজাউল ভাত খায়। কিন্তু রেশমা খেজুরের রস খেয়েছে কি না তা সে দেখেনি।

পাইকগাছা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জিয়াউর রহমান জিয়া জানান, লাশের ময়নাতদন্ত শেষে মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে জানা যাবে। এ ঘটনায় থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে।


আরো সংবাদ


premium cement