২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮ আশ্বিন ১৪২৮, ১৫ সফর ১৪৪৩ হিজরি
`

বাগেরহাটে ১৬ হাজার ঘেরের মাছ ভেসে গেছে


অতিবৃষ্টি ও প্রবল জোয়ারের পানিতে ভেসে গেছে বাগেরহাটের ১৬ হাজার ঘেরের মাছ। এতে প্রায় ১১ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা মৎস্য বিভাগ। সংশ্লিষ্টরা আরো বলছে, শুধু এবারই নয়, প্রতিবছর প্রাকৃতিক দুর্যোগে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ছেন বাগেরহাটের মাছ চাষিরা।

শুক্রবার বাগেরহাট মৎস্য বিভাগের বিভাগীয় মৎস্য কর্মকর্তা (ডিএফও) এ এস এম রাসেল জানান, গত দু’দিনের অতিবৃষ্টি ও প্রবল জোয়ারের পানিতে জেলার রামপাল, মোংলা, শরণখোলা, মোরেলগঞ্জ ও বাগেরহাট সদর উপজেলার ৪৭টি ইউনিয়নের মাছের ঘের পানিতে ভেসে গেছে। এর মধ্যে রয়েছে সাড়ে সাত হাজার পুকুর, নয় হাজার চিংড়ির ঘের।

রামপাল উপজেলার বাঁশতলি গ্রামের মাছ চাষি মোস্তাফিজুর রহমান ৫০ বিঘা জমিতে ঘেরে মাছের চাষ করেছিলেন। গত তিন দিনের টানা বৃষ্টিতে মাছের ঘের তলিয়ে গেছে। পানিতে ভেসে গেছে মাছ। এতে তার অন্তত পাঁচ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

ওই এলাকার চাষি পাভেল হোসেন পাঁচ বিঘা জমির ঘেরে গলদা, বাগদা ও সাদা মাছ চাষ করেছিলেন। তিনি বলেন, ‘বাগদা চিংড়ি বড় হয়ে উঠেছিল। বাজারে বিক্রিও শুরু করেছিলাম। কিন্তু গত তিন দিনের টানা বর্ষণে ঘের ডুবে মাছ বের হয়ে গেছে। এই ক্ষতি কিভাবে কাটিয়ে উঠবো বুঝতে পারছি না।’

মোরেলগঞ্জ উপজেলার বহরবুনিয়া এলাকার ঘের মালিক শেখ হুমায়ুন কবির জানান, দেড় শ’ বিঘা জমিতে মাছ চাষ করেছেন তিনি। গত মে মাসে ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে জোয়ারের পানিতে ঘের তলিয়ে মাছ ভেসে যায়। এবার টানা বৃষ্টিতে আবারো একই অবস্থা। তিনি বলেন, ‘প্রতিবছর দুর্যোগে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ছি। দুর্যোগ পিছু ছাড়ছে না উপকূলের মানুষদের।’

বাগেরহাট জেলা চিংড়ি চাষি সমিতির সভাপতি ফকির মহিতুল ইসলাম জানান, বাগেরহাটে টানা বৃষ্টির পানিতে কয়েক হাজার মাছের ঘের ভেসে যাওয়ায় কয়েক কোটি টাকার আর্থিক ক্ষতি হয়েছে চাষিদের। তিনি বলেন, বারবার দুর্যোগে মাছ চাষিরা সর্বশান্ত হয়ে যাচ্ছে। দেশের রফতনি আয়ের বড় ভূমিকা রাখে বাগেরহাট জেলা। অনেক চাষি ব্যাংক ও এনজিও থেকে ঝণ নিয়ে মাছের চাষ করে থাকেন।’ তাই এই খাতকে টিকিয়ে রাখতে সুদমুক্ত ঋণের ব্যবস্থা করতে সরকারের কাছে দাবি জানান বাগেরহাট জেলা চিংড়ি চাষি সমিতির সভাপতি মহিতুল।

বাগেরহাট মৎস্য বিভাগের বিভাগীয় মৎস্য কর্মকর্তা (ডিএফও) এ এস এম রাসেল বলেন, সব মিলিয়ে মাছের ঘের ভেসে প্রায় ১১ কোটি টাকার ক্ষতির হিসাব পেয়েছি। বৃষ্টিপাতের ধারা অব্যাহত থাকলে ক্ষতির পরিমাণ আরো বাড়তে পারে। বাগের হাটে মোট ৬৭ হাজার মাছের ঘের রয়েছে বলেও জানান তিনি।

এ এস এম রাসেল বলেন, গত মে মাসে ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের জোয়ারের পানিতে বাগেরহাটের ছয় হাজারের বেশি মাছের ঘের ভেসে যায়। তখন চাষিদের অন্তত নয় কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়।

সূত্র : ডয়েচে ভেলে



আরো সংবাদ


ইরানের জেনারেল সোলাইমানির হত্যাকারী মার্কিন ও ইসরাইলি ২ কমান্ডার নিহত (২০৬৪১)মুস্তাফিজদের দারুণ বোলিংয়ে রোমাঞ্চকর লড়াই জিতল রাজস্থান (৮৫৩২)অন্য দেশে পাচার হচ্ছে আফগান সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার ও সাঁজোয়াযান (৮০৯৩)ফিলিস্তিন রাষ্ট্র ইসরাইলের সাথে সংঘাত সমাধানের ‘উত্তম পন্থা’ : বাইডেন (৭৯৭৯)সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে জাতিসঙ্ঘকে চিঠি দিল তালেবান (৭৭২৬)অন্যদেশে পাচার হচ্ছে আফগান সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার ও সাঁজোয়াযান (৬৯৩৪)শিশু সন্তানকে হত্যা পর মায়ের আত্মহত্যা (৬৫৩৫)ড. মাহফুজুরকে ছেড়ে আসায় ট্রল, যা বললেন ইভা (৬১২৫)নতুন ঘরে বসবাস করা হলো না স্বামী-স্ত্রীর (৫৯৭২)জামায়াতের কাছে হারল আ’লীগ প্রার্থী (৫৬৪৫)