১৯ এপ্রিল ২০২১
`

কুষ্টিয়ায় ট্রেন-ট্রলি সংঘর্ষ, বিকল্প ব্যবস্থায় চলছে ট্রেন

কুষ্টিয়ায় ট্রেন-ট্রলি সংঘর্ষ, বিকল্প ব্যবস্থায় চলছে ট্রেন -

কুষ্টিয়ায় মালবাহী ট্রেনের সাথে রেলওয়ে ট্রলির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। এতে মালবাহী ট্রেনের পাঁচটি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। তবে কোনো প্রাণহানির ঘটনা ঘটেনি। ওই লাইনে রেল চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে বিকল্প ব্যবস্থায় রেল চলাচল স্বাভাবিক রাখা হয়েছে।

শুক্রবার দুপুর দেড়টার দিকে কুষ্টিয়া বড় স্টেশন সংলগ্ন মিলপাড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, মালবাহী ট্রেনে ২২টি বগি ছিল। প্রতিটি বগিই ছিল গমভর্তি। ট্রেনটি চাঁপাই নবাবগঞ্জের রহনপুর থেকে ফরিদপুর যাচ্ছিল।

ট্রেনচালক মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ‘কুষ্টিয়া স্টেশন থেকে ক্লিয়ারিং পাওয়ার পর ট্রেনটি নিয়ে কুমারখালীর দিকে যাচ্ছিলাম। দুই শ’ গজ যাওয়ার পর রেল বাকে মিলপাড়া মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের সামনে এসে দেখতে পাই রেললাইনের ওপরে একটি ট্রলি দাঁড়ানো রয়েছে। কিন্ত ট্রেন থেকে ট্রলিটি মাত্র ৫০ গজের মধ্যে থাকায় ব্রেক ট্রেন থামাতে পারিনি।’

মিলপাড়ার বাসিন্দা ইমারত হোসেন মিনু জানান, ‘জুমার নামাজের সময় ট্রেনটি কুমারখালীর মুখে যাওয়ার পথে এই সংঘর্ষ ঘটে। রেলে প্রথম পাঁচটি বগির কিছুই হয়নি। তবে মাঝের পাঁচটি বগির চাকা খুলে গেছে।’

প্রত্যক্ষদর্শী জাহান বলেন, ‘রেললাইনের পাশেই দাঁড়িয়ে ছিলাম। সংঘর্ষের সময় ট্রলিটি ট্রেনের নিচ দিয়ে পাঁচটি বগি পর্যন্ত চলে যায়। একপর্যায়ে ট্রেনটি থেমে যায়। পরে মাঝের পাঁচটি বগি লাইনচ্যুত হয়। কিন্ত পেছনের বগিগুলোর কোনো সমস্যা হয়নি।’

কুষ্টিয়ার রেল স্টেশন মাস্টার এম এ জামান জানান, ‘ঈশ্বরদী থেকে রিলিফ ট্রেন ডাকা হয়েছে। তবে লাইন ২৪ ঘণ্টার আগে স্বাভাবিক করা সম্ভব হবে না।’

তিনি দাবি করেন, ‘ট্রলির কারণেই দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। এখানে ট্রেনের কোনো দায় নেই। এ লাইনে টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসসহ মোট চারটি ট্রেন যাতায়াত করে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঈশ্বরদী থেকে উদ্ধারকারী ট্রেন এসে কাজ শুরু করেছে। সন্ধ্যায় রাজশাহী থেকে আসা গোপালগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেনটি কুষ্টিয়া বড় স্টেশনে থামে আর ফরিদপুর থেকে আসা মধুমতি ট্রেনটি দুর্ঘটনা কবলিত এলাকার অপর প্রান্তে থামে। উভয় ট্রেনের যাত্রীরা পায়ে হেটে ট্রেন বদল করে। পরে গোপালগঞ্জ অভিমুখের গাড়িটি রাজশাহীর যাত্রী নিয়ে রাজশাহী অভিমুখে ছেড়ে আসে এবং মধুমতি এক্সপ্রেস গাড়িতে গোপালগঞ্জ অভিমুখে যাত্রী নিয়ে ছেড়ে যায়। এ রুটের খুলনা মেইল ট্রেনটি কুমারখালীতে রয়েছে এবং সাটল ট্রেনটি দুর্ঘটনা এলাকার অন্য প্রান্ত থেকে সন্ধ্যায় আবার দৌলতদিয়া ঘাটের অভিমুখে যাত্রা করেছে। এতে রাজশাহী ও গোপালগঞ্জ অভিমুখের যাত্রীদের তেমন একটা বিড়ম্বনায় পড়তে হয়নি। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।



আরো সংবাদ