০৭ মার্চ ২০২১
`

মোংলায় বিএনপির মেয়রসহ ১৪ কাউন্সিলর প্রার্থীর নির্বাচন বর্জন

মোংলায় বিএনপির মেয়রসহ ১৪ কাউন্সিলর প্রার্থীর নির্বাচন বর্জন - সংগৃহীত

কেন্দ্র দখলসহ ভোট কারচুপির নানা অভিযোগে মোংলা পোর্ট পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মো. জুলফিকার আলী ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন। শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে শহরের মাদরাসা রোড এলাকার নিজ বাসভবনের নির্বাচনী অফিসে সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন।

জুলফিকার আলীর সাথে বিএনপি সমর্থিত ১২ জন কাউন্সিলর ও মোকছেদুর রহমানসহ স্বতন্ত্র দু’জন কাউন্সিলর প্রার্থী ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে জুলফিকার আলী অভিযোগ করেন, ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের চাপে সাধারণ ভোটাররা কেন্দ্রে যেতে পারছে না। বাধা পেরিয়ে কেউ কেউ যেতে পারলেও সরকারি দলের নিযুক্ত ক্যাডারদের সামনে তাদের পছন্দের প্রতীকে ভোট দিতে বাধ্য করা হচ্ছে। এভাবে কোনো সভ্য দেশে নির্বাচন হতে পারে না। আমি নিজে কয়েকটি কেন্দ্রে এমনি লজ্জাস্কর ভোট ডাকাতির চিত্র দেখেছি।

বর্জনকারী কাউন্সিলররা হলেন, ১ নম্বর ওয়ার্ডের হাবিব ফকির, মাইনুল ইসলাম, ২ নম্বর ওয়ার্ডের ইমান হোসেন, ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সুমন মল্লিক ও ইউনুস আলী, ৪ নম্বর ওয়ার্ডের আব্দুর রাজ্জাক, ৫ নম্বর ওয়ার্ডের এমরান হোসেন, ৬ নম্বর ওয়ার্ডের অ্যাডভকেট মো: হোসেন, ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মো: আলাউদ্দীন, ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মো: খোরশেদ আলম, ৯ নম্বর ওয়ার্ডের এম এ কাদের, সংরক্ষিত ১, ২, ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কমলা বেগম ৪, ৫, ৬ নম্বর ওয়ার্ডের লিলি বেগম ৭, ৮, ৯ নম্বর ওয়ার্ডের আয়শা বেগম।

কাউন্সিলরা বলেন, শুধু মেয়র প্রার্থীর ভোটার সমর্থক নয়, কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থক ও ভোটারদেরকেও কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। আমাদের সমর্থকদের মারধর করেছে আওয়ামী সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী ও দলীয় নেতাকর্মীরা।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগের আব্দুর রহমান, বিএনপির জুলফিকার আলী, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোকছেদুর রহমান গামা মেয়র পদে নির্বাচন করছেন। এছাড়া ৯টি সাধারণ ওয়ার্ডে ৩৫ জন কাউন্সিলর ও ৩টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ১২ জন নারী কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।



আরো সংবাদ