২৭ জানুয়ারি ২০২১
`

উদ্বোধন হলো ৬ জেলার সড়ক যোগাযোগের নতুন মাত্রা

উদ্বোধন হলো ৬ জেলার সড়ক যোগাযোগের নতুন মাত্রা - নয়া দিগন্ত

মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার মধুমতি নদীর ওপর নির্মিত ৬০০ মিটার দীর্ঘ ‘শেখ হাসিনা সেতু’ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়েছে। রোববার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সেতু উদ্বোধন করেন। পরে বিকেলে উপজেলাবাসীর সাথে স্থানীয় সাংসদ ড. শ্রী বীরেন শিকদার শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

এই সেতু নির্মাণের মধ্য দিয়ে যাতায়াতের সময় কয়েক ঘণ্টা কমিয়ে রাজধানীর সাথে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সড়ক যোগাযোগে নতুন মাত্রা যোগ হলো। এছাড়া সেতুটি হওয়ায় রাজধানী ছাড়াও ছয়টি জেলার সড়ক যোগাযোগে যুগান্তকারী উন্নয়ন বাস্তবে রুপ লাভ করেছে।

শেখ হাসিনা সেতুর সাথে প্রধানমন্ত্রী নারায়ণগঞ্জ জেলার রুপগঞ্জ উপজেলায় ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম দস্তগীর গাজী (বীর প্রতীক) সেতু’ ও যশোর জেলার অভয়নগর উপজেলায় যশোর-খুলনা সড়কে ভৈরব নদীর ওপর দীর্ঘ সেতু এবং পাবনার ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম বকুল স্বাধীনতা চত্ত্বর’ -এর শুভ উদ্বোধন করেন।

জানা যায়, উপজেলা ও ইউনিয়ন সড়কে দীর্ঘ সেতু নির্মাণ (৩য় সংশোধিত) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ৬৩ কোটি ৩১ লাখ ২৮ হাজার টাকায় প্রি-স্ট্রেসড কংক্রিট গার্ডার শেখ হাসিনা সেতুটি নির্মাণ করা হয়। যার দৈর্ঘ্য ৬০০ দশমিক ৭০ মিটার এবং প্রস্থ ৯ দশমিক ৮০ মিটার।

সড়ক যোগাযোগের ক্ষেত্রে মহম্মদপুর উপজেলার সাথে পাশের ফরিদপুর, রাজবাড়ি ও গোপালগঞ্জ জেলা এবং রাজধানী ঢাকার সাথে মধুমতি নদী ছিলো একটি বড় বাধা। এই জনপদের মানুষদের উল্টোপথে মাগুরা সদর হয়ে এসব গন্তব্যে যাতায়াত করতে হতো।

নির্মিত সেতুটি পূর্ব দিক ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারি, আলফাডাঙ্গা এবং গোপালগঞ্জের কাশিয়ানি উপজেলার ভাটিয়াপাড়া হয়ে পদ্মা সেতুকে সংযুক্ত করবে। ফলে মহম্মদপুর উপজেলা ও ঢাকার মধ্যে দূরত্ব ৯৮ কিলোমিটার হ্রাস পাবে। অন্যদিকে ফরিদপুর জেলার মধুখালি হয়ে দৌলতদিয়া ঘাট পর্যন্ত সড়ক ব্যবহারকারীদের জন্য ঢাকার সাথে দূরত্ব প্রায় ৮০ কিলোমিটার কমে যাবে। মহম্মদপুর থেকে পাশের শালিখা উপজেলা এবং নড়াইল ও যশোর জেলার জনসাধারণ সহজেই সেতুটি ব্যবহার করে রাজবাড়ি ফরিদপুর ও ঢাকায় যাতায়াত করতে পারবে।

শুভেচ্ছা বিনিময়কালে মাগুরা ২ আসনের সাংসদ ড. শ্রী বীরেন শিকদার বলেন, মধুমতি নদীর ওপর শেখ হাসিনা সেতু ছিল আমার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি। মহম্মদপুরবাসীর জন্যে সবার প্রাণের যে দাবি আমি তা বাস্তবায়ন করতে পেরেছি।

এসময় মাগুরা জেলা প্রশাসক ড. আশরাফুল আলম, পুলিশ সুপার খাঁন মোহাম্মদ রেজোয়ান, মাগুরা এলজিইডি প্রকৌশলী মো: শরিফুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল মান্নান, প্রেসক্লাব সভাপতি অধ্যক্ষ বিপ্লব রেজা বিকো প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।



আরো সংবাদ