২৭ জানুয়ারি ২০২১
`

বিয়ের আড়াই মাস পর শ্বশুর বাড়িতে বিষপানে জামাইয়ের আত্মহত্যা

বিয়ের আড়াই মাস পর শ্বশুর বাড়িতে বিষপানে জামাইয়ের আত্মহত্যা - ছবি : নয়া দিগন্ত

যশোরের চৌগাছায় বিয়ের আড়াই মাস পর শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে এসে জহুরুল ইসলাম নুনু (২৫) নামে এক যুবক বিষপান করে আত্মহত্যা করেছেন। উপজেলার পাশাপোলের কালকেপুর গ্রামে শনিবার বিকাল ৫টায় ঘটনাটি ঘটেছে।

আত্মহত্যাকারী যুবক ঝিকরগাছা উপজেলার কায়েমকোলা জয়রামপুর গ্রামের ঠান্ডু মিয়ার ছেলে।

জহুরুল ইসলামের শ্বশুর আবু জাফর সন্ধ্যায় হাসপাতালে সাংবাদিকদের বলেন, ‘জহুরুল ইসলামের সাথে আড়াই মাস আগে আমার মেয়ে তহুরা খাতুনের পারিবারিকভাবে বিবাহ হয়। আমার মেয়ে প্রথম বার শ্বশুর বাড়িতে যাওয়ার পরে ফিরে এসে আর যেতে রাজি হয় হচ্ছিল না। আমরা অনেক বুঝিয়ে তাকে আবার শ্বশুর বাড়িতে পাঠাই। সেখানে পারিবারিক অশান্তির কারণে তার ননদ তাকে ১৫ দিন আগে আমাদের বাড়িতে রেখে যায়।

শনিবার সকাল ৮টার দিকে জহুরুল ইসলাম আমাদের বাড়িতে আসে। সে সকালের খাবার ও দুপুরের খাবার আমাদের বাড়িতে খায়। দুপুরের খাবার শেষে সে চায়ের দোকানে যায়। পরে বাড়িতে ফিরে আমার মেয়েকে নিয়ে যেতে চায়। কিন্তু আমার মেয়ে যেতে না চাওয়ায় তার সাথে কথা-কাটাকাটি হয়। এ সময় জহুরুল বিষপান করে।

পরে বিষপান করার সাথে সাথেই আমি তার বাবার কাছে ফোন করে বলি আপনার ছেলে বিষ খেয়েছে। আপনারা দ্রুতচলে আসেন। এরপর স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে উদ্ধার করে চৌগাছা সরকারি মডেল হাসপাতালে নিয়ে আসি। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে ওয়াস করেন। পরে তার অবস্থার অবনতি হলে ইসিজি করেন। ইসিজি করার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।’

এ ব্যাপারে চৌগাছা সরকারি মডেল হাসপাতালের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক আসিফ রায়হান বলেন, ‘রোগীকে আমরা ওয়াস করি পরে তার অবস্থার অবনতি হলে ইসিজি করলে বুঝা যায় সে মারা গেছে।’

এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে চৌগাছা থানার ডিউটি অফিসার এএসআই বাবুল আক্তার বলেন, এ ব্যাপারে চৌগাছা থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। তার প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্টে বিষপানে মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার পর তার মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। রোববার তার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।



আরো সংবাদ