০৫ আগস্ট ২০২০

আল্লাহর রাস্তায় চলার প্রস্তুতি

-
24tkt


আল্লাহ তায়ালা এ বিশ্ব জাহান সৃষ্টি করেছেন, সৃষ্টি করেছেন আমাদের। আল্লাহ তায়ালার মানুষ ও জিন জাতি সৃষ্টি করার পেছনে একটিই উদ্দেশ্য রয়েছে। আর তা হলো আল্লাহ তায়ালার ইবাদত ও বন্দেগি করা। আর এ বিশ্ব এবং বিশ্বের সব জিনিস আল্লাহ তায়ালা মানুষের জন্যই সৃষ্টি করেছেন। মানুষ দুনিয়াতে আল্লাহর নেয়ামত ভোগ করবে আর আল্লাহর ইবাদত করবে। আল্লাহর পদতলে মাথা ঠেকাবে। আল্লাহর জমিনে আল্লাহর আইন বাস্তবায়ন করবে। আল্লাহর ইবাদত করার ক্ষেত্রে, আল্লাহর আইন আল্লাহর জমিনে বাস্তবায়ন করার ক্ষেত্রে মাঝে মধ্যে বান্দা শয়তানের, তাগুতের বাধার সম্মুখীন হবে। যাকে আরবিতে ফেতনা বাংলায় সন্ত্রাস বলে। একাগ্রচিত্তে আল্লাহর প্রেমে ডুব দেয়ার জন্য এ ফেতনা বা সন্ত্রাস দূর করা এবং সন্ত্রাস দূর করার জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করা মুমিনের অপরিহার্য বিষয় বা ইবাদত। এ ফেতনা দূর করার জন্য আল্লাহর রাস্তায় বের হতে হবে। প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে। এটি মহান আল্লাহ তায়ালার নির্দেশ।
আল্লাহ তায়ালা বলেন, তোমরা সামর্থ্য অনুযায়ী প্রস্তুতি গ্রহণ করো। (সূরা আনফাল আ/৬) আল্লাহ তায়ালা আরো বলেন, তোমরা যা আল্লাহর রাস্তায় খরচ করো, তা তোমাদের পরিপূর্ণ দেয়া হবে, আর তোমাদের জুলুম করা হবে না। (সূরা আনফাল আ/৬)
আমাদের কেন আল্লাহর রাস্তার জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে? কেনই বা আল্লাহর রাস্তায় বের হতে হবে? এ প্রশ্নের উত্তর আল্লাহ নিজেই দিচ্ছেন যে, আল্লাহ তায়ালা বলেন, নিশ্চয় আল্লাহ মুমিনদের জান-মাল জান্নাতের বিনিময়ে ক্রয় করে নিয়েছেন। (সূরা তাওবা ১১১) আল্লাহ তায়ালা মুমিনদের সাথে ব্যবসা করছেন, ঈমান আনা ও আল্লাহর রাস্তায় চেষ্টা করা। এর ফলে আল্লাহ তায়ালা, তিনি তোমাদের জন্য তোমাদের পাপ ক্ষমা করে দিবেন। আর তোমাদের এমন জান্নাতে প্রবেশ করাবেন, যার তলদেশে নহরগুলো প্রবাহিত এবং চিরস্থায়ী জান্নাতে উত্তম আবাসগুলোতেও প্রবেশ করাবেন এটাই মহাসাফল্য। (সূরা আস-সাফ, আ/১২) যারা আল্লাহর রাস্তায় বের হয় আল্লাহ তায়ালা তাদেরকেই বেশি ভালোবাসেন। আল্লাহ তায়ালা বলেন, নিশ্চয় আল্লাহ তাদের ভালোবাসেন, যারা তাঁর পথে সারিবদ্ধ হয়ে চেষ্টা বা জিহাদ করে, যেন তারা সিসা ঢালা প্রাচীর। (সূরা সাফ, আ/৪) তাহলে আমাদের কিছুটা বুঝে এসেছে যে, কেন আমরা আল্লাহর রাস্তায় জিহাদে বের হবো বা তার জন্য প্রস্তুতি নিবো। আর যদি আমরা আল্লাহর রাস্তায় বের না হই, তার জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ না করি। রাসূল সা: বলেন, যখন তোমরা চেষ্টা ছেড়ে দিবে তখন আল্লাহ তোমাদের ওপর অপমান অপদস্থতা চাপিয়ে দিবেন। (আবু দাউদ হা/৩৪৬২) বর্তমানে আমরা অপদস্থতার নিম্নস্তরে রয়েছি। কারণ আমরা আল্লাহর রাস্তায় চেষ্টা করা ছেড়ে দিয়েছি। বর্তমানে চার দিক থেকে ইসলাম ও মুসলমানের ওপর লাঞ্ছনার যেন স্টিমরোলার চলছে। ইসলাম ও মুসলমানদের ফুঁ দিয়ে উড়িয়ে দিতে চায়। চার দিকে শত্রু ও সন্ত্রাস চলছে। এ অবস্থায় আমাদের আল্লাহর নির্দেশ অনুযায়ী প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে। আল্লাহর রাস্তায় চলার প্রস্তুতি নিতে হবে। সমাজ, দেশসহ সারা বিশ্ব থেকে সন্ত্রাস দূর করার চেষ্টা করতে হবে। এ সন্ত্রাস দূরীভূত করার লক্ষ্যে আল্লাহ তায়ালা বলেন, তোমরা হালকা ও ভারী উভয় অবস্থায় আল্লাহর রাস্তায় বের হও এবং তোমাদের মাল ও জান নিয়ে আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করো। এটা তোমাদের জন্য উত্তম, যদি তোমরা জানতে, (সূরা তাওবা আ/৪১) অপর দিকে এ প্রস্তুতি ও চেষ্টা মোজাহাদা চলবে সন্ত্রাস বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত। আল্লাহ তায়ালা বলেন, তোমরা তাদের বিরুদ্ধে চেষ্টা করতে থাক যতক্ষণ না সন্ত্রাস ফিতনা নির্মূল হয়ে যায় এবং সামগ্রিকভাবে আল্লাহর দ্বীন প্রতিষ্ঠিত হয়। তবে তারা যদি বিরত হয় তাহলে নিশ্চয় আল্লাহ তা দেখেন তারা যা করে। (সূরা আনফাল আ/৩৯) অনুরূপ আল্লাহ তায়ালা সূরা বাকারার ১৯৩ আয়াতেও বলেছেন। সন্ত্রাস বা ফেতনা শেষ হওয়া পর্যন্ত তোমাদেরকে সব প্রস্তুতি বা চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে। তাই আসুন আমরা নিজের অবস্থান থেকে যতটুকু সম্ভব আল্লাহর রাস্তায় চলার জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করি। আল্লাহর আদেশ মান্য করি। এ প্রস্তুতি গ্রহণ করা প্রত্যেক মুসলিমের ওপর কর্তব্য।
লেখক : পরিচালক, ইসলাহ বাংলাদেশ, ঢাকা

 


আরো সংবাদ

হিজবুল্লাহর জালে আটকা পড়েছে ইসরাইল! (৩৮৭৬৩)আবারো তাইওয়ান দখলের ঘোষণা দিল চীন (১৭২৩৫)মরুভূমির ‘এয়ারলাইনের গোরস্তানে’ ফেলা হচ্ছে বহু বিমান (১২৫২৩)সিনহা নিহতের ঘটনায় পুলিশ ও ডিজিএফআই’র পরস্পরবিরোধী ভাষ্য (৯৫৯১)হামলায় মার্কিন রণতরীর ডামি ধ্বংস না হওয়ার কারণ জানালো ইরান (৮৭৮৫)সহকর্মীর এলোপাথাড়ি গুলিতে ২ বিএসএফ সেনা নিহত, সীমান্তে উত্তেজনা (৭৫৯৬)ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল লেবাননের রাজধানী (৭১৪৬)বিবাহিত জীবনের বেশিরভাগ সময় জেলে এবং পালিয়ে থাকতে হয়েছে বাবুকে : ফখরুল (৬১৫১)চীনের বিরুদ্ধে গোর্খা সৈন্যদের ব্যবহার করছে ভারত : এখন কী করবে নেপাল? (৫৫৮১)করোনায় আক্রান্ত এমপিকে হেলিকপ্টারে ঢাকায় আনা হয়েছে (৪৪৬৩)