১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮, ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরি
`

আকাশে উড়ল চারচাকা গাড়ি

আকাশে উড়ল চারচাকা গাড়ি -

প্রায় দু’দশক আগে কল্পবিজ্ঞান ভিত্তিক একটি সিনেমায় দেখা গিয়েছিল মাটি থেকে কয়েক শ’ ফুট উঁচুতে অবলীলায় উড়ে চলেছে অসংখ্য গাড়ি। এবার খুব শিগগিরই সেটাই বাস্তব হতে চলছে। কারণ সত্যিই এবার মাটি ছেড়ে আকাশে উড়ল গাড়ি।

সম্প্রতি পরীক্ষামূলকভাবে স্লোভাকিয়ার এক শহর থেকে আরেক শহরে উড়ল নামে গাড়িটি। ৩৫ মিনিটে সে দেশের নিত্রা বিমানবন্দর থেকে ব্রাতিস্লাভা বিমানবন্দরে পৌঁছে গেল প্রফেসর স্টেফান ক্লেইন এবং তার সহকারী অ্যান্টন জেজাকের তৈরি।

জানা গেছে, এয়ারকারের প্রথম প্রোটোটাইপটি নিয়েই পরীক্ষামূলক এই উড়ানটি সফল হয়েছে। প্রপেলারযুক্ত গাড়িটিতে আপাতত ব্যবহার করা হয়েছে ১৬০ হর্সপাওয়ারযুক্ত বিএমডব্লিউ ইঞ্জিন। তবে পরবর্তী সংস্করণে আরো উন্নত ইঞ্জিন ব্যবহার করা হবে।

স্টেফান ক্লেইন জানিয়েছেন, এই এয়ারকারের প্রথম প্রোটোটাইপটি এখনো পর্যন্ত ৮ হাজার ২০০ ফুট উচ্চতায় ১৯০ কিমি/ঘণ্টায় উড়েছে। ৪০ ঘণ্টা উড়ানও সম্পন্ন করেছে সেটি। Aircar এর পরীক্ষামূলক উড়ানে ক্লেইন প্রথমে নিত্রা বিমানবন্দর থেকে ওড়েন। তারপর ৩৫ মিনিটের উড়ানের পর সেটি ব্রাতিস্লাভা বিমানবন্দরে নামে। এরপর মাত্র ২ মিনিট ৩৫ মিনিটে প্লেন থেকে পুনরায় সেটি স্পোর্টস কারের রূপ নেয়। এরপর শহরের মধ্যে দিয়ে সেই গাড়িটি চালান ক্লেইন।

কীভাবে সামান্য একটি স্পোর্টস কার থেকে একেবারে উড়ন্ত যানে পরিণত হয় গাড়িটি? প্রথমে রাস্তায় চললেও নির্ধারিত বোতাম টিপলে সেটি থেকে আসতে আসতে প্রপেলার বেরিয়ে আসবে। এরপর সেটি আকাশে উড়তে সক্ষম হবে। পরবর্তীতে গন্তব্যে পৌঁছনোর পর পুনরায় প্রপেলারটি ভিতরে প্রবেশ করবে।

জানা গেছে, আকাশে ওড়ার ক্ষেত্রে গাড়িটিতে দুজন যাত্রী সওয়ার হতে পারবেন। সঙ্গে ২০০ কেজি মালও বহন করতে পারবে ওই এয়ারকার।

ক্লেইন জানিয়েছেন, এরপর তারা এই গাড়ির প্রোটোটাইপটির দ্বিতীয় সংস্করণ তৈরি করবেন। তাতে যুক্ত করা হবে ৩০০ হর্সপাওয়ারের ইঞ্জিন। সেটির গতিবেগ হতে চলেছে ৩০০ কিমি/ঘণ্টা এবং একবারে সেটি ১০০০ কিলোমিটার উড়তে পারবে।
সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন



আরো সংবাদ