০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯, ৪ জিলহজ ১৪৪৩
`

ইউক্রেনের বন্দর শহর ওডেসায় রাশিয়ার গোলাবর্ষণ

ইউক্রেনের বন্দর শহর ওডেসায় রাশিয়ার গোলাবর্ষণ - ছবি : সংগৃহীত

ইউরোপীয় ইউনিয়ন রাশিয়ার তেল আমদানির ওপর নতুন আরেক দফা নিষেধাজ্ঞার প্রস্তুতি নেয়ার মধ্যেই রুশ বাহিনী সোমবার ইউক্রেনের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় বন্দর শহর ওডেসায় নতুন করে হামলা শুরু করেছে।

ওডেসার সিটি কাউন্সিল সোমবার বলেছে যে একটি রাশিয়ান ক্ষেপণাস্ত্র শহরের একটি আবাসিক ভবনে আঘাত হেনেছে। এতে ১৫ বছর বয়সী একটি ছেলে নিহত হয় এবং একটি মেয়েকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আঞ্চলিক গভর্নর ম্যাকসিম মার্চেনকো বলেছেন, একটি রুশ ক্ষেপণাস্ত্র ওই এলাকার কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ একটি সেতুতেও আঘাত হেনেছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন মঙ্গলবার যত তাড়াতাড়ি সম্ভব রাশিয়ার তেল আমদানি সীমিত করাসহ দেশটির ওপর নিষেধাজ্ঞার একটি নতুন তালিকা প্রস্তাব করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। জার্মান কর্মকর্তারা সোমবার ইঙ্গিত দিয়েছেন যে দেশটি রুশ তেলের ওপর আরোপিত ইইউ নিষেধাজ্ঞাকে সম্পূর্ণভাবে সমর্থন করতে পারে।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেন্সকি সোমবার রাতে ভিডিও বার্তায় বলেছেন, আমরা শিগগিরই ইউরোপীয় ইউনিয়নের কাছ থেকে নিষেধাজ্ঞার একটি নতুন তালিকা আশা করছি। এই প্যাকেজটিতে জ্বালানি সংস্থান থেকে রাশিয়ার রাজস্ব স্থগিত করার জন্য স্পষ্ট পদক্ষেপ অন্তর্ভুক্ত করা উচিত।

মারিউপোল খালি করা
এর আগে সোমবার ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রথম দলটি বোমাবিধ্বস্ত ইস্পাত কারখানা ছেড়ে যাওয়ার পরে অবরুদ্ধ শহর মারিউপোল থেকে বেসামরিক লোকদের সরিয়ে নেয়ার কার্যক্রম `দুর্বল' হয়ে পড়ে।

দিমিত্রো কুলেবা সোমবার কিয়েভে সাংবাদিকদের বলেছেন যে, যেকোনো মুহূর্তে পুরো ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়তে পারে, তাই সবাইকে সরিয়ে নেয়া শেষ না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করা ভালো।

জেলেন্সকি একটি ভিডিও বার্তায় বলেছেন যে ১০০ জনেরও বেশি বেসামরিক লোককে রোববার সরিয়ে নেয়া সম্ভব হয় এবং তারা প্রায় ২০০ কিলোমিটার দূরে জাপোরিঝিয়াতে চলে গেছে, যদিও সরিয়ে নেয়ার অগ্রগতি ধীর বলে জানা গেছে।

রাশিয়ান সেনারা মারিউপোলের বাকি অংশের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার সাথে সাথে শত শত বেসামরিক নাগরিক এবং আনুমানিক ২০০০ ইউক্রেনীয় সেনা আজভস্টাল লোহা ও ইস্পাত কারখানায় আটকা পড়েন। কারখানা থেকে বেসামরিক লোকদের সরিয়ে নেয়ার আগে একাধিক প্রচেষ্টা ভণ্ডুল হয়। এছাড়া ইউক্রেন রাশিয়ার বিরুদ্ধে জনগণকে সরিয়ে নেয়ার রাস্তায় গোলাবর্ষণের অভিযোগ তোলে।

যুক্তরাষ্ট্রের হাউজ স্পিকারের সফর
যুক্তরাষ্ট্রের হাউজ স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি আরো ছয়জন ডেমোক্র্যাট আইন প্রণেতাদের সাথে শনিবার জেলেন্সকির সাথে দেখা করার জন্য কিয়েভে একটি অঘোষিত সফর করেন। সোমবার তিনি পোল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেজ দুদার সাথে আলোচনা করেন। এর আগে পেলোসি রাশিয়ার বিরুদ্ধে ইউক্রেনকে শক্তিশালী করতে ন্যাটো মিত্রদের সমর্থনের প্রতিশ্রুতি দেন।

পেলোসি ভয়েস অফ আমেরিকাকে বলেন, রাশিয়ার ‘কার্যকলাপ সম্ভাব্য শক্তিশালী সব রকম সামরিক প্রতিক্রিয়া, কঠোরতম নিষেধাজ্ঞার জন্য যথেষ্ট। ব্যাপারটা অসহনীয় হয়ে উঠেছে’।

ফেব্রুয়ারির শেষের দিকে রাশিয়ার দেশটিতে আক্রমণের পর থেকে ৫৫ লাখেরও (৫.৫ মিলিয়ন) বেশি শরণার্থী ইউক্রেন থেকে পালিয়ে গেছেন।

জাতিসঙ্ঘের মতে, তাদের মধ্যে ৩০ লাখেরও (৩ মিলিয়ন) বেশি পোল্যান্ডে গেছেন। রোমানিয়া ৮ লাখেরও বেশি শরণার্থী গ্রহণ করে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে।
সূত্র : ভয়েস অফ আমেরিকা


আরো সংবাদ


premium cement