২৩ অক্টোবর ২০২০

অত্যন্ত স্বাস্থ্যকর প্রোবায়োটিক ইয়োগার্ট

অত্যন্ত স্বাস্থ্যকর প্রোবায়োটিক ইয়োগার্ট - ছবি : সংগৃহীত

জীবন যাপনে এসেছে পরিবর্তন। মহামারীর প্রকোপ বুঝিয়েছে শরীরের নিতে হবে যত্ন। শুধু বাইরে থেকে নয়। ভেতর থেকেও সুস্থতা নিশ্চিত আবশ্যক। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে হবে। তবেই ভয়ংকর ভাইরাসের সাথে লড়াইয়ে জয় আসবে। সুস্থ থাকা সম্ভব হবে।

কিন্তু, সেটা কিভাবে?

সুষম খাদ্যের বিষয়ে তো সবাই জানি। শুধু কি তাহলে খাদ্য উপাদানেই সুস্বাস্থ্য সই? নাকি এর বাইরে আরো কিছু আছে? প্রশ্ন জাগে মনে।

ব্যাকটেরিয়া শব্দটি শুনলেই আমাদের অনেকেরই সংক্রমণের বা বিভিন্ন নেতিবাচক ভাবনা আসে। কিন্তু ব্যাকটেরিয়া যে আমাদের শুধুই ক্ষতি করে থাকে এই ধারনাটি ভুল। ব্যাকটেরিয়া মূলত আমাদের দেহের কিছু জীবন্ত অনুজীব। মানবদেহে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়ার মতো অনেক উপকারী ব্যাকটেরিয়াও থাকে। একদিকে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া যেমন বিভিন্ন রোগের সৃষ্টি করে এবং আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দেয় অন্যদিকে ভালো ব্যাকটেরিয়া আমাদের দেহে সক্রিয় থেকে রোগ-বালাই প্রতিরোধ করে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বৃদ্ধি করে। আমাদের দেহে যখন উপকারী ব্যাকটেরিয়া কমে আসে তখন খুব সহজেই আমরা বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হই। এই উপকারী ব্যাকটেরিয়াগুলো মূলত প্রোবায়োটিক। গ্রিক শব্দ ‘প্রোবায়োটিক’-এর অর্থ ‘জীবন উন্নয়ন করা’।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গেলে দেহে বিভিন্ন রোগ সংক্রমনের পরিমান বেড়ে যায়। দেহের পরিপাকতন্ত্রের যত্নের জন্য তাই চাই যথাযথ পুষ্টি মানের খাবার। প্রোবায়োটিক ইয়োগার্ট এ ক্ষেত্রে উপকারী ভূমিকা পালন করবে। বাজারে এখন পাওয়া যাচ্ছে আড়ং-এর প্রোবায়োটিক ইয়োগার্ট। এই প্রোবায়োটিক ইয়োগার্ট স্বাস্থ্য সম্মত ডেইরী প্রোডাক্ট। এখানে নিশ্চিত করা হয় উপকারী ব্যাক্টেরিয়ার সঠিক পরিমান। এই ইয়োগার্ট দেহের উপকারী ব্যাকটেরিয়া সক্রিয় ও কার্যক্ষম রাখতে সাহায্য করে।

প্রোবায়োটিক ইয়োগার্টের উপকারিতার একটি বিশেষ দিক হচ্ছে, এটি দেহে উপকারী ব্যাকটেরিয়ার প্রজনন ঘটায়, এর ফলে দেহে উপকারী ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা দ্রুত গতিতে বৃদ্ধি পায়। প্রোবায়োটিক নিষ্ক্রিয় করে দেহের বিভিন্ন ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান আর যোগান দেয় বিভিন্ন ভিটামিন ও মিনারেলস-এর। প্রোবায়োটিক ইয়োগার্ট-এ থাকা উপকারী ব্যাকটেরিয়া হজমের সমস্যা দূর করতে, উচ্চ রক্তচাপ ও রক্তের কোলেষ্টেরলের মাত্রা কমাতে, ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। এই দই ওজন কমাতেও বিশেষ ভূমিকা রাখে কারন এতে থাকা ক্যালসিয়াম দেহে ফ্যাট সেল জমা হতে বাধা দেয়। । ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়ার সাথে লড়াই করে দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নয়ন ঘটায় প্রোবায়োটিক।

সচেতনতা বেড়েছে। মানুষ এখন শরীরের নিজস্ব চাহিদাকে মূল্যায়ন করে সুস্থতা নিশ্চিত করতে পুষ্টিমান যাচাই বাছাই করে তবেই খাদ্য তালিকা তৈরি করছে। রোজকার খাবারের তালিকায় প্রোবায়োটিক ইয়োগার্ট থাকলে শারীরিক সুস্থতা নিশ্চিত করা সম্ভব সহজেই। সব বয়সী মানুষ খেতে পারে এবং এর বিশেষ কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই।

প্রোবায়োটিক ইয়োগার্ট এখন খুব সহজেই খুঁজে পাবেন আড়ং ডেইরির অনলাইন শপ-এ। এর বাইরেও ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেটের সকল সুপার শপ-এ প্রোবায়োটিক ইয়োগার্টটি পাওয়া যাচ্ছে।

মহামারীর এই সময়ে তো অবশ্যই, সব সময়েই শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে নজর দিন। পাতে থাকুক প্রোবায়োটিক ইয়োগার্ট।


আরো সংবাদ