১৯ জানুয়ারি ২০২১
`

দাঁত না ফেলে দাঁতের চিকিৎসা

-

একটি সুস্থ সুন্দর জীবিত দাঁত পুষ্টি পায় দাঁতের অভ্যন্তরে অবস্থিত দন্তমজ্জার মাধ্যমে। দন্তমজ্জায় থাকে রক্তনালী এবং স্নায়ু যা দাতের শক্ত আবরণ দিয়ে আবৃত থাকে। কোনো কারণে যখন দাঁতের অভ্যন্তরস্থ এ দন্তমজ্জা আক্রান্ত হয়, তখন আক্রান্ত দন্তমজ্জাকে যে চিকিৎসা দিয়ে পুরোপুরি ফেলে দিয়ে সম্পূর্ণ ফাঁপা স্থানটি ফিলিং বা ভরাট করে দেয়া হয় তাকে বলা হয় রুট ক্যানেল থেরাপি।
কখন করা হয়
কোনো কোনো সময় দন্তক্ষয় বা ক্যারিজের কারণে সৃষ্ট গর্তে খাবার ঢুকলে হঠাৎ করে দন্তমজ্জা স্পর্শ হয়ে যেতে পারে। তখন প্রচণ্ড ব্যথা হয়। এ ক্ষেত্রে রুট ক্যানেল করা জরুরি। দাঁতে আগে থেকে ক্যারিজ বা গর্ত থাকলে সম্ভব হলে ওই স্থান দিয়ে অন্যথায় দাঁতের উপরস্থ আবরণগুলো (এনামেল ও ডেন্টিন) ভেদ করে দন্তমজ্জা পর্যন্ত একটি ছিদ্র করা হয়।
ছিদ্রপথে বিশেষ সূক্ষ্ম সুইয়ের মতো যন্ত্র দিয়ে দন্তমজ্জা বের করে আনা হয়।
দাঁত আগে থেকে অনুভূতিহীন হলে অথবা দন্তমজ্জা বা দাঁতের মূলে কোনো সংক্রমণ থাকলে দন্তমজ্জা ছাড়াও ওই ছিদ্রপথে ফাঁপা স্থানে জমাকৃত তরল বস্তু, পুঁজ ইত্যাদি বের করে আনা হয়।
দাঁতের অভ্যন্তরে ফাঁপা ক্যানেল সম্পূর্ণ শুকনো ও জীবাণুমুক্ত মনে হলে বিভিন্ন ধরনের সিলার ম্যাটেরিয়াল দিয়ে ক্যানেল সম্পূর্ণ সিল করে দেয়া হয়। রুট ক্যানেল সিল করার আগে ক্যানেলের আকার, সংখ্যা ও অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার জন্য ডায়াগনস্টিক এক্স-রের সাহায্য নেয়া খুবই জরুরি। রুট ক্যানেল চিকিৎসায় এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ। অনেক রোগী রঞ্জন-রশ্মির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ভয়ে এই ধাপটি বাদ দিতে বলেন। রুট ক্যানেলের আকার, সংখ্যা ও অবস্থান মোটামুটি নিশ্চিত হওয়ার জন্য এই ধাপটি বিশেষ অবস্থা ব্যতীত বাদ দেয়া যায় না।
রুট ক্যানেলপরবর্তী কাজ হলো রুট ক্যানেলকৃত দাঁতটিতে পরে পোরসেলিনের ক্যাপ পরিয়ে নিতে হয়, নচেৎ দাঁতটির মধ্যবর্তী স্থান ফাঁপা হয়ে যাওয়ায় খাওয়ার সময় হঠাৎ ভেঙে যেতে পারে। যেহেতু রুট ক্যানেল চিকিৎসা একটি জটিল দন্তচিকিৎসা, তাই অভিজ্ঞ ডেন্টাল সার্জনের স্মরণাপন্ন হতে হবে এবং সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে হবে।
লেখিকা : ডাইরেক্টর ও ডেন্টাল সার্জন, নাহিদ ডেন্টাল কেয়ার, ১১৭/১ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা।
ফোন : ০১৭১২২৮৫৩৭২

 



আরো সংবাদ