০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯, ৯ রজব ১৪৪৪
ads
`

পারবেন কি রিচার্লিসন?

পারবেন কি রিচার্লিসন? - ছবি : সংগৃহীত

জোড়া গোলে কাতার বিশ্বকাপ শুরু। পরের ম্যাচে মাঠ থেকে তাকে তুলে নেয়া। তৃতীয় ম্যাচে কোচ তিতে রিজার্ভ বেঞ্চের খেলোয়াড়দের মাঠে সুযোগ দেয়ায় খেলাই হয়নি। তবে চতুর্থ ম্যাচে এসে ফের গোল।

বলা হচ্ছে ব্রাজিলের স্ট্রাইকার রিচার্লিসন সম্পর্কে। তিন ম্যাচে তিন গোল করে ইংলিশ লিগের ক্লাব টটেনহ্যামের এই ফুটবলার এখন কাতার বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ গোলদাতার দৌড়ে।

তার সামনে এখন শুধুই কিলিয়ান এমবাপ্পে। ফ্রান্সের এই স্ট্রাইকার চার খেলায় পাঁচ গোল দিয়ে সবার ওপরে। কিন্তু রিচার্লিসনের পক্ষে কি সম্ভব হবে সর্বোচ্চ গোলদাতার গোল্ডেন বুট জেতা। কারণ, গত ২০ বছর ধরে কোনো ব্রাজিলিয়ান জিততে পারেনি এই পুরস্কার।

বিশ্বকাপ ফুটবলে ব্রাজিলের সবচেয়ে বেশি ১৫ গোল রোনালদো নাজারিওর। ১৬টি গোল করে সবার উপরে জার্মানির মিরোস্লাভ ক্লোসে। ১৯৯৮ থেকে ২০০৬ এই তিন বিশ্বকাপে গোলগুলো করেন রোনালদো। এই স্ট্রাইকার সর্বশেষ ব্রাজিলিয়ান হিসেবে সর্বোচ্চ গোলদাতা হন ২০০২ জাপান-দক্ষিণ কোরিয়া বিশ্বকাপে। সেবার তার করা গোল ছিল আটটি। এরপর আরো কোনো ব্রাজিলিয়ান দখল করতে পারেনি এই কৃতিত্ব। আর সেলেসাওদের জেতাও হয়নি ট্রফি। তিন গোল করা রিচার্লিসনের সামনে এখন ফের আরেক ব্রাজিলিয়ান হিসেবে সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ার সুযোগ।

ব্রাজিলকে এখন চ্যাম্পিয়ন হতে আরো তিন ম্যাচ জিততে হবে। রিচার্লিসনের সামনেও সমান সংখ্যক ম্যাচ। তার পক্ষে কি পাওয়া সম্ভব এই খেতাব।

মাথার চুলে সাদা রং করা এই ফুটবলারকে প্রথমে লড়তে হচ্ছে এমবাপ্পের সাথে। এরপর তার ঘাড়ে গরম নি:শ্বাস ফেলছে আর্জেন্টিনার লিওনেল মেসি, পর্তুগালের রামোস গনসালো, ইংল্যান্ডের বুয়াকো সাকা, মার্কুস রাশফোর্ড, ফ্রান্সের অলিভার জিরুড এবং নেদারল্যান্ডসের কোডি গাপকো। প্রত্যেকেরই গোল তিনটি করে। তবে সবার এই রেসে থাকার সুযোগ নেই। ফাইনালের আগে যে দল হারবে, তাদের সাথে রেসে থাকা এই ফুটবলারদের মিশনও শেষ হয়ে যাবে।

নিজেদের প্রথম ম্যাচে জোড়া গোল করে প্রথমে এই লড়াইয়ে থাকার ইঙ্গিত দেন ইকুয়েডরের এনার ভ্যালেন্সিয়া এবং ইরানের মেহদী তারেমী। কাতারে বিপক্ষে জোড়া গোল করেন ভ্যালেন্সিয়া। এরপর নেদারল্যান্ডসের জালেও বল পাঠান। তবে দল গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেয়ায় তার গোল সংখ্যাও বাড়েনি। তিনেই থেমে যান তিনি। ইরানের তারেমীর দুই গোল ছিল ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। পরের দুই ম্যাচে ব্যর্থ তিনি জালের সন্ধান পেতে। একইসাথে ইরানও গ্রুপ পর্ব উৎরাতে না পারায় আর গোল পাওয়া হয়নি পোর্তোতে খেলা এই স্ট্রাইকারের। দুই গোল দিয়ে নিজেদের আশা ক্ষীণই দেখছেন আর্জেন্টিনার জুলিয়ান আলভারেজ, পর্তুগালের ব্রুনো ফার্নান্দেজ, রাফায়েল লিয়াও এবং ক্রোয়েশিয়ার আন্দ্রেস কামারিচ।

২০১৮ সালে ব্রাজিল সিনিয়র দলে ডাক পাওয়া রিচার্লিসন ২০২০ (২০২১ এ অনুষ্ঠিত)-এর অলিম্পিক গেমসে সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার পান। করেছিলেন পাঁচ গোল। দলও জয় করে স্বর্ণপদক। ব্রাজিলের জার্সিতে তার করা গোল ৪১ ম্যাচে ২০টি।

ইংলিশ লিগে এভারটনের জার্সিতে ১৪৫ ম্যাচে ৪৩ গোল করে এবার যোগ দেন টটেনহ্যামে। তবে নতুন ক্লাবে ১০ ম্যাচে গোলশূন্য ছিলেন তিনি।


আরো সংবাদ


premium cement
পুনরায় বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর তীব্র প্রতিবাদ বিএনপির জাপার বিদ্রোহীরা রওশনের নেতৃত্বে ২০১৪ সালের নির্বাচনে যায় : চুন্নু জাতির সঙ্কটময় মুহূর্তে খন্দকার মাহবুব হোসেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন জীবিত ব্যক্তিকে মৃত দেখিয়ে ব্যাংক থেকে আড়াই কোটি টাকা আত্মসাৎ বিদেশে শ্রমিক নিয়োগের বিধি-বিধান শক্তিশালী করতে হবে : মোরালেস এমপি রহমতুল্লাহ’র পকেটে আহলে হাদিসের দুই কোটি ভোট মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক ২ আসামি গ্রেফতার দলের নাম ভাঙিয়ে অপকর্মকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা : তথ্যমন্ত্রী ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ উপ-নির্বাচন ঘিরে ’নাটকীয়তা’ বিপিএলে ইতিহাস গড়ে জয় কুমিল্লার খেলার মাঠে দেয়াল দিয়ে প্রবেশাধিকার সংকুচিত করা হচ্ছে

সকল